ঢাকা ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে গ্রাম পুলিশের বাড়িতে মাদক ব্যবসায়ীদের হামলা:পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক

মো. হাবিবুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের মোচাগড়া গ্রামের গ্রাম পুলিশ শাহ আলমের বাড়িতে মাদক ব্যবসায়ীরা হামলা চালিয়ে স্ত্রীসহ তাকে আহত করেছে বলে গুরতর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মুরাদনগর থানায় লিখিত অভিযোগ করার পরও রহস্যজনক কারণে মামলা রুজু না হওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে।

ঘটনার ৩দিন অতিবাহিত হলেও মামলা না হওয়ায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

জানা যায়, মোচাগড়া গ্রামের জাঙ্গাল হাটিতে একটি চক্র দীর্ঘদিন যাবত মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাতে মুরাদনগর থানার একদল পুলিশ ওই গ্রামে অভিযান চালায়। অভিযানের খবর পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলে পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি। তখন পুলিশ স্থানীয় গ্রাম পুলিশ শাহআলমকে খবর দিয়ে এনে মাদক ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে থানায় চলে যায়। মাদক ব্যবসায়ীদের ধরার জন্য গ্রাম পুলিশ শাহআলম পুলিশ এনেছে সন্দেহে পরিকল্পিত ভাবে তার বাড়ি-ঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি করে। মাদক ব্যবসায়ীরা গ্রাম পুলিশ শাহআলম ও তার স্ত্রী আমেনা বেগমকে পিটিয়ে আহত করে তাদের সাথে থাকা স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন সেট নিয়ে যায়। এ সময় তাদের চিৎকারে আশ-পাশের লোকজন এসে মাদক ব্যবসায়ীদের কবল থেকে তাদেরকে উদ্ধার করে।

এ ঘটনা নিয়ে মামলা কিংবা বাড়াবাড়ি করলে মাদক ব্যবসায়ীরা গ্রাম পুলিশ শাহআলমের হাত-পা কেটে নেওয়াসহ বিভিন্ন মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করবে বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ওই এলাকার মাদক ব্যবসায়ী সীমা বেগম, শুকুনী বেগম, ডলি বেগম, হানিফ মিয়া, আরমান মিয়া ও আবু বেগমসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে গ্রাম পুলিশ শাহআলম বাদী হয়ে মুরাদনগর থানিায় একটি লিখিত অভিযোগ করলেও এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলা হয়নি।

তবে ওই মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগরে গ্রাম পুলিশের বাড়িতে মাদক ব্যবসায়ীদের হামলা:পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক

আপডেট সময় ০৩:৪২:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ জুন ২০১৬
মো. হাবিবুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের মোচাগড়া গ্রামের গ্রাম পুলিশ শাহ আলমের বাড়িতে মাদক ব্যবসায়ীরা হামলা চালিয়ে স্ত্রীসহ তাকে আহত করেছে বলে গুরতর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মুরাদনগর থানায় লিখিত অভিযোগ করার পরও রহস্যজনক কারণে মামলা রুজু না হওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে।

ঘটনার ৩দিন অতিবাহিত হলেও মামলা না হওয়ায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

জানা যায়, মোচাগড়া গ্রামের জাঙ্গাল হাটিতে একটি চক্র দীর্ঘদিন যাবত মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাতে মুরাদনগর থানার একদল পুলিশ ওই গ্রামে অভিযান চালায়। অভিযানের খবর পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলে পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি। তখন পুলিশ স্থানীয় গ্রাম পুলিশ শাহআলমকে খবর দিয়ে এনে মাদক ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে থানায় চলে যায়। মাদক ব্যবসায়ীদের ধরার জন্য গ্রাম পুলিশ শাহআলম পুলিশ এনেছে সন্দেহে পরিকল্পিত ভাবে তার বাড়ি-ঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি করে। মাদক ব্যবসায়ীরা গ্রাম পুলিশ শাহআলম ও তার স্ত্রী আমেনা বেগমকে পিটিয়ে আহত করে তাদের সাথে থাকা স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন সেট নিয়ে যায়। এ সময় তাদের চিৎকারে আশ-পাশের লোকজন এসে মাদক ব্যবসায়ীদের কবল থেকে তাদেরকে উদ্ধার করে।

এ ঘটনা নিয়ে মামলা কিংবা বাড়াবাড়ি করলে মাদক ব্যবসায়ীরা গ্রাম পুলিশ শাহআলমের হাত-পা কেটে নেওয়াসহ বিভিন্ন মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করবে বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ওই এলাকার মাদক ব্যবসায়ী সীমা বেগম, শুকুনী বেগম, ডলি বেগম, হানিফ মিয়া, আরমান মিয়া ও আবু বেগমসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে গ্রাম পুলিশ শাহআলম বাদী হয়ে মুরাদনগর থানিায় একটি লিখিত অভিযোগ করলেও এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলা হয়নি।

তবে ওই মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।