ঢাকা ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় হামলা ও ভাঙ্গচুর

মোঃ মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পশ্চিম ইউনিয়নের বাহরামেরকান্দা গ্রামে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় একদল মাদক সেবনকারী সোমবার রাতে বাড়ি-ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মাদক সেবীদের হামলায় ২ মহিলা আহত হয়।

জানা যায়, উপজেলার বাহরামের কান্দা গ্রামের জাকিরের ছেলে বায়জিদ(২০) ও সুজন(১৮), লতিফের ছেলে মামুন(৩০) ও শামিম(১৯), সহিদের ছেলে সেলিম(২৫) ও কাদের মিয়ার ছেলে তাহের মিয়া(৩৫) অনেক দিন থেকে এলাকায় মাদক সেবন করে মাতলামি করে আসছিল। এর প্রতিবাদে প্রতিবেশী খলিল মিয়া গত সোমবার বিকেলে মাদক সেবীদেরকে  মাদক সেবন থেকে বিরত থাকতে বলেন, অন্যথায় খলিল মিয়ার বাড়ি দিয়ে চলাফেরা করতে নিষেধ করেন। চলাচলে নিষেধ করাতে মাদক সেবীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ঐ দিন রাত সাড় ৮টায় গ্রামের কাদু মিয়ার ছেলে জাকির হেসেনের(৩২) নেতৃত্বে ১০/১২ জনের একদল একদল মাদক সেবনকারী খলিল মিয়ার বাড়িসহ পাশের ৪টি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও নগদ অর্থসহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটপাট করে। এ সময় পারুল বেগম ও পিয়ারা বেগম বাধা প্রদান করায় তাদেরকে পিটিয়ে আহত করে। পরে আহতদের মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

খলিল মিয়া অভিযোগ করে বলেন, এ দলটি অনেক দিন থেকেই মাদক ব্যবসা, চুরি ও ডাকাতি করে আসছে। এদের মধ্যে বেশ কয়েক জনের বিরুদ্ধে মুরাদনগর থানায় ৮/১০ টি মাদক ও চুরির মামলা রয়েছে এবং একাদিক বার পুলিশ তাদেরকে বিভিন্ন অভিযোগে আটক করে।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ট্যাগস

মুরাদনগরে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় হামলা ও ভাঙ্গচুর

আপডেট সময় ০৭:০২:১৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২২ এপ্রিল ২০১৬

মোঃ মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পশ্চিম ইউনিয়নের বাহরামেরকান্দা গ্রামে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় একদল মাদক সেবনকারী সোমবার রাতে বাড়ি-ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মাদক সেবীদের হামলায় ২ মহিলা আহত হয়।

জানা যায়, উপজেলার বাহরামের কান্দা গ্রামের জাকিরের ছেলে বায়জিদ(২০) ও সুজন(১৮), লতিফের ছেলে মামুন(৩০) ও শামিম(১৯), সহিদের ছেলে সেলিম(২৫) ও কাদের মিয়ার ছেলে তাহের মিয়া(৩৫) অনেক দিন থেকে এলাকায় মাদক সেবন করে মাতলামি করে আসছিল। এর প্রতিবাদে প্রতিবেশী খলিল মিয়া গত সোমবার বিকেলে মাদক সেবীদেরকে  মাদক সেবন থেকে বিরত থাকতে বলেন, অন্যথায় খলিল মিয়ার বাড়ি দিয়ে চলাফেরা করতে নিষেধ করেন। চলাচলে নিষেধ করাতে মাদক সেবীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ঐ দিন রাত সাড় ৮টায় গ্রামের কাদু মিয়ার ছেলে জাকির হেসেনের(৩২) নেতৃত্বে ১০/১২ জনের একদল একদল মাদক সেবনকারী খলিল মিয়ার বাড়িসহ পাশের ৪টি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও নগদ অর্থসহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটপাট করে। এ সময় পারুল বেগম ও পিয়ারা বেগম বাধা প্রদান করায় তাদেরকে পিটিয়ে আহত করে। পরে আহতদের মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

খলিল মিয়া অভিযোগ করে বলেন, এ দলটি অনেক দিন থেকেই মাদক ব্যবসা, চুরি ও ডাকাতি করে আসছে। এদের মধ্যে বেশ কয়েক জনের বিরুদ্ধে মুরাদনগর থানায় ৮/১০ টি মাদক ও চুরির মামলা রয়েছে এবং একাদিক বার পুলিশ তাদেরকে বিভিন্ন অভিযোগে আটক করে।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।