ঢাকা ০৮:৪৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে গৃহবধুকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান আটক

মুরাদনগর বার্তা ডেস্কঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় এক গৃহবধুকে কুপিয়ে ২’লক্ষ টাকা ছিনতাই করার অভিযোগ এনে গত ৩০ আগস্ট রোকেয়া বেগম ইউপি চেয়ারম্যানকে হুকুমের আসামী করে ১৩ জনের নামে কুমিল্লার আদালতে মামলা দায়ের করে। এ ঘটনায় পাহাড়পুর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও ১ নং ওয়াডের ইউপি সদস্য ইমরান হোসেন সরকাকে(৪০) আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে কুমিল্লা জেলহাজতে প্রেরন করে মুরাদনগনগর থানা পুলিশ।

অভিযোগে সূত্রে জানা যায়, গত ৬ আগস্ট সরমকান্দা গ্রামের ছিদ্দিক মিয়া স্ত্রী রোকেয়া বেগম সকাল ৮ টার দিকে ছেলেকে বিদেশে পাঠানোর ২’লক্ষ টাকা নিয়ে প্রান্তি গ্রামে মেয়ের বাড়ি যাওয়ার পথে ভারপ্রাপ্ত ইেউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী সিএনজি চালিত অটোরিক্সা থেকে জোর করে নামিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে এবং সাথে থাকা টাকা ছিনিয়ে নেয়। এ সময় গৃহবধু চিৎকার করলে  স্থানীয়রা ছুটে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ওই গৃহবধুকে মুরাদনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্র্তি করেন।  এ ঘটনায় ভিকটিম রোকেয়া বেগম বাদী হয়ে ৩০ আগস্ট কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ৮নং আমলী আদালতে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ইমরান সরকারকে হুকুমের আসামী করে ৫ জনের নাম উল্লেখ্য করে আরো অজ্ঞাত ৮ নামসহ মোট ১৩ জনের নামে একটি মামলা করেন। বৃহস্পতিবার সকালে মুরাদনগর থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম তার নিজ বাড়ি থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ইমরান হোসেনকে আটক করে।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানার ওসি বদিউজ্জামান বলেন, আদালতে মামলা হয়েছে পড়ে তা থানায় এজহার ভ’ক্ত করা হয়েছে। সেই মামলার ১নং আসামী ইমরান সরকার। তাকে গ্রেফতার করে বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। আর অন্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে গৃহবধুকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান আটক

আপডেট সময় ০৫:৩২:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭
মুরাদনগর বার্তা ডেস্কঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় এক গৃহবধুকে কুপিয়ে ২’লক্ষ টাকা ছিনতাই করার অভিযোগ এনে গত ৩০ আগস্ট রোকেয়া বেগম ইউপি চেয়ারম্যানকে হুকুমের আসামী করে ১৩ জনের নামে কুমিল্লার আদালতে মামলা দায়ের করে। এ ঘটনায় পাহাড়পুর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও ১ নং ওয়াডের ইউপি সদস্য ইমরান হোসেন সরকাকে(৪০) আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে কুমিল্লা জেলহাজতে প্রেরন করে মুরাদনগনগর থানা পুলিশ।

অভিযোগে সূত্রে জানা যায়, গত ৬ আগস্ট সরমকান্দা গ্রামের ছিদ্দিক মিয়া স্ত্রী রোকেয়া বেগম সকাল ৮ টার দিকে ছেলেকে বিদেশে পাঠানোর ২’লক্ষ টাকা নিয়ে প্রান্তি গ্রামে মেয়ের বাড়ি যাওয়ার পথে ভারপ্রাপ্ত ইেউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী সিএনজি চালিত অটোরিক্সা থেকে জোর করে নামিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে এবং সাথে থাকা টাকা ছিনিয়ে নেয়। এ সময় গৃহবধু চিৎকার করলে  স্থানীয়রা ছুটে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ওই গৃহবধুকে মুরাদনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্র্তি করেন।  এ ঘটনায় ভিকটিম রোকেয়া বেগম বাদী হয়ে ৩০ আগস্ট কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ৮নং আমলী আদালতে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ইমরান সরকারকে হুকুমের আসামী করে ৫ জনের নাম উল্লেখ্য করে আরো অজ্ঞাত ৮ নামসহ মোট ১৩ জনের নামে একটি মামলা করেন। বৃহস্পতিবার সকালে মুরাদনগর থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম তার নিজ বাড়ি থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ইমরান হোসেনকে আটক করে।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানার ওসি বদিউজ্জামান বলেন, আদালতে মামলা হয়েছে পড়ে তা থানায় এজহার ভ’ক্ত করা হয়েছে। সেই মামলার ১নং আসামী ইমরান সরকার। তাকে গ্রেফতার করে বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। আর অন্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।