ঢাকা ০৬:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে কালবৈশাখী ঝড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অর্ধশতাদিক বাড়ি-ঘর বিনিষ্ট

মোঃ আরিফুল ইসলাম, স্টাফ রির্পোটার, মুরাদনগরঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় রবিবার সন্ধ্যায় আকস্মি কালবৈশাখী ঝড়ে সবকিছু লন্ডভন্ড করে দেয়। এতে করে রবিবার সন্ধ্যা থেকে সোমবার দুপুরে এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত উপজেলাটি বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ঝড়ে উপড়ে পে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন স্থানের গাছ-পালা, বিনষ্ট হয়েছে ফল-ফলাদি, জমির ফসল ও ঘরের ড় চালাসহ অনেক স্থাপনা। এত প্রায় ১০/১৫ জন আহতের খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, কালবৈশাখী ঝড়ে সড়কের পাশের বিভিন্ন স্থানে বেশকিছু গাছ উপড়ে পড়ে ও গাছের ডাল-পালা ভেঙ্গে সড়কে পড়ায় রবিবার রাতে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন যানবাহনের যাত্রীরা। ঝড়ের সময় বাশঁকাইট ব্যারেষ্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ডিগ্রি কলেজ, উড়েশ্বও উচ্চ বিদ্যালয়, মুরাদনগর আইডিয়েল কিন্ডার গার্ডেন স্কুল ও দৈয়ারা প্রাথমিক সরকারি বিদ্যালয়ের শ্রেনী-কক্ষসহ অর্ধশতাদিক বাড়ি-ঘর উপরে ফেলে। উপজেলার কয়েকটি স্থানে গাছ এবং ডাল-পালা ভেঙে পড়ায় যানবাহন চলাচল ব্যহত হয়েছিল, সোমবার সকাল থেকে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।

এদিকে রবিবার সন্ধ্যা থেকে উপজেলা বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ে। ঝড়ে গাছের ডাল-পালা পড়ে কোথাও কোথাও বিদ্যুৎ লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে রাতে পুরো উপজেলা বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ায় ভুতুরে এলাকায় পরিণত হয়। ঝড়ে বিদ্যুৎ লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সোমবার দুপুরে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলাটি বিদ্যুৎহীন অবস্থায় ছিল।

কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জোনাল অফিসের কোম্পানীগঞ্জ শাখার ডেপুটি ম্যানেজার সাদেকুজ জামান জানান, ঝড়ে মেইন লাইনে ১টিসহ মোট ১৩টি বিদ্যুতের খুটি, ৫ টি ক্রসেম ও বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতিক তার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় উপজেলায় বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন রয়েছে। সন্ধ্যার আগেই সংযোগ দেওয়ার চেষ্টা করছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনসুর উদ্দিন জানান, উপজেলার বিভিন্ন স্থনে ক্ষতিগ্রস্তের খবর আমরা পেয়েছি। আমরা ক্ষয়-ক্ষতির অনুমানিক পরিমান নিরুপনের চেষ্ঠা করছি।

ট্যাগস

মুরাদনগরে কালবৈশাখী ঝড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অর্ধশতাদিক বাড়ি-ঘর বিনিষ্ট

আপডেট সময় ০৬:২০:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ মে ২০১৬

মোঃ আরিফুল ইসলাম, স্টাফ রির্পোটার, মুরাদনগরঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় রবিবার সন্ধ্যায় আকস্মি কালবৈশাখী ঝড়ে সবকিছু লন্ডভন্ড করে দেয়। এতে করে রবিবার সন্ধ্যা থেকে সোমবার দুপুরে এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত উপজেলাটি বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ঝড়ে উপড়ে পে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন স্থানের গাছ-পালা, বিনষ্ট হয়েছে ফল-ফলাদি, জমির ফসল ও ঘরের ড় চালাসহ অনেক স্থাপনা। এত প্রায় ১০/১৫ জন আহতের খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, কালবৈশাখী ঝড়ে সড়কের পাশের বিভিন্ন স্থানে বেশকিছু গাছ উপড়ে পড়ে ও গাছের ডাল-পালা ভেঙ্গে সড়কে পড়ায় রবিবার রাতে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন যানবাহনের যাত্রীরা। ঝড়ের সময় বাশঁকাইট ব্যারেষ্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ডিগ্রি কলেজ, উড়েশ্বও উচ্চ বিদ্যালয়, মুরাদনগর আইডিয়েল কিন্ডার গার্ডেন স্কুল ও দৈয়ারা প্রাথমিক সরকারি বিদ্যালয়ের শ্রেনী-কক্ষসহ অর্ধশতাদিক বাড়ি-ঘর উপরে ফেলে। উপজেলার কয়েকটি স্থানে গাছ এবং ডাল-পালা ভেঙে পড়ায় যানবাহন চলাচল ব্যহত হয়েছিল, সোমবার সকাল থেকে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।

এদিকে রবিবার সন্ধ্যা থেকে উপজেলা বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ে। ঝড়ে গাছের ডাল-পালা পড়ে কোথাও কোথাও বিদ্যুৎ লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে রাতে পুরো উপজেলা বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ায় ভুতুরে এলাকায় পরিণত হয়। ঝড়ে বিদ্যুৎ লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সোমবার দুপুরে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলাটি বিদ্যুৎহীন অবস্থায় ছিল।

কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জোনাল অফিসের কোম্পানীগঞ্জ শাখার ডেপুটি ম্যানেজার সাদেকুজ জামান জানান, ঝড়ে মেইন লাইনে ১টিসহ মোট ১৩টি বিদ্যুতের খুটি, ৫ টি ক্রসেম ও বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতিক তার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় উপজেলায় বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন রয়েছে। সন্ধ্যার আগেই সংযোগ দেওয়ার চেষ্টা করছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনসুর উদ্দিন জানান, উপজেলার বিভিন্ন স্থনে ক্ষতিগ্রস্তের খবর আমরা পেয়েছি। আমরা ক্ষয়-ক্ষতির অনুমানিক পরিমান নিরুপনের চেষ্ঠা করছি।