ঢাকা ০৯:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে আলোচিত প্রতারক রুবি গ্রেফতার

pc rube 05-05-15
মো: নাজিম উদ্দিন,

কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলার আকুবপুর ইউপির কড়ইবাড়ি থেকে গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় দেশব্যাপী আলোচিত প্রতারক ও মামলাবাজ রোকছানা আক্তার রুবি (৩৫)কে গ্রেফতার করেছে মুরাদনগর থানা পুলিশ।

 

আটককৃত রুবি কড়ইবাড়ী গ্রামের খলিলুর রহমানের স্ত্রী।

জানা যায়, ২৮টি ধর্ষন মামলার বাদী ও ৭টি মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত পলাতক আসামী প্রতারক রুবি কড়ইবাড়ী সড়কে অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদেও ভিত্তিতে মুরাদনগর থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক(এস আই) মাসুদ রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। আটককৃত প্রতারক রুবি পুলিশ সদস্যদের সাথে খারাপ আচরণ ও বাজে মন্তব্য করেন বলে এসআই মাসুদ জানান।
সুত্র জানায়,দেখায় সুন্দর। সব সময় থাকেনও পরিপাটি। মানুষের সাথে বন্ধুত্ব গড়ে তোলার কৌশলে অন্য আট দশ জনের চেয়ে অনেক এগিয়ে। বন্ধুত্ব গড়ার শুরুটা অনেক ভাল ভাবে শুরু করলেও শেষ করেন ব্ল্যাক মেইল করে মোটা সুবিধা নিয়ে নতুবা ধর্ষন মামলা দিয়ে। এভাবে ঢাকা,চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন থানায় নিজে বাদী হয়ে প্রায় ২৮ জন ব্যক্তির নামে ধর্ষন মামলা করেছেন এই রুবি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক কর্মকর্তা বলেন, তার এই প্রতারণার হাত থেকে রেহাই পাননি পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ব্যবসায়ীসহ জনপ্রতিনিধি। সে আট থেকে দশ জনের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। বর্তমানে ওই গ্রামেই তার দুটি স্বামী আছে।

তাছাড়া এলাকার ব্যবসায়ী শিমুল, শাহআলম চেয়ারম্যান, দুলাল মেম্বারসহ অনেক ধনাঢ্য ব্যক্তিকে মামলা দিয়ে হয়রানি করেছেন ওই রুবি ।

মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, অনেক কৌশলে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রুবি প্রায় ২৮ টি ধর্ষন মামলার বাদী ও ৭টি মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত পলাতক আসামী। সর্বশেষ নারী ও শিশু নির্যাতন ও অপহরণ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে সাথে সাথে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগরে আলোচিত প্রতারক রুবি গ্রেফতার

আপডেট সময় ০৫:৪৩:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ মে ২০১৫

pc rube 05-05-15
মো: নাজিম উদ্দিন,

কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলার আকুবপুর ইউপির কড়ইবাড়ি থেকে গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় দেশব্যাপী আলোচিত প্রতারক ও মামলাবাজ রোকছানা আক্তার রুবি (৩৫)কে গ্রেফতার করেছে মুরাদনগর থানা পুলিশ।

 

আটককৃত রুবি কড়ইবাড়ী গ্রামের খলিলুর রহমানের স্ত্রী।

জানা যায়, ২৮টি ধর্ষন মামলার বাদী ও ৭টি মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত পলাতক আসামী প্রতারক রুবি কড়ইবাড়ী সড়কে অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদেও ভিত্তিতে মুরাদনগর থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক(এস আই) মাসুদ রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। আটককৃত প্রতারক রুবি পুলিশ সদস্যদের সাথে খারাপ আচরণ ও বাজে মন্তব্য করেন বলে এসআই মাসুদ জানান।
সুত্র জানায়,দেখায় সুন্দর। সব সময় থাকেনও পরিপাটি। মানুষের সাথে বন্ধুত্ব গড়ে তোলার কৌশলে অন্য আট দশ জনের চেয়ে অনেক এগিয়ে। বন্ধুত্ব গড়ার শুরুটা অনেক ভাল ভাবে শুরু করলেও শেষ করেন ব্ল্যাক মেইল করে মোটা সুবিধা নিয়ে নতুবা ধর্ষন মামলা দিয়ে। এভাবে ঢাকা,চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন থানায় নিজে বাদী হয়ে প্রায় ২৮ জন ব্যক্তির নামে ধর্ষন মামলা করেছেন এই রুবি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক কর্মকর্তা বলেন, তার এই প্রতারণার হাত থেকে রেহাই পাননি পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ব্যবসায়ীসহ জনপ্রতিনিধি। সে আট থেকে দশ জনের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। বর্তমানে ওই গ্রামেই তার দুটি স্বামী আছে।

তাছাড়া এলাকার ব্যবসায়ী শিমুল, শাহআলম চেয়ারম্যান, দুলাল মেম্বারসহ অনেক ধনাঢ্য ব্যক্তিকে মামলা দিয়ে হয়রানি করেছেন ওই রুবি ।

মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, অনেক কৌশলে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রুবি প্রায় ২৮ টি ধর্ষন মামলার বাদী ও ৭টি মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত পলাতক আসামী। সর্বশেষ নারী ও শিশু নির্যাতন ও অপহরণ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে সাথে সাথে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।