ঢাকা ০৭:১৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে পিটিয়ে আহত

আজিজুর রহমান রনিঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ছালিয়াকান্দি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও শেষ ধাপে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান মনিরকে হকিস্টিক ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা না হলে তাঁকে গুলি করে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

গত শনিবার বিকেলে ছালিয়াকান্দি ইউনিয়নের নেয়ামতকান্দি বাজারে ফিরোজ মিয়ার দোকানের সামনে রাস্তার উপর এ ঘটনা ঘটেছে বলে বর্ণনা দিয়ে রাতে মুরাদনগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ঘটনার শিকার মিজনুর রহমান মনির।

অভিযোগে বলা হয়, ছালিয়াকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মনির আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে আনারস মার্কা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি চেয়ারম্যান থাকার সময় থেকেই আমাকে নানাভাবে হয়রানি করে আসছেন। এর জের ধরে গত শনিবার বিকেলে আমি নেয়ামতকান্দি বাজারে ফিরোজ মিয়ার দোকানে বসে নির্বাচনী আলোচনা করার সময় মুসা চেয়ারম্যানের ভাই শাহ আলম, তার সহযোগী গোলাম মোস্তফা এবং তার ভাতিজা শামিমের নেতৃত্বে ১৫-২০ জন আমাকে হটিস্টিক ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মাথায় ও বাম হাতের কব্জিতে মারাত্মক জখম করে। তারা আমাকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বলেন। অন্যথায় গুলি করে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়। পরে আমার চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে তাপস, মাসুদ, খোরশেদ আলমসহ এলাকার লোকজন এসে আমাকে উদ্ধার করলে ততক্ষণে তারা দলবলসহ ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। আমি এ ঘটনার সঠিক বিচারের আসায় ও আমার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ করেছি।

অভিযুক্ত ব্যক্তিদের মোবাইল ফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও এ বিষয়ে তাঁদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

মুরাদনগর থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, “লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত  চলছে।” উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাসুদুল হক বলেন, “এ বিষয়ে আমাকে কেউ কিছু জানায়নি।”

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগরে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে পিটিয়ে আহত

আপডেট সময় ০১:৪৬:২৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০১৬

আজিজুর রহমান রনিঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ছালিয়াকান্দি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও শেষ ধাপে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান মনিরকে হকিস্টিক ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা না হলে তাঁকে গুলি করে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

গত শনিবার বিকেলে ছালিয়াকান্দি ইউনিয়নের নেয়ামতকান্দি বাজারে ফিরোজ মিয়ার দোকানের সামনে রাস্তার উপর এ ঘটনা ঘটেছে বলে বর্ণনা দিয়ে রাতে মুরাদনগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ঘটনার শিকার মিজনুর রহমান মনির।

অভিযোগে বলা হয়, ছালিয়াকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মনির আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে আনারস মার্কা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি চেয়ারম্যান থাকার সময় থেকেই আমাকে নানাভাবে হয়রানি করে আসছেন। এর জের ধরে গত শনিবার বিকেলে আমি নেয়ামতকান্দি বাজারে ফিরোজ মিয়ার দোকানে বসে নির্বাচনী আলোচনা করার সময় মুসা চেয়ারম্যানের ভাই শাহ আলম, তার সহযোগী গোলাম মোস্তফা এবং তার ভাতিজা শামিমের নেতৃত্বে ১৫-২০ জন আমাকে হটিস্টিক ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মাথায় ও বাম হাতের কব্জিতে মারাত্মক জখম করে। তারা আমাকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বলেন। অন্যথায় গুলি করে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়। পরে আমার চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে তাপস, মাসুদ, খোরশেদ আলমসহ এলাকার লোকজন এসে আমাকে উদ্ধার করলে ততক্ষণে তারা দলবলসহ ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। আমি এ ঘটনার সঠিক বিচারের আসায় ও আমার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ করেছি।

অভিযুক্ত ব্যক্তিদের মোবাইল ফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও এ বিষয়ে তাঁদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

মুরাদনগর থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, “লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত  চলছে।” উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাসুদুল হক বলেন, “এ বিষয়ে আমাকে কেউ কিছু জানায়নি।”