ঢাকা ১১:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে ছাত্র নির্যাতনকারী শিক্ষককে অপসারন

মো: নাজিম উদ্দিনঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ঘোড়াশাল আ: করিম উচ্চ বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেনির ছাত্রকে বেদড়ক বেত্রাঘাতের মাধ্যমে নির্যাতনকারী খন্ডকালিন শিক্ষক মো: নজরুল ইসলামকে চাকুরি থেকে অপসারন করা হয়েছে।

সোমবার সকালে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো: দেলোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত একটি চিঠির মাধ্যকে তাকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি জানানো হয়। নির্যাতনকারী শিক্ষককে বিদ্যালয় থেকে অপসারন করায় ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে আতংক কমে এসেছে।

জানা যায়, ২০১১ সালের এপ্রিল মাস থেকে নজরুল ইসলাম ঘোড়াশাল আবদুল করিম উচ্চ বিদ্যালয়ে খন্ডকালিন শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। কর্মস্থলে যোগদানের পর থেকে বিভিন্ন সময় তার কর্মকান্ডে সর্বদা আতংকে থাকত স্কুলের শিক্ষার্থীরা। বিভিন্ন সময় তার কর্মকান্ডে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাকে মৌখিক ভাবে সতর্ক করলেও তিনি তা কর্ণপাত করেননি। সবশেষ গত ৫ই মার্চ ২০১৭ রবিবার সপ্তম শ্রেনির ছাত্র অমিত হাসানকে স্কুলড্রেস না পড়ে বিদ্যালয়ে আসার অপরাধে বেধড়ক বেতাঘাত করেন, এতে করে অমিতের শরীরের বিভিন্ন অংশ রক্তাক্ত হয়ে ফুলে যায় এবং সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। স্থানীয়রা আহত অমিতকে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

প্রধান শিক্ষক মো: দেলোয়ার হোসেন জানান, নজরুল ইসলাম সরকারি বিধি লংঙ্গন করে শিক্ষার্থী নির্যাতন করেছেন তাই তাকে অত্র বিদ্যালয়ের খন্ডকালিন শিক্ষকের পদ থেকে স্থায়ীভাবে অপসারন করা হয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

মুরাদনগরে ছাত্র নির্যাতনকারী শিক্ষককে অপসারন

আপডেট সময় ০২:৫৪:১৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ মার্চ ২০১৭
মো: নাজিম উদ্দিনঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ঘোড়াশাল আ: করিম উচ্চ বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেনির ছাত্রকে বেদড়ক বেত্রাঘাতের মাধ্যমে নির্যাতনকারী খন্ডকালিন শিক্ষক মো: নজরুল ইসলামকে চাকুরি থেকে অপসারন করা হয়েছে।

সোমবার সকালে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো: দেলোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত একটি চিঠির মাধ্যকে তাকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি জানানো হয়। নির্যাতনকারী শিক্ষককে বিদ্যালয় থেকে অপসারন করায় ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে আতংক কমে এসেছে।

জানা যায়, ২০১১ সালের এপ্রিল মাস থেকে নজরুল ইসলাম ঘোড়াশাল আবদুল করিম উচ্চ বিদ্যালয়ে খন্ডকালিন শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। কর্মস্থলে যোগদানের পর থেকে বিভিন্ন সময় তার কর্মকান্ডে সর্বদা আতংকে থাকত স্কুলের শিক্ষার্থীরা। বিভিন্ন সময় তার কর্মকান্ডে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাকে মৌখিক ভাবে সতর্ক করলেও তিনি তা কর্ণপাত করেননি। সবশেষ গত ৫ই মার্চ ২০১৭ রবিবার সপ্তম শ্রেনির ছাত্র অমিত হাসানকে স্কুলড্রেস না পড়ে বিদ্যালয়ে আসার অপরাধে বেধড়ক বেতাঘাত করেন, এতে করে অমিতের শরীরের বিভিন্ন অংশ রক্তাক্ত হয়ে ফুলে যায় এবং সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। স্থানীয়রা আহত অমিতকে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

প্রধান শিক্ষক মো: দেলোয়ার হোসেন জানান, নজরুল ইসলাম সরকারি বিধি লংঙ্গন করে শিক্ষার্থী নির্যাতন করেছেন তাই তাকে অত্র বিদ্যালয়ের খন্ডকালিন শিক্ষকের পদ থেকে স্থায়ীভাবে অপসারন করা হয়েছে।