ঢাকা ০৬:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে বৃদ্ধা বাবা-মাকে মারধর করে বাড়ী থেকে বের; ছেলের কারাদন্ড

মাহবুব আলম আরিফঃ

মাদক সেবন করে বৃদ্ধা বাবা-মাকে মারধর করে বাড়ী থেকে বেরকরে দেয়। প্রতিবাদে ছোট ভাই এগিয়ে আসলে লাঠি দিয়ে মেরে ও ছুরিকাঘাত করে ছোট ভাইকেও আহত করে।

শনিবার এরোকমই এক নেক্কার জনক ঘটনার জন্ম দিলো কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার মোচাগড়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য খন্দকার আবু তাহেরের ছেলে খন্দকার মাসুদ(২৮)।

জানাযায়, গত শনিবার সকাল ১১টার সময় খন্দকার মাসুদ মাদক সেবন করার জন্য তার ছোট ভাইয়ের কাছে ৫শত টাকা চায়। টাকা না দিলে তার ছোট ভাই হাবিবুল্লাহকে ছুরিকাঘাত করে। এনিয়ে একপর্যায় তার বৃদ্ধা বাবা-মার সাথে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। পরে সে উত্তেজিত হয়ে তার বাবা-মাকে মারধর করে বাড়ী থেকে বের করে দেয়। ছোট ভাই বাবা-মাকে মারধর করতে দেখে প্রতিবাদ করে। তখন মাসুদ বাবা-মায়ের মতো আবারো ছোট ভাইকেও লাঠি দিয়ে মারধর করে আহত করে। অনেক চেষ্টা করেও যখন তার বাবা-মা ও ছোট ভাই বাড়ীতে ঢুকতে পারছিলো না। তখন আর কোন উপায় না পেয়ে মুরাদনগর থানা পুলিশের কাছে এসে খন্দকার আবু তাহের লিখিত ভাবে অভিযোগ করেন। অভিযোগ করার সাথে সাথে থানার এস আই মোহাম্মদ ওমর হায়দরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তার নিজ বাড়ী থেকে মাদকাসক্ত খন্দকার মাসুদ কে আটক করে । পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাসভবনে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে মাদকাসক্ত খন্দকার মাসুদকে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ রাসেলুল কাদের। তাকে কুমিল্লার কেন্দ্রিয় কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় ভ্রাম্যমান আদলত।

মুরাদনগর থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান দন্ডপ্রাপ্ত আসামীকে গতকাল রবিবার দুপুরে কুমিল্লার কেন্দ্রিয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো বলেন, অসহায় ওই পরিবারসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের কথা বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

মুরাদনগরে বৃদ্ধা বাবা-মাকে মারধর করে বাড়ী থেকে বের; ছেলের কারাদন্ড

আপডেট সময় ০১:৫৬:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ জুন ২০১৭
মাহবুব আলম আরিফঃ

মাদক সেবন করে বৃদ্ধা বাবা-মাকে মারধর করে বাড়ী থেকে বেরকরে দেয়। প্রতিবাদে ছোট ভাই এগিয়ে আসলে লাঠি দিয়ে মেরে ও ছুরিকাঘাত করে ছোট ভাইকেও আহত করে।

শনিবার এরোকমই এক নেক্কার জনক ঘটনার জন্ম দিলো কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার মোচাগড়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য খন্দকার আবু তাহেরের ছেলে খন্দকার মাসুদ(২৮)।

জানাযায়, গত শনিবার সকাল ১১টার সময় খন্দকার মাসুদ মাদক সেবন করার জন্য তার ছোট ভাইয়ের কাছে ৫শত টাকা চায়। টাকা না দিলে তার ছোট ভাই হাবিবুল্লাহকে ছুরিকাঘাত করে। এনিয়ে একপর্যায় তার বৃদ্ধা বাবা-মার সাথে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। পরে সে উত্তেজিত হয়ে তার বাবা-মাকে মারধর করে বাড়ী থেকে বের করে দেয়। ছোট ভাই বাবা-মাকে মারধর করতে দেখে প্রতিবাদ করে। তখন মাসুদ বাবা-মায়ের মতো আবারো ছোট ভাইকেও লাঠি দিয়ে মারধর করে আহত করে। অনেক চেষ্টা করেও যখন তার বাবা-মা ও ছোট ভাই বাড়ীতে ঢুকতে পারছিলো না। তখন আর কোন উপায় না পেয়ে মুরাদনগর থানা পুলিশের কাছে এসে খন্দকার আবু তাহের লিখিত ভাবে অভিযোগ করেন। অভিযোগ করার সাথে সাথে থানার এস আই মোহাম্মদ ওমর হায়দরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তার নিজ বাড়ী থেকে মাদকাসক্ত খন্দকার মাসুদ কে আটক করে । পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাসভবনে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে মাদকাসক্ত খন্দকার মাসুদকে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ রাসেলুল কাদের। তাকে কুমিল্লার কেন্দ্রিয় কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় ভ্রাম্যমান আদলত।

মুরাদনগর থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান দন্ডপ্রাপ্ত আসামীকে গতকাল রবিবার দুপুরে কুমিল্লার কেন্দ্রিয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো বলেন, অসহায় ওই পরিবারসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের কথা বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।