ঢাকা ১২:১২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল সুমাইয়া

মোঃ নাজিম উদ্দিনঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পূর্ব ইউনিয়নের বাখরনগর পশ্চিমপাড়া গ্রামে শুক্রবার বিকালে বাল্যবিবাহ বন্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করে উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনসুর উদ্দিনের হস্তক্ষেপে বিয়ের পূর্ব মুহুর্তে বাল্যবিয়ে থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে বাখরনগর হাসেমিয়া মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণী পড়–য়া  ছাত্রী সুমাইয়া আক্তার(১৪)।

জানা যায়, উপজেলার বাখরনগর গ্রামের আবুল কশেমের মাদ্রাসা পড়–য়া মেয়ে সুমাইয়া আক্তার এর বিয়ে ঠিকঠাক করে হোমনা উপজেলার জয়নগর গ্রামের আবদুল মতিনের ছেলে বেলাল হোসেন’(২৬)’র সংঙ্গে। শুক্রবার বিকেলে বিবাহের কিছু সময় পূর্বে মুরাদনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনসুর উদ্দিনের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন এবং বিয়ে বন্ধ করে দেন। পরে ভ্রাম্যমান আদালত বাল্যবিয়ে করতে আসার অপরাধে বর বেলাল হোসেনকে(২৬) ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন এবং বাল্যবিয়েতে  সহযোগীতার অপরাধে মেয়ের বাবা আবুল কাশেম ও ছেলের বাবা আব্দুল মতিন উভয়কে ১হাজার করে ২হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগরে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল সুমাইয়া

আপডেট সময় ০৪:০২:১৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৬

মোঃ নাজিম উদ্দিনঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পূর্ব ইউনিয়নের বাখরনগর পশ্চিমপাড়া গ্রামে শুক্রবার বিকালে বাল্যবিবাহ বন্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করে উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনসুর উদ্দিনের হস্তক্ষেপে বিয়ের পূর্ব মুহুর্তে বাল্যবিয়ে থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে বাখরনগর হাসেমিয়া মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণী পড়–য়া  ছাত্রী সুমাইয়া আক্তার(১৪)।

জানা যায়, উপজেলার বাখরনগর গ্রামের আবুল কশেমের মাদ্রাসা পড়–য়া মেয়ে সুমাইয়া আক্তার এর বিয়ে ঠিকঠাক করে হোমনা উপজেলার জয়নগর গ্রামের আবদুল মতিনের ছেলে বেলাল হোসেন’(২৬)’র সংঙ্গে। শুক্রবার বিকেলে বিবাহের কিছু সময় পূর্বে মুরাদনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনসুর উদ্দিনের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন এবং বিয়ে বন্ধ করে দেন। পরে ভ্রাম্যমান আদালত বাল্যবিয়ে করতে আসার অপরাধে বর বেলাল হোসেনকে(২৬) ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন এবং বাল্যবিয়েতে  সহযোগীতার অপরাধে মেয়ের বাবা আবুল কাশেম ও ছেলের বাবা আব্দুল মতিন উভয়কে ১হাজার করে ২হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।