ঢাকা ১১:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত, ৩ পুলিশ আহত

আব্দুল খায়ের, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সদস্য ও ৯টি মামলার আসামি আল আমিন (৩৫) নিহত হয়েছে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, ৫টি মুঁখোশ ও কিছু ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে।

রবিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার মুরাদনগর-ইলিয়টগঞ্জ সড়কের শুশুন্ডা নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সোমবার সকালে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম মঞ্জুর আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নিহত ডাকাত আল আমিন উপজেলার ছালিয়াকান্দি গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, নিহত আল আমিন দীর্ঘ দিন ধরে জেলার বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়কসহ মুরাদনগর এবং আশ-পাশের উপজেলায় ডাকাতি করে আসছিল। সে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের এক জন সক্রিয় সদস্য। রোববার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার মুরাদনগর-ইলিয়টগঞ্জ সড়কের শুশুন্ডা এলাকায় ডাকাত আল আমিন তার সহযোগিদের ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল এমন গোপন সংবাদ পেয়ে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) শাখাওয়াত হোসেন এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মুরাদনগর সার্কেল) মো: জাহাঙ্গীর আলমের নেতৃত্বে মুরাদনগর থানা ও জেলা ডিবি পুলিশের একটি দল সেখানে পৌছে। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় পুলিশও আত্মরক্ষায় ৩৫ রাউন্ড শট গানের পাল্টা গুলি চালায়।

এ বিষয়ে মুরাদনগর  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মঞ্জুর আলম জানান, পুলিশের সাথে ডাকাত দলের গুলি বিনিময়ের এক পর্যায়ে ডাকাত আল আমিন এবং পুলিশের এসআই গোফরান এবং কনস্টেবল শামীমমহ ৩ পুলিশ আহত হয়। আহত ডাকাত সদস্য আল আমিনকে উদ্ধার করে কুমেক হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বিরুদ্ধে মুরাদনগরসহ বিভিন্ন থানায় ৯টি ডাকাতি,অস্ত্র ও মাদক মামলা রয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত, ৩ পুলিশ আহত

আপডেট সময় ০১:৫৩:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৮
আব্দুল খায়ের, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সদস্য ও ৯টি মামলার আসামি আল আমিন (৩৫) নিহত হয়েছে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, ৫টি মুঁখোশ ও কিছু ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে।

রবিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার মুরাদনগর-ইলিয়টগঞ্জ সড়কের শুশুন্ডা নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সোমবার সকালে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম মঞ্জুর আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নিহত ডাকাত আল আমিন উপজেলার ছালিয়াকান্দি গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, নিহত আল আমিন দীর্ঘ দিন ধরে জেলার বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়কসহ মুরাদনগর এবং আশ-পাশের উপজেলায় ডাকাতি করে আসছিল। সে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের এক জন সক্রিয় সদস্য। রোববার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার মুরাদনগর-ইলিয়টগঞ্জ সড়কের শুশুন্ডা এলাকায় ডাকাত আল আমিন তার সহযোগিদের ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল এমন গোপন সংবাদ পেয়ে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) শাখাওয়াত হোসেন এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মুরাদনগর সার্কেল) মো: জাহাঙ্গীর আলমের নেতৃত্বে মুরাদনগর থানা ও জেলা ডিবি পুলিশের একটি দল সেখানে পৌছে। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় পুলিশও আত্মরক্ষায় ৩৫ রাউন্ড শট গানের পাল্টা গুলি চালায়।

এ বিষয়ে মুরাদনগর  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মঞ্জুর আলম জানান, পুলিশের সাথে ডাকাত দলের গুলি বিনিময়ের এক পর্যায়ে ডাকাত আল আমিন এবং পুলিশের এসআই গোফরান এবং কনস্টেবল শামীমমহ ৩ পুলিশ আহত হয়। আহত ডাকাত সদস্য আল আমিনকে উদ্ধার করে কুমেক হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বিরুদ্ধে মুরাদনগরসহ বিভিন্ন থানায় ৯টি ডাকাতি,অস্ত্র ও মাদক মামলা রয়েছে।