ঢাকা ১১:১৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে মায়ের সামনে কিশোরের হাত-পা বেঁধে আ’লীগ নেতার নির্যাতন

মাহবুব আলম আরিফ, বিশেষ প্রতিনিধি:

মায়ের সামনে হাত পা বেঁধে এক যুবককে নির্মমভাবে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে। ওই নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল গ্রামের পূর্বপাড়ায়।

নির্যাতনের শিকার যুবক ওই গ্রামের রাখাল চন্দ্রের ছেলে রাজু চন্দ্র(১৫)। আর অভিযুক্ত আবু তাহের কন্টাক্টর(৬১) উপজেলার দারোরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নির্যাতনের শিকার রাজুর বড় ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস এ ঘটনায় মুরাদনগর থানায় আবু তাহেরকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার বিকালে রাজু চন্দ্র বিশ্বাস মায়ের সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে নিজ ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। এ সময় আবু তাহের কৌতুহলবশত রাজুদের বাড়ি যান। আবু তাহেরকে উত্তেজিত অবস্থায় দেখে শীতের মধ্যে রাজুর জামা কাপড় খুলে হাত-পা বেঁধে বাড়ির আঙ্গিনায় ফেলে রাখেন। এতে রাজু ক্ষীপ্ত হয়ে বাধাঁ অবস্থায় আবু তাহেরকে গালমন্দ করেন। ফলে আবু তাহের আরো উত্তেজিত হয়ে রাজুকে তার মায়ের সামনে নির্যাতন করেন। তখন উপস্থিত কেউ গোপনে নির্যাতনের দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করে। পরে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে ভিডিওটি ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায়, রাজুকে হাত-পা বেঁধে মুখে ও বুকে উপর্যুপরি লাথি মেরে ছুড়ে ফেল দেয় আবু তাহের। রাজু চিৎকার করে কান্না করলেও মেলেনি নিস্তার। শীতের মধ্যে রাজুর জামা কাপড় খুলে মারধর করেন আবু তাহের। এসময় যুবকের মা বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে রাজুর হাত পা বেঁধে মারতে শুরু করেন ওই মাতবর। তাকে মাটিতে ফেলে নির্যাতন করা হয়। চিৎকার করে কান্না করলেও মেলেনি নিস্তার।

রাজুর বড় ভাই সজল চন্দ্র অভিযোগ করে বলেন, ভাইয়ের ওপর এমন অমানবিক নির্যাতনের বিচার চেয়ে এলাকার গণ্যমান্যদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে আমরা ক্লান্ত।

এ বিষয়ে আবু তাহেরের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, রাজু তার পরিবারে অশান্তি সৃষ্টি করছে। সে নিজ ঘরে ভাঙচুর করে। পরে আমি তাদের বাড়ি গেলে আমাকে দেখে বিশ্রী ভাবে গালাগাল করে। তা শুনে রাগান্বিত হয়ে শাসনের জন্য আমি তাকে মারধর করেছি।

মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মনজুর আলম জানান, নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। আসামি পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে পুলিশ।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

মুরাদনগরে মায়ের সামনে কিশোরের হাত-পা বেঁধে আ’লীগ নেতার নির্যাতন

আপডেট সময় ০৭:৫১:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৯

মাহবুব আলম আরিফ, বিশেষ প্রতিনিধি:

মায়ের সামনে হাত পা বেঁধে এক যুবককে নির্মমভাবে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে। ওই নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল গ্রামের পূর্বপাড়ায়।

নির্যাতনের শিকার যুবক ওই গ্রামের রাখাল চন্দ্রের ছেলে রাজু চন্দ্র(১৫)। আর অভিযুক্ত আবু তাহের কন্টাক্টর(৬১) উপজেলার দারোরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নির্যাতনের শিকার রাজুর বড় ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস এ ঘটনায় মুরাদনগর থানায় আবু তাহেরকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার বিকালে রাজু চন্দ্র বিশ্বাস মায়ের সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে নিজ ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। এ সময় আবু তাহের কৌতুহলবশত রাজুদের বাড়ি যান। আবু তাহেরকে উত্তেজিত অবস্থায় দেখে শীতের মধ্যে রাজুর জামা কাপড় খুলে হাত-পা বেঁধে বাড়ির আঙ্গিনায় ফেলে রাখেন। এতে রাজু ক্ষীপ্ত হয়ে বাধাঁ অবস্থায় আবু তাহেরকে গালমন্দ করেন। ফলে আবু তাহের আরো উত্তেজিত হয়ে রাজুকে তার মায়ের সামনে নির্যাতন করেন। তখন উপস্থিত কেউ গোপনে নির্যাতনের দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করে। পরে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে ভিডিওটি ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায়, রাজুকে হাত-পা বেঁধে মুখে ও বুকে উপর্যুপরি লাথি মেরে ছুড়ে ফেল দেয় আবু তাহের। রাজু চিৎকার করে কান্না করলেও মেলেনি নিস্তার। শীতের মধ্যে রাজুর জামা কাপড় খুলে মারধর করেন আবু তাহের। এসময় যুবকের মা বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে রাজুর হাত পা বেঁধে মারতে শুরু করেন ওই মাতবর। তাকে মাটিতে ফেলে নির্যাতন করা হয়। চিৎকার করে কান্না করলেও মেলেনি নিস্তার।

রাজুর বড় ভাই সজল চন্দ্র অভিযোগ করে বলেন, ভাইয়ের ওপর এমন অমানবিক নির্যাতনের বিচার চেয়ে এলাকার গণ্যমান্যদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে আমরা ক্লান্ত।

এ বিষয়ে আবু তাহেরের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, রাজু তার পরিবারে অশান্তি সৃষ্টি করছে। সে নিজ ঘরে ভাঙচুর করে। পরে আমি তাদের বাড়ি গেলে আমাকে দেখে বিশ্রী ভাবে গালাগাল করে। তা শুনে রাগান্বিত হয়ে শাসনের জন্য আমি তাকে মারধর করেছি।

মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মনজুর আলম জানান, নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। আসামি পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে পুলিশ।