ঢাকা ১২:১৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে ছেলের চিকিৎসার জন্য অসহায় বাবার আকুতি

সুমন সরকার, বিশেষ প্রতিনিধি:

কুমিল্লার মুরাদনগরে ছেলের চিকিৎসার জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন এক অসহায় বাবা।

জানা যায়, উপজেলার দুলারামপুর গ্রামের দিনমজুর বাবুল মিয়ার ছেলে ইয়াসিন আরাফাত (০৬)। সমবয়সি বন্ধুদের সাথে ক্রিকেট খেলতে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে পায়ে গুরুতর আঘাত পান। ছেলেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য হাড় ভাঙ্গা কোন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। ইয়াসিন আরাফাতের ডান পা ভেঙ্গে যায় এবং কোমর থেকে পায়ের জয়েন্ট আলাধা হয়ে যায়। সে বর্তমানে দেবিদ্বার একটি হাড় ভাঙ্গা পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

তার বাবা জানান, আমি পেশায় একজন হকার যা রোজগার করতাম তা দিয়ে কোন রকম সংসার চালাতাম। নিজের বাড়ী নেই সরকারি জায়গার মধ্যে থাকি। আমার ছেলেটি আজ ১০দিন যাবত হাসপাতালে বিছানায় কাতরাচ্ছে। ছেলের চিকিৎসা করাতে পারছি না টাকার অভাবে।

ডাক্তাররা বলেছেন আমার ছেলেকে সুস্থ করতে প্রায় ৫০হাজার টাকার প্রয়োজন। আমার এমন কোন অবস্থা বা আতœীয় স্বজন নেই যাদের কাছ থেকে সহযোগীতা নিয়ে ছেলের চিকিৎসা করাব। সমাজের মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে যা পেয়েছি তা দিয়ে এতদিন ছেলের চিকিৎসা করেছি।

আমার ছেলের চিকিৎসার জন্য সমাজের সকল মানুষকে এগিয়ে আসার অনুরোধ করছি। আর্থিক সহযোগিতার জন্য ইয়াসিন আরফাতের বাবা বাবুল মিয়া, ব্যাক্তিগত বিকাশ নং ০১৮৪৫-৬৬২১৮৫।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

মুরাদনগরে ছেলের চিকিৎসার জন্য অসহায় বাবার আকুতি

আপডেট সময় ০২:৩৬:৩৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

সুমন সরকার, বিশেষ প্রতিনিধি:

কুমিল্লার মুরাদনগরে ছেলের চিকিৎসার জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন এক অসহায় বাবা।

জানা যায়, উপজেলার দুলারামপুর গ্রামের দিনমজুর বাবুল মিয়ার ছেলে ইয়াসিন আরাফাত (০৬)। সমবয়সি বন্ধুদের সাথে ক্রিকেট খেলতে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে পায়ে গুরুতর আঘাত পান। ছেলেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য হাড় ভাঙ্গা কোন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। ইয়াসিন আরাফাতের ডান পা ভেঙ্গে যায় এবং কোমর থেকে পায়ের জয়েন্ট আলাধা হয়ে যায়। সে বর্তমানে দেবিদ্বার একটি হাড় ভাঙ্গা পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

তার বাবা জানান, আমি পেশায় একজন হকার যা রোজগার করতাম তা দিয়ে কোন রকম সংসার চালাতাম। নিজের বাড়ী নেই সরকারি জায়গার মধ্যে থাকি। আমার ছেলেটি আজ ১০দিন যাবত হাসপাতালে বিছানায় কাতরাচ্ছে। ছেলের চিকিৎসা করাতে পারছি না টাকার অভাবে।

ডাক্তাররা বলেছেন আমার ছেলেকে সুস্থ করতে প্রায় ৫০হাজার টাকার প্রয়োজন। আমার এমন কোন অবস্থা বা আতœীয় স্বজন নেই যাদের কাছ থেকে সহযোগীতা নিয়ে ছেলের চিকিৎসা করাব। সমাজের মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে যা পেয়েছি তা দিয়ে এতদিন ছেলের চিকিৎসা করেছি।

আমার ছেলের চিকিৎসার জন্য সমাজের সকল মানুষকে এগিয়ে আসার অনুরোধ করছি। আর্থিক সহযোগিতার জন্য ইয়াসিন আরফাতের বাবা বাবুল মিয়া, ব্যাক্তিগত বিকাশ নং ০১৮৪৫-৬৬২১৮৫।