ঢাকা ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে আ’লীগের ১০ নেতাকর্মী জেলহাজতে

মুরাদনগর বার্তা ডেস্কঃ

রোজ বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ইং(মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগরে পুলিশের উপর হামলা ও দোকান-পাট ভাংচুর এবং এলাকায় আতংক সৃষ্টি করার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় মুরাদনগর উপজেলা আ’লীগের (ইউছুফ হারুন) ১০ নেতাকর্মী বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমিল্লার চিফ জুডিসিয়াল ৮নং আমলী আদালতের ম্যাজিসট্রেড ফাহাদ বিন আমিন চৌধুরীর আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে আদালত উভয় পক্ষের শুনানি শেষে অভিযুক্তদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরন করেন।

রহিমপুর গ্রামের মৃত রহমান মিয়ার ছেলে আশরাফ এবং কিসমত চৌকিদারের ছেলে মুসাইসহ ১০জন আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন।

উল্লেখ্য গত বছরের ২৭শে ফেব্রুয়ারী এলাকায় প্রাধান্য বিস্তার ও অর্থ ভাগাভাগি নিয়ে বিরোধের জের ধরে মুরাদনগর উপজেলা সদরে দুই ঘন্টা ব্যাপি আ’লীগের (ইউছুফ হারুন) মাসুদ  গ্রুপ ও আশরাফ গ্রুপের মাঝে অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে  দফায় দফায় সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও গোলা গুলির ঘটনা ঘটে।

এ সময় উভয় পক্ষের সংঘর্ষে ৫জন পুলিশ সহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ প্রায় দেড় শতাধিক রাউন্ড গুলি ছোড়ে।  এঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ২৯ জন এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাত ১৫০জনের বিরেুদ্বে দন্ড বিধির ১৪৭/১৪৮/১৪৯/৩৩২/৩৩৩/৩৫৩/৪২৭/৫০৬/৩৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

মুরাদনগরে আ’লীগের ১০ নেতাকর্মী জেলহাজতে

আপডেট সময় ০৩:০০:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

মুরাদনগর বার্তা ডেস্কঃ

রোজ বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ইং(মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগরে পুলিশের উপর হামলা ও দোকান-পাট ভাংচুর এবং এলাকায় আতংক সৃষ্টি করার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় মুরাদনগর উপজেলা আ’লীগের (ইউছুফ হারুন) ১০ নেতাকর্মী বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমিল্লার চিফ জুডিসিয়াল ৮নং আমলী আদালতের ম্যাজিসট্রেড ফাহাদ বিন আমিন চৌধুরীর আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে আদালত উভয় পক্ষের শুনানি শেষে অভিযুক্তদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরন করেন।

রহিমপুর গ্রামের মৃত রহমান মিয়ার ছেলে আশরাফ এবং কিসমত চৌকিদারের ছেলে মুসাইসহ ১০জন আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন।

উল্লেখ্য গত বছরের ২৭শে ফেব্রুয়ারী এলাকায় প্রাধান্য বিস্তার ও অর্থ ভাগাভাগি নিয়ে বিরোধের জের ধরে মুরাদনগর উপজেলা সদরে দুই ঘন্টা ব্যাপি আ’লীগের (ইউছুফ হারুন) মাসুদ  গ্রুপ ও আশরাফ গ্রুপের মাঝে অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে  দফায় দফায় সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও গোলা গুলির ঘটনা ঘটে।

এ সময় উভয় পক্ষের সংঘর্ষে ৫জন পুলিশ সহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ প্রায় দেড় শতাধিক রাউন্ড গুলি ছোড়ে।  এঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ২৯ জন এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাত ১৫০জনের বিরেুদ্বে দন্ড বিধির ১৪৭/১৪৮/১৪৯/৩৩২/৩৩৩/৩৫৩/৪২৭/৫০৬/৩৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন।