ঢাকা ১১:৩২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে ব্যবসায়ী শাহ জালাল হত্যার রহস্য উদঘাটন হয়নি

মো: জালাল উদ্দিনঃ

কুমিল্লার মুরাদনগরে ব্যবসায়ী শাহ জালাল হত্যার রহস্য এখনো উদঘাটন হয়নি। আলোচিত এ হত্যাকান্ডের ১ মাস অতিবাহিত হলেও ক্রমেই ঘটনাটি আড়াল হয়ে যাচ্ছে। ব্যবসায়ী শাহ জালাল উপজেলার পৈয়াপাথর গ্রামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে এবং ক্ম্পোানীগঞ্জ বাজারের জালাল মাছের আড়তের স্বত্তাধিকারী।

এ দিকে পরিবারের দাবি তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হলেও পুলিশ রহস্য জনক কারণে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে। দীর্ঘ ১ মাসেও এ ঘটনার রহস্য উদঘাটন না হওয়ায় কোম্পানীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ীদের মাঝেও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা যায়, গত ১০ আগষ্ট উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজারের মৎস ব্যবসায়ী শাহ জালাল প্রতিদিনের ন্যায় সকালের নাস্তা সম্পন্ন করে বাড়ী থেকে বের হয়ে যায়। দুপুরে ওই ব্যবসায়ীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোন থেকে তার লাশ উপজেলার আলীরচর এলাকার একটি মৎস প্রকল্পে পড়ে আছে বলে খবর দেয়া হয়। পরে পরিবারের লোকজন সেখানে ছুটে গিয়ে তার নিথর মৃতদেহ দেখতে পেয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ লাশ ময়নাতদন্ত করে ব্যবসায়ীর বাবা শাহজাহানকে বাদী করে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করে। এ ঘটনার প্রায় ১ মাস অতিবাহিত হলেও এ নিয়ে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না পুলিশ। ব্যবসায়ীর পরিবারের দাবি পরিকল্পিতভাবে তাকে ওই মৎস প্রকল্পে নিয়ে হত্যার পর লাশ ফেলে দেয়া হয়। বাজারের ব্যবসায়ীদের দাবি এ ঘটনার পর পুলিশ তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের কললিস্ট এনে এর ভিত্তিতে অনুসন্ধান করলেই অনেকটা রহস্যের দ্বারপ্রান্তে যেতে পারতো। কিন্তু তা না করে একটি অপমৃত্যুর মামলা নিয়েই দায়সারাবার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। অবিলম্বে ব্যবসায়ীর হত্যার রহস্য উদঘাটনের দাবি পরিবার ও বাজারের ব্যবসায়ীদের।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ওসি এসএম বদিউজ্জামান জানান, লাশ ময়নাতদন্ত করা হয়েছে, ভিসেরা এবং ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন এলেই রহস্য উদঘাটন করা যাবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

মুরাদনগরে ব্যবসায়ী শাহ জালাল হত্যার রহস্য উদঘাটন হয়নি

আপডেট সময় ০৩:২৩:৪০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭
মো: জালাল উদ্দিনঃ

কুমিল্লার মুরাদনগরে ব্যবসায়ী শাহ জালাল হত্যার রহস্য এখনো উদঘাটন হয়নি। আলোচিত এ হত্যাকান্ডের ১ মাস অতিবাহিত হলেও ক্রমেই ঘটনাটি আড়াল হয়ে যাচ্ছে। ব্যবসায়ী শাহ জালাল উপজেলার পৈয়াপাথর গ্রামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে এবং ক্ম্পোানীগঞ্জ বাজারের জালাল মাছের আড়তের স্বত্তাধিকারী।

এ দিকে পরিবারের দাবি তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হলেও পুলিশ রহস্য জনক কারণে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে। দীর্ঘ ১ মাসেও এ ঘটনার রহস্য উদঘাটন না হওয়ায় কোম্পানীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ীদের মাঝেও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা যায়, গত ১০ আগষ্ট উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজারের মৎস ব্যবসায়ী শাহ জালাল প্রতিদিনের ন্যায় সকালের নাস্তা সম্পন্ন করে বাড়ী থেকে বের হয়ে যায়। দুপুরে ওই ব্যবসায়ীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোন থেকে তার লাশ উপজেলার আলীরচর এলাকার একটি মৎস প্রকল্পে পড়ে আছে বলে খবর দেয়া হয়। পরে পরিবারের লোকজন সেখানে ছুটে গিয়ে তার নিথর মৃতদেহ দেখতে পেয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ লাশ ময়নাতদন্ত করে ব্যবসায়ীর বাবা শাহজাহানকে বাদী করে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করে। এ ঘটনার প্রায় ১ মাস অতিবাহিত হলেও এ নিয়ে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না পুলিশ। ব্যবসায়ীর পরিবারের দাবি পরিকল্পিতভাবে তাকে ওই মৎস প্রকল্পে নিয়ে হত্যার পর লাশ ফেলে দেয়া হয়। বাজারের ব্যবসায়ীদের দাবি এ ঘটনার পর পুলিশ তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের কললিস্ট এনে এর ভিত্তিতে অনুসন্ধান করলেই অনেকটা রহস্যের দ্বারপ্রান্তে যেতে পারতো। কিন্তু তা না করে একটি অপমৃত্যুর মামলা নিয়েই দায়সারাবার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। অবিলম্বে ব্যবসায়ীর হত্যার রহস্য উদঘাটনের দাবি পরিবার ও বাজারের ব্যবসায়ীদের।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ওসি এসএম বদিউজ্জামান জানান, লাশ ময়নাতদন্ত করা হয়েছে, ভিসেরা এবং ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন এলেই রহস্য উদঘাটন করা যাবে।