ঢাকা ০৮:৩৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে চাঁদা দাবি করায় মুক্তিযোদ্ধা হৃদরোগে আক্রান্তের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের নামে চাঁদাবাজি অভিযোগ উঠেছে। এরই রেসে উপজেলায় জসিম উদ্দিন নামে এক অসহায় মুক্তিযোদ্ধার কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করায় তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার রাতে উপজেলার পাহাড়পুর ইউপির উৎরাইন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রোববার বিকালে হাসপাতালে নেয়ার পর রাতে তা প্রকাশ পায়। এ ঘটনা জানাজানি হলে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিনের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম জানান, ফরম পূরণ করার সময় ২৫ হাজার টাকা নিয়েছেন আবদুল রশিদ নামে এক মুক্তিযোদ্ধা।

শনিবার দুপুরে যাচাই-বাছাইয়ে তার স্বামী উত্তীর্ণ হওয়ার পর রাতে মোবাইলে আবারও ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন রশিদ। টাকা না দিলে চূড়ান্ত তালিকায় তার নাম থাকবে না বলে জানালে ফোন হাতে থাকা অবস্থায় তার স্বামী মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসকদের কাছে নিলে চিকিৎসক জানান, জসিম হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। অভিযুক্ত মুক্তিযোদ্ধা আবদুল রশিদ ধামঘর ইউপির আড়ালিয়া গ্রামের মৃত সিরাজ মিয়ার ছেলে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক মুক্তিযোদ্ধা জানান, আমরা সঠিক মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার পরও রশিদ গ্রুপের হয়রানি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ২৫-৩০ হাজার টাকা করে দিয়েছি।

রশিদকে দিয়ে একটি মহল মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে নানা অজুহাতে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোসাম্মৎ রাশেদা আক্তার বলেন, টাকা চাওয়ায় মুক্তিযোদ্ধার ‘হার্ট অ্যাটাক’ বা হৃদরোগ হয়েছে এমন খবর আমি পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

মুরাদনগরে চাঁদা দাবি করায় মুক্তিযোদ্ধা হৃদরোগে আক্রান্তের অভিযোগ

আপডেট সময় ০৭:৫৫:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৫ জুন ২০১৭
বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের নামে চাঁদাবাজি অভিযোগ উঠেছে। এরই রেসে উপজেলায় জসিম উদ্দিন নামে এক অসহায় মুক্তিযোদ্ধার কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করায় তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার রাতে উপজেলার পাহাড়পুর ইউপির উৎরাইন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রোববার বিকালে হাসপাতালে নেয়ার পর রাতে তা প্রকাশ পায়। এ ঘটনা জানাজানি হলে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিনের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম জানান, ফরম পূরণ করার সময় ২৫ হাজার টাকা নিয়েছেন আবদুল রশিদ নামে এক মুক্তিযোদ্ধা।

শনিবার দুপুরে যাচাই-বাছাইয়ে তার স্বামী উত্তীর্ণ হওয়ার পর রাতে মোবাইলে আবারও ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন রশিদ। টাকা না দিলে চূড়ান্ত তালিকায় তার নাম থাকবে না বলে জানালে ফোন হাতে থাকা অবস্থায় তার স্বামী মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসকদের কাছে নিলে চিকিৎসক জানান, জসিম হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। অভিযুক্ত মুক্তিযোদ্ধা আবদুল রশিদ ধামঘর ইউপির আড়ালিয়া গ্রামের মৃত সিরাজ মিয়ার ছেলে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক মুক্তিযোদ্ধা জানান, আমরা সঠিক মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার পরও রশিদ গ্রুপের হয়রানি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ২৫-৩০ হাজার টাকা করে দিয়েছি।

রশিদকে দিয়ে একটি মহল মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে নানা অজুহাতে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোসাম্মৎ রাশেদা আক্তার বলেন, টাকা চাওয়ায় মুক্তিযোদ্ধার ‘হার্ট অ্যাটাক’ বা হৃদরোগ হয়েছে এমন খবর আমি পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।