ঢাকা ০৮:০৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা:আহত ৩:আটক ২

মো: আজিজুর রহমান রনি, বিশেষ প্রতিনিধি:

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় পুর্ব শত্রুতার জেরে জসিম উদ্দিন (৩০) নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই যুবকের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় জসিম উদ্দিনের দুই ভাই ও স্ত্রীসহ তিন জন আহত হয়। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মুরাদনগর থানা পুলিশ দুই জনকে আটক করে শনিবার সকালে কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরন করে।

নিহত যুবক জসিম উদ্দিন উপজেলার বাখরনগর গ্রামের আব্দুল আজিজ মোহনের ছেলে।

আটককৃতরা হলেন, বাখরনগর গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে বিল্লাল হোসেন (৩০) ও হালিম মিয়ার ছেলে মমিন মিয়া (২৪)।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাখরনগর গ্রামের আব্দুল আজিজ মোহনের ছেলে জসিম উদ্দিন গত ৮ ডিসেম্বর বুধবার রাতে কর্মস্থল থেকে বাড়ী ফিরছিলেন। এ সময় পুর্ব শত্রুতার জের ধরে বাড়ির পাশের রাস্তায় উৎপেতে থাকা একই গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে বিল্লাল হোসেন, আনিছ, লোকমানসহ একদল সন্ত্রাসী তাকে ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। তার চিৎকারে দু’ভাই ও ভাবি এগিয়ে আসলে তাদেরকেও কুপিয়ে জখম করে। তাদের আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাদেরকে উদ্ধার করে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। গুরতর আহত জসিমকে চিকিৎসকরা কুমেক হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ওই রাতেই মূহর্ষ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ  হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ঘটনায় জসিমের বাবা  আব্দুল আজিজ বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিল্লাল, আনিছ, লোকমানসহ ৬ জনের নাম উল্লোখস  আজ্ঞাত ৩ জনের নামে মুরাদনগর থানায় একটি মামলা করেন। এ ঘটনার অভিযোগে মুরাদনগর থানার এসআই জালাল উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিল্লাল ও মমিন মিয়াকে আটককরে শনিবার সকালে কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরন করে। এ ঘটনা আহত জসিম উদ্দিন শনিবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো: জালাল উদ্দিন জানান, ঘটনার সাথে জড়িত বিল্লাল হোসেন ও মোহনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।  অন্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

মুরাদনগরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা:আহত ৩:আটক ২

আপডেট সময় ০৪:৩৭:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৬
মো: আজিজুর রহমান রনি, বিশেষ প্রতিনিধি:

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় পুর্ব শত্রুতার জেরে জসিম উদ্দিন (৩০) নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই যুবকের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় জসিম উদ্দিনের দুই ভাই ও স্ত্রীসহ তিন জন আহত হয়। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মুরাদনগর থানা পুলিশ দুই জনকে আটক করে শনিবার সকালে কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরন করে।

নিহত যুবক জসিম উদ্দিন উপজেলার বাখরনগর গ্রামের আব্দুল আজিজ মোহনের ছেলে।

আটককৃতরা হলেন, বাখরনগর গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে বিল্লাল হোসেন (৩০) ও হালিম মিয়ার ছেলে মমিন মিয়া (২৪)।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাখরনগর গ্রামের আব্দুল আজিজ মোহনের ছেলে জসিম উদ্দিন গত ৮ ডিসেম্বর বুধবার রাতে কর্মস্থল থেকে বাড়ী ফিরছিলেন। এ সময় পুর্ব শত্রুতার জের ধরে বাড়ির পাশের রাস্তায় উৎপেতে থাকা একই গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে বিল্লাল হোসেন, আনিছ, লোকমানসহ একদল সন্ত্রাসী তাকে ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। তার চিৎকারে দু’ভাই ও ভাবি এগিয়ে আসলে তাদেরকেও কুপিয়ে জখম করে। তাদের আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাদেরকে উদ্ধার করে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। গুরতর আহত জসিমকে চিকিৎসকরা কুমেক হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ওই রাতেই মূহর্ষ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ  হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ঘটনায় জসিমের বাবা  আব্দুল আজিজ বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিল্লাল, আনিছ, লোকমানসহ ৬ জনের নাম উল্লোখস  আজ্ঞাত ৩ জনের নামে মুরাদনগর থানায় একটি মামলা করেন। এ ঘটনার অভিযোগে মুরাদনগর থানার এসআই জালাল উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিল্লাল ও মমিন মিয়াকে আটককরে শনিবার সকালে কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরন করে। এ ঘটনা আহত জসিম উদ্দিন শনিবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো: জালাল উদ্দিন জানান, ঘটনার সাথে জড়িত বিল্লাল হোসেন ও মোহনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।  অন্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।