ঢাকা ১২:১০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর

মো. হাবিবুর রহমান

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামে নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করে ৫০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে শনিবার বিকেলে মুরাদনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। বিষয়টির ব্যাপারে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা যায়, আসন্ন ইউপি নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা করার জন্য রামচন্দ্রপুর দক্ষিণ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সরকার মির্জাপুর গ্রামের আবুল হাসেম মেম্বারের বিল্ডিংয়ে একটি অফিস করে। উক্ত অফিস করার পর থেকেই আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সরকারকে নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার জন্য স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেম ও তার লোকজনেরা বিভিন্ন ভাবে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। বিষয়টি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেম ও তার লোকজনেরা আরো ক্ষীপ্ত হয়ে ওঠে। উক্ত ঘটনার জের ধরে শনিবার দুপুর অনুমান ১২টায় মির্জাপুর গ্রামের আবুল হাসেম মেম্বারের বিল্ডিংয়ের নির্বাচনী অফিসটি ভাংচুর করে। এতে অফিসে থাকা চেয়ার, টেবিল, পোষ্টার, ব্যানারসহ ৫০ হাজার টাকার মালামাল ক্ষতিসাধন করে। খবর পেয়ে নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা এগিয়ে গেলে তাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দসহ মারধর করার চেষ্টা চালায়। এ সময় নির্বাচন থেকে সরে না দাড়ালে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সরকারকে খুন করে ফেলবে বলে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে চলে যায়। এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সরকার বাদী হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেমসহ ২৮ জন নামধারী ও অজ্ঞাতনামা আরো ৪০/৫০ জনের বিরুদ্ধে মুরাদনগর থানায় একটি অভিযোগ করেন (যার সাধারণ ডায়রী নং ১১১০, তারিখ : ২৮-০৫-২০১৬খ্রি:)।

এ ব্যাপারে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেমের সাথে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোন রিসিভ না করায় কথা বলা সম্ভব হয়নি। মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগরে নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর

আপডেট সময় ০৫:২৭:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ মে ২০১৬

মো. হাবিবুর রহমান

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামে নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করে ৫০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে শনিবার বিকেলে মুরাদনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। বিষয়টির ব্যাপারে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা যায়, আসন্ন ইউপি নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা করার জন্য রামচন্দ্রপুর দক্ষিণ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সরকার মির্জাপুর গ্রামের আবুল হাসেম মেম্বারের বিল্ডিংয়ে একটি অফিস করে। উক্ত অফিস করার পর থেকেই আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সরকারকে নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার জন্য স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেম ও তার লোকজনেরা বিভিন্ন ভাবে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। বিষয়টি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেম ও তার লোকজনেরা আরো ক্ষীপ্ত হয়ে ওঠে। উক্ত ঘটনার জের ধরে শনিবার দুপুর অনুমান ১২টায় মির্জাপুর গ্রামের আবুল হাসেম মেম্বারের বিল্ডিংয়ের নির্বাচনী অফিসটি ভাংচুর করে। এতে অফিসে থাকা চেয়ার, টেবিল, পোষ্টার, ব্যানারসহ ৫০ হাজার টাকার মালামাল ক্ষতিসাধন করে। খবর পেয়ে নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা এগিয়ে গেলে তাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দসহ মারধর করার চেষ্টা চালায়। এ সময় নির্বাচন থেকে সরে না দাড়ালে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সরকারকে খুন করে ফেলবে বলে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে চলে যায়। এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ সরকার বাদী হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেমসহ ২৮ জন নামধারী ও অজ্ঞাতনামা আরো ৪০/৫০ জনের বিরুদ্ধে মুরাদনগর থানায় একটি অভিযোগ করেন (যার সাধারণ ডায়রী নং ১১১০, তারিখ : ২৮-০৫-২০১৬খ্রি:)।

এ ব্যাপারে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কাশেমের সাথে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোন রিসিভ না করায় কথা বলা সম্ভব হয়নি। মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।