ঢাকা ০৪:১৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে চেয়ারম্যান প্রার্থীর বাড়িতে হামলা

মো: হাবিবুর রহমানঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ৮নং চাপিতলা ইউনিয়ন থেকে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কাইয়ুম ভুইয়ার লোকজনেরা স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ ভুইয়ার বাড়িতে হামলা চালায়। এতে চেয়ারম্যান প্রার্থী মামুনুর রশীদ ভুইয়াসহ ২০ জনকে পিটিয়ে আহত করে। ঘটনার পর তাঁর বাড়ি-ঘর ভাংচুর করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নেয়। ঘটনার পর থেকে তার কর্মী-সমর্থক ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে অজাঁনা আতংক বিরাজ করছে।

সরেজমিন পরিদর্শনকালে এলাকাবাসী জানায়, মনোনয়পত্র জমা দেওয়ার পর থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ ভুইয়াকে নির্বাচন থেকে সরে দাড়ানোর জন্য হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কাইয়ুম ভুইয়াসহ তার লোকজন। এরই জের ধরে মামুন ভুইয়াকে একাধিকবার নির্বাচণী কাজে বাধাঁ দেয়াসহ বেশ কয়েকবার প্রচারণার কাজে ব্যবহৃত মাইক ভাংচুর করে। এতেও ক্ষ্যন্ত হয়নি প্রতিপক্ষরা, তারা মামুন ভুইয়াকে একপর্যায়ে গৃহবন্দি করে রাখে।

শনিবার রাত অনুমান ৯টায়  শাহাবুদ্দিন টুটুল, গোলাম সারোয়ার ও হাসিবের নেতৃত্বে প্রায় ১৪০/১৫০ জনের একটি অশ্রস্ত্র দল চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ ভুইয়ার বাড়ি ঘেড়াও করে চতুর্দিক থেকে পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালায়। হামলাকারীরা রামদা, লোহার রড ও লাঠিসোটা নিয়ে আতংক সৃষ্টি করে চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ ভুইয়ার উপর আক্রমান চালায়। তখন তাকে রক্ষা করতে গেলে তার ভাই-বোন ও কর্মী-সমর্থকদের উপরও অতর্কিতে হামলা চালায়।

এ সময় তারা বাড়ি ঘরে হামলা টিভি-ফ্রিজ ভাংচুর নগদ ৪ লাখ টাকা ও ২২ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নেয়।

এ ঘটনায় আহত মামুনুর রশীদ ভুইয়া (৫১), ভাই রেজাউল করিম ভুইয়া (৪৪), হাসান ভুইয়া (৪২), মহসীন ভুইয়া (২৬), বোন শিউলি আক্তার (৩৬), কর্মী জয়দল হোসেন (২৯), জহির মিয়া (৩২), সফিকুল ইসলাম (৩১), রফিকুল ইসলাম (২৭), সেলিনা আক্তার (৩০) ও শাহনাজ বেগমকে (২৬) চিকিৎসার জন্য দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উক্ত বিষয়ে থানায় কোন মামলা হয়নি, তবে প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে। ঘটনার পর থকে বাড়িতে থাকা চেয়ারম্যান প্রার্থী মামুন ভুইয়ার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী দিপালী বেগমকে বাড়ি-ঘর ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্যও হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে।

খবর পেয়ে উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজগর আলী এবং রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বিমল চন্দ্র ঘোষ রোববার বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিষয়টির ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কাইয়ুম ভুইয়া ও বাঙ্গরা বাজার থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোন রিসিভ না করায় তাদের সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

মুরাদনগরে চেয়ারম্যান প্রার্থীর বাড়িতে হামলা

আপডেট সময় ০৩:৫৩:৩৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ মে ২০১৬

মো: হাবিবুর রহমানঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ৮নং চাপিতলা ইউনিয়ন থেকে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কাইয়ুম ভুইয়ার লোকজনেরা স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ ভুইয়ার বাড়িতে হামলা চালায়। এতে চেয়ারম্যান প্রার্থী মামুনুর রশীদ ভুইয়াসহ ২০ জনকে পিটিয়ে আহত করে। ঘটনার পর তাঁর বাড়ি-ঘর ভাংচুর করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নেয়। ঘটনার পর থেকে তার কর্মী-সমর্থক ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে অজাঁনা আতংক বিরাজ করছে।

সরেজমিন পরিদর্শনকালে এলাকাবাসী জানায়, মনোনয়পত্র জমা দেওয়ার পর থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ ভুইয়াকে নির্বাচন থেকে সরে দাড়ানোর জন্য হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কাইয়ুম ভুইয়াসহ তার লোকজন। এরই জের ধরে মামুন ভুইয়াকে একাধিকবার নির্বাচণী কাজে বাধাঁ দেয়াসহ বেশ কয়েকবার প্রচারণার কাজে ব্যবহৃত মাইক ভাংচুর করে। এতেও ক্ষ্যন্ত হয়নি প্রতিপক্ষরা, তারা মামুন ভুইয়াকে একপর্যায়ে গৃহবন্দি করে রাখে।

শনিবার রাত অনুমান ৯টায়  শাহাবুদ্দিন টুটুল, গোলাম সারোয়ার ও হাসিবের নেতৃত্বে প্রায় ১৪০/১৫০ জনের একটি অশ্রস্ত্র দল চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ ভুইয়ার বাড়ি ঘেড়াও করে চতুর্দিক থেকে পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালায়। হামলাকারীরা রামদা, লোহার রড ও লাঠিসোটা নিয়ে আতংক সৃষ্টি করে চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ ভুইয়ার উপর আক্রমান চালায়। তখন তাকে রক্ষা করতে গেলে তার ভাই-বোন ও কর্মী-সমর্থকদের উপরও অতর্কিতে হামলা চালায়।

এ সময় তারা বাড়ি ঘরে হামলা টিভি-ফ্রিজ ভাংচুর নগদ ৪ লাখ টাকা ও ২২ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নেয়।

এ ঘটনায় আহত মামুনুর রশীদ ভুইয়া (৫১), ভাই রেজাউল করিম ভুইয়া (৪৪), হাসান ভুইয়া (৪২), মহসীন ভুইয়া (২৬), বোন শিউলি আক্তার (৩৬), কর্মী জয়দল হোসেন (২৯), জহির মিয়া (৩২), সফিকুল ইসলাম (৩১), রফিকুল ইসলাম (২৭), সেলিনা আক্তার (৩০) ও শাহনাজ বেগমকে (২৬) চিকিৎসার জন্য দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উক্ত বিষয়ে থানায় কোন মামলা হয়নি, তবে প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে। ঘটনার পর থকে বাড়িতে থাকা চেয়ারম্যান প্রার্থী মামুন ভুইয়ার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী দিপালী বেগমকে বাড়ি-ঘর ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্যও হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে।

খবর পেয়ে উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজগর আলী এবং রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বিমল চন্দ্র ঘোষ রোববার বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিষয়টির ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কাইয়ুম ভুইয়া ও বাঙ্গরা বাজার থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোন রিসিভ না করায় তাদের সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।