ঢাকা ০৪:২৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে এতিম সন্তানদের ভিটেবাড়ি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা, ভাংচুর ও লুটপাট

মো: মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার দেওরা গ্রামে এক এতিম সন্তানদের সম্পতি দখল ও ভিটে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করছে একটি চক্র। এরই জেরে তাদের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও ঘরের সকল আসবাবপত্র লুট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের ৮নং আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন অর্জুনা বেগম।

অর্জুনা বেগম অভিযোগ করে বলেন, এক ছেলে এক মেয়ে রেখে আমার স্বামী লিটন চৌধুরী গত ২০১০ সালের ৩১ ডিসেম্বর মৃত্যু হয়। এবং সন্তানরা নাবালক হওয়ায় তাদের ওয়ারিশ সম্পত্তিসহ যাবতিয় অধিকার নিশ্চিত করার জন্য সহকারী জজ ও পারিবারিক আদালতে একটি মামলা দায়ে করি।  আদালত আমাকে সন্তান ও ওয়ারিশ সম্পত্তির অভিভাবক নিযোক্ত করেন। পরে পরিবারের মতামতে আমি ২য় বিবাহ করি।  এবং সংসার অতিবাহিত করা কালীন গত ৬ নভেম্বর দুপুরে সম্পত্তি দেখা শুনার জন্য  ঐ বাড়িতে আসলে সম্পত্তি দখলকারী চক্রের রিপন, শাহ জাহান মিয়া, দুলাল মিয়া, নিলুফা বেগম, সাহিদা বেগম অরুন মিয়া, কুরসুম বেগমসহ ১০/১৫ নারী পরুষ আমার উপর হামলা চালিয়ে আহত করে ও বাড়ি থেকে তারিয়ে দেয়। আমি াপারগ হইয়া সন্তানদের নিয়ে ভয়ে স্থানয়ি ইউপি সদস্য দুলার মিয়ার বাড়িতে অবস্থান করি। পরে ১ ডিসেম্বর বিকেলে অভিযোক্তকারিরা বসত ঘরের তালা ভেঙ্গে বিতরের প্রবেশ করে ঘরের সকল আসবাবপত্র লুট করে ও রান্না ঘর ভাংচুর করে। যদি আমি সন্তানদের নিয়ে  ঐ বাড়িতে প্রবেশ করি তাহলে আমাদের হত্যা করবে বলে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনায় স্থানীয়দের অবহিত করলে তারা বিষয়টি আপোষের চেষ্ঠা করে র্ব্যথ হওয়ায় বৃহস্পতিবার কুমিল্লার আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। এবং আদালত মামলাটি থানায় এজহার ভুক্ত করে তদন্ত করে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দ্দেশ প্রধান করেন।

এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন বলেন, আদালতের নির্দ্দেশ মতো সব কিছুই করা হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে এতিম সন্তানদের ভিটেবাড়ি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা, ভাংচুর ও লুটপাট

আপডেট সময় ১২:২২:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ ডিসেম্বর ২০১৭
মো: মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার দেওরা গ্রামে এক এতিম সন্তানদের সম্পতি দখল ও ভিটে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করছে একটি চক্র। এরই জেরে তাদের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও ঘরের সকল আসবাবপত্র লুট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের ৮নং আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন অর্জুনা বেগম।

অর্জুনা বেগম অভিযোগ করে বলেন, এক ছেলে এক মেয়ে রেখে আমার স্বামী লিটন চৌধুরী গত ২০১০ সালের ৩১ ডিসেম্বর মৃত্যু হয়। এবং সন্তানরা নাবালক হওয়ায় তাদের ওয়ারিশ সম্পত্তিসহ যাবতিয় অধিকার নিশ্চিত করার জন্য সহকারী জজ ও পারিবারিক আদালতে একটি মামলা দায়ে করি।  আদালত আমাকে সন্তান ও ওয়ারিশ সম্পত্তির অভিভাবক নিযোক্ত করেন। পরে পরিবারের মতামতে আমি ২য় বিবাহ করি।  এবং সংসার অতিবাহিত করা কালীন গত ৬ নভেম্বর দুপুরে সম্পত্তি দেখা শুনার জন্য  ঐ বাড়িতে আসলে সম্পত্তি দখলকারী চক্রের রিপন, শাহ জাহান মিয়া, দুলাল মিয়া, নিলুফা বেগম, সাহিদা বেগম অরুন মিয়া, কুরসুম বেগমসহ ১০/১৫ নারী পরুষ আমার উপর হামলা চালিয়ে আহত করে ও বাড়ি থেকে তারিয়ে দেয়। আমি াপারগ হইয়া সন্তানদের নিয়ে ভয়ে স্থানয়ি ইউপি সদস্য দুলার মিয়ার বাড়িতে অবস্থান করি। পরে ১ ডিসেম্বর বিকেলে অভিযোক্তকারিরা বসত ঘরের তালা ভেঙ্গে বিতরের প্রবেশ করে ঘরের সকল আসবাবপত্র লুট করে ও রান্না ঘর ভাংচুর করে। যদি আমি সন্তানদের নিয়ে  ঐ বাড়িতে প্রবেশ করি তাহলে আমাদের হত্যা করবে বলে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনায় স্থানীয়দের অবহিত করলে তারা বিষয়টি আপোষের চেষ্ঠা করে র্ব্যথ হওয়ায় বৃহস্পতিবার কুমিল্লার আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। এবং আদালত মামলাটি থানায় এজহার ভুক্ত করে তদন্ত করে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দ্দেশ প্রধান করেন।

এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন বলেন, আদালতের নির্দ্দেশ মতো সব কিছুই করা হবে।