ঢাকা ১০:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে অপহরণের ৪দিন পর স্কুল ছাত্র জিহাদের লাশ উদ্ধার

pc murad 08-06-15 copyবেলাল উদ্দিন আহম্মদ, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

রোজ বুধবার, ০৯ জুন ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর এলাকার ফুলকলি কিন্ডার গার্ডেনের ২য় শ্রেনীর ছাত্র জিহাদ(৮) অপহরণ করে নির্মমভাবে খুঁন করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার সকালে অপহরণের সাথে জড়িত রবিউলের ঘরের পেছনে জিহাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ  ময়না তদন্তের জন্য কুমেকের মর্গে প্রেরন করেছে। ছোট শিশু জিহাদের বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধারের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে মানুষের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রামচন্দ্রপুর এলাকার মির্জাপুর গ্রামের প্রবাসী বাবুল মিয়ার একমাত্র ছেলে স্থানীয় এ স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেনির ছাত্র জিহাদ(৮) গত শনিবার বিকেলে নিজ বাড়ীর সামনে অন্যান্য শিশুদের সাথে খেলাধুলা করার সময় একদল অজ্ঞাত সন্ত্রাসী তাকে ছলে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় জিহাদের চাচা শহিদ মিয়া বাদী হয়ে মুরাদনগর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করে। মোবাইল ফোনের সুত্র ধরে স্কুল ছাত্র জিহাদকে উদ্ধারের নানা কৌশল চালিয়ে অপহরণকারীদের হোতা রবিউলকে রোববার রাতে ঢাকার কামরাঙ্গীচর এলাকা থেকে গ্রেফতারের পর তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী জিহাদের লাশ মঙ্গলবার সকালে রবিউলের ঘরের পেছনে তিতাস নদীর পাড় থেকে  উদ্ধার করে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার জিহাদের লাশ উদ্ধারের পর ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে অপহরনকারী রবিউলের চাচা আঃ রহিম মা আমির জাহান ও বোন সালমা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ। এ দিকে জিহাদ হত্যার বিচারের দাবীতে এলাকাবাসী থানার সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে  বলেন এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে, অপহরণের সাথে জড়িত সন্দেহে রবিউল নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

মুরাদনগরে অপহরণের ৪দিন পর স্কুল ছাত্র জিহাদের লাশ উদ্ধার

আপডেট সময় ১০:৫৮:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুন ২০১৫

pc murad 08-06-15 copyবেলাল উদ্দিন আহম্মদ, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

রোজ বুধবার, ০৯ জুন ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর এলাকার ফুলকলি কিন্ডার গার্ডেনের ২য় শ্রেনীর ছাত্র জিহাদ(৮) অপহরণ করে নির্মমভাবে খুঁন করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার সকালে অপহরণের সাথে জড়িত রবিউলের ঘরের পেছনে জিহাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ  ময়না তদন্তের জন্য কুমেকের মর্গে প্রেরন করেছে। ছোট শিশু জিহাদের বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধারের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে মানুষের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রামচন্দ্রপুর এলাকার মির্জাপুর গ্রামের প্রবাসী বাবুল মিয়ার একমাত্র ছেলে স্থানীয় এ স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেনির ছাত্র জিহাদ(৮) গত শনিবার বিকেলে নিজ বাড়ীর সামনে অন্যান্য শিশুদের সাথে খেলাধুলা করার সময় একদল অজ্ঞাত সন্ত্রাসী তাকে ছলে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় জিহাদের চাচা শহিদ মিয়া বাদী হয়ে মুরাদনগর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করে। মোবাইল ফোনের সুত্র ধরে স্কুল ছাত্র জিহাদকে উদ্ধারের নানা কৌশল চালিয়ে অপহরণকারীদের হোতা রবিউলকে রোববার রাতে ঢাকার কামরাঙ্গীচর এলাকা থেকে গ্রেফতারের পর তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী জিহাদের লাশ মঙ্গলবার সকালে রবিউলের ঘরের পেছনে তিতাস নদীর পাড় থেকে  উদ্ধার করে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার জিহাদের লাশ উদ্ধারের পর ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে অপহরনকারী রবিউলের চাচা আঃ রহিম মা আমির জাহান ও বোন সালমা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ। এ দিকে জিহাদ হত্যার বিচারের দাবীতে এলাকাবাসী থানার সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে  বলেন এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে, অপহরণের সাথে জড়িত সন্দেহে রবিউল নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।