ঢাকা ১২:০১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা

নাজিম উদ্দিনঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেলো সপ্তম শ্রেনির স্কুল ছাত্রী তানিয়া আক্তার(১৩)। ১৮ বছরের পূর্বে মেয়ে বিয়ে দিবে না মর্মে মুচলেকা দিল ছাত্রীর অভিভাবকের।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার রামচন্দ্রপুর দক্ষিন ইউনিয়নের যসমন্তপুর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার রামচন্দ্রপুর দক্ষিন ইউনিয়নের যসমন্তপুর গ্রামের ওমান প্রবাসী গোলাম মোস্তফার মেয়ে ও খাদিজাতুল কোব্বরা মহিলা মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেনির ছাত্রী তানিয়া আক্তার(১৩) সাথে একই গ্রামের গোলাম রব্বানের ছেলে সাইফুল ইসলাম সাইদুল’র(১৮)বিবাহ হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে মুরাদনগর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: রায়হান মেহেবুব শুক্রবার বেলা ১১টায় কনের বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে বাল্য বিবাহ বন্ধ করে দেন এবং বাল্য বিবাহের কুফল সর্ম্পকে কনের পরিবারকে বুঝিয়ে বলেন। পরে কনে পক্ষ তাদের অপরাধ স্বীকার করে ১৮ বছরের পূর্বে বিয়ে না করার শর্তে উভয় পক্ষ মুচলেকা প্রদান করে।
এদিকে ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতির খবর পেয়ে বর পক্ষের লোকজন তাদের বসতঘরে তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়।

বাল্য বিবাহ রোধে এ সময় এসিল্যান্ডকে সহায়তা করেন উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা সূফি আহাম্মদ, আসলাম কবির, মুরাদনগর থানার এস আই আবদুল আজিজের নেতৃত্বে একদল পুলিশ, ইউপি সদস্য লালন হক খান প্রমুখ।

এ বিষয়ে মুরাদনগর সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো: রায়হান মেহেবুব ঘটনার সত্যাতা স্বীকার করে বলেন  বাল্য বিবাহ রোধে প্রশাসন সর্বদা তৎপর রয়েছে। মুরাদনগর উপজেলাকে বাল্য বিবাহ মুক্ত করার লক্ষ্যে কাজ করছে প্রশাসন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা

আপডেট সময় ০১:৪৮:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
নাজিম উদ্দিনঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেলো সপ্তম শ্রেনির স্কুল ছাত্রী তানিয়া আক্তার(১৩)। ১৮ বছরের পূর্বে মেয়ে বিয়ে দিবে না মর্মে মুচলেকা দিল ছাত্রীর অভিভাবকের।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার রামচন্দ্রপুর দক্ষিন ইউনিয়নের যসমন্তপুর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার রামচন্দ্রপুর দক্ষিন ইউনিয়নের যসমন্তপুর গ্রামের ওমান প্রবাসী গোলাম মোস্তফার মেয়ে ও খাদিজাতুল কোব্বরা মহিলা মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেনির ছাত্রী তানিয়া আক্তার(১৩) সাথে একই গ্রামের গোলাম রব্বানের ছেলে সাইফুল ইসলাম সাইদুল’র(১৮)বিবাহ হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে মুরাদনগর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: রায়হান মেহেবুব শুক্রবার বেলা ১১টায় কনের বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে বাল্য বিবাহ বন্ধ করে দেন এবং বাল্য বিবাহের কুফল সর্ম্পকে কনের পরিবারকে বুঝিয়ে বলেন। পরে কনে পক্ষ তাদের অপরাধ স্বীকার করে ১৮ বছরের পূর্বে বিয়ে না করার শর্তে উভয় পক্ষ মুচলেকা প্রদান করে।
এদিকে ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতির খবর পেয়ে বর পক্ষের লোকজন তাদের বসতঘরে তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়।

বাল্য বিবাহ রোধে এ সময় এসিল্যান্ডকে সহায়তা করেন উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা সূফি আহাম্মদ, আসলাম কবির, মুরাদনগর থানার এস আই আবদুল আজিজের নেতৃত্বে একদল পুলিশ, ইউপি সদস্য লালন হক খান প্রমুখ।

এ বিষয়ে মুরাদনগর সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো: রায়হান মেহেবুব ঘটনার সত্যাতা স্বীকার করে বলেন  বাল্য বিবাহ রোধে প্রশাসন সর্বদা তৎপর রয়েছে। মুরাদনগর উপজেলাকে বাল্য বিবাহ মুক্ত করার লক্ষ্যে কাজ করছে প্রশাসন।