ঢাকা ১০:২৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে নির্যাতন সইতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা

মোঃ মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

রোজ বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ইং(মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের করিমপুর উত্তর পাড়া গ্রামের প্রবাসী মামুন মিয়ার স্ত্রী শেফালী আক্তার(৩১) স্বামী,শ্বাশুরী,দেবর ও সতীনের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন সইতে না পেরে বুধবার ভোর সকালে বিষ পানকরে আত্মহত্যা করে। গৃহবধূকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে বুধবার সন্ধ্যায় মুরাদনগর থানায় নিহতের পিতা মুনছর আলী বাদী হয়ে স্বামীসহ পরিবারের চার জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার করিমপুর গ্রামের মৃত আবুল কাসেমের প্রবাসী ছেলে প্রায় ১০ বছর পূবে র্পাশ্ববর্তী তিতাস উপজেলার আলিনগর গ্রামের  মুনছর আলীর মেয়ে শেফালি আক্তারকে বিবাহ করে। কিন্তু বিবাহের পর থেকে শেফালী কোন সন্তান জন্ম দিতে না পারায় স্বামী মামুন দ্বিতীয় বিয়ে করে। এর পর থেকে স্বামীসহ পরিবারের সকলে শেফালীর উপর শুরু করে পাশবিক নির্যাতন। পরে প্রতিনিয়ত নির্যাতন সইতে না পেরে গত বুধবার ভোর সকালে স্বামীর বাড়িতে বিষপান করে আত্মহত্যা করে।

পরে খবর পেয়ে মুরাদনগর থানা পুলিশের এসআই শামসুল আলমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে  লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে শেফালীর বাবা মুনছুর আলি বাদী হয়ে বুধবার রাতে স্বামী মো: মামুন মিয়া, দ্বিতীয় স্ত্রী চৈইতি আক্তার, দেবর সুমন ও শাশুরী সামছুন্নাহার বেগমকে আসামী করে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে একটি দায়ের মামলা করেন।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: ফজলুল কাদের চৌধুরী জানান, প্রাথমিক অবস্থায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সকালে লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। অভিযুক্ত স্বামী দেশের বাহিরে রয়েছে, অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্ঠা চলছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

মুরাদনগরে নির্যাতন সইতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা

আপডেট সময় ০২:৪৫:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

মোঃ মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

রোজ বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ইং(মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের করিমপুর উত্তর পাড়া গ্রামের প্রবাসী মামুন মিয়ার স্ত্রী শেফালী আক্তার(৩১) স্বামী,শ্বাশুরী,দেবর ও সতীনের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন সইতে না পেরে বুধবার ভোর সকালে বিষ পানকরে আত্মহত্যা করে। গৃহবধূকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে বুধবার সন্ধ্যায় মুরাদনগর থানায় নিহতের পিতা মুনছর আলী বাদী হয়ে স্বামীসহ পরিবারের চার জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার করিমপুর গ্রামের মৃত আবুল কাসেমের প্রবাসী ছেলে প্রায় ১০ বছর পূবে র্পাশ্ববর্তী তিতাস উপজেলার আলিনগর গ্রামের  মুনছর আলীর মেয়ে শেফালি আক্তারকে বিবাহ করে। কিন্তু বিবাহের পর থেকে শেফালী কোন সন্তান জন্ম দিতে না পারায় স্বামী মামুন দ্বিতীয় বিয়ে করে। এর পর থেকে স্বামীসহ পরিবারের সকলে শেফালীর উপর শুরু করে পাশবিক নির্যাতন। পরে প্রতিনিয়ত নির্যাতন সইতে না পেরে গত বুধবার ভোর সকালে স্বামীর বাড়িতে বিষপান করে আত্মহত্যা করে।

পরে খবর পেয়ে মুরাদনগর থানা পুলিশের এসআই শামসুল আলমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে  লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে শেফালীর বাবা মুনছুর আলি বাদী হয়ে বুধবার রাতে স্বামী মো: মামুন মিয়া, দ্বিতীয় স্ত্রী চৈইতি আক্তার, দেবর সুমন ও শাশুরী সামছুন্নাহার বেগমকে আসামী করে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে একটি দায়ের মামলা করেন।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: ফজলুল কাদের চৌধুরী জানান, প্রাথমিক অবস্থায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সকালে লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। অভিযুক্ত স্বামী দেশের বাহিরে রয়েছে, অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্ঠা চলছে।