ঢাকা ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে লোডশেডিংয়ে জনজীবন অতিষ্ঠ :২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৪ ঘন্টাও বিদ্যুৎ থাকে না

মো: মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

২৪ মে ২০১৫ ইং (মুরাদনর বার্তা ডটকম):
মুরাদনগরে সম্প্রতি বিদ্যুতের ভয়াবহ লোডশেডিংয়ের কারণে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করে সাম্প্রতিক বিদ্যুৎ বিপর্যয় অসহনীয় হয়ে উঠার কারণে এলাকাবাসীর মধ্যে এই বিপর্যয় নেমে এসেছে।

জানা যায়, অতিষ্ঠ এলাকাবাসির অভিযোগ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সব মিলিয়ে ৪ ঘন্টাও বিদ্যুৎ থাকে না। কোন সময় একবার বিদ্যুৎ চলে গেলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিদ্যুৎ আর আসে না। একবার বিদ্যুৎ আসলে ১০/১৫ মিনিটের বেশি স্থায়ী হয় না। অনেক সময় এই আসে এই যায় অবস্থার কারণে অনেকের টিভি, গভীর নলকূপ, ফ্রিজ, পাখা, আয়রন, বাল্বসহ নানা ইলেকট্রনিকস সামগ্রী নষ্ট হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় এলাকার মানুষজন বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে। এর ফলে যে কোন সময় বড় ধরনের অনভিপ্রেত ঘটনার জন্ম দিতে পারে বলে বিক্ষুব্ধ গ্রাহকগন মনে করছেন। ছাত্র ছাত্রীদের লেখাপড়ার সময় নিরবচ্ছিন্নভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ অব্যাহত রাখার জন্য সরকারি নির্দেশনার অনুরোধকেও অমান্য করে বিদ্যুৎ বিভাগের উদাসীনতায় এলাকাবাসি হতভম্ব হয়ে পড়েছে।

কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মহিউদ্দিন মোশাহেদুল্লাহ জানান, আমাদের পর্যাপ্ত পরিমান বিদ্যুৎ থাকা সত্ত্বেও সাবস্টেশন গুলো চালু করতে না পারায় অতিরিক্তি লোড নিতে পারার কারণেই মূলত লোডশেডিং হচ্ছে। দৌলতপুরের সাবষ্টেশন চালু হলে এ সমস্যা আর থাকবে না।

ট্যাগস

মুরাদনগরে লোডশেডিংয়ে জনজীবন অতিষ্ঠ :২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৪ ঘন্টাও বিদ্যুৎ থাকে না

আপডেট সময় ১২:৫০:০৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৫ মে ২০১৫

মো: মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

২৪ মে ২০১৫ ইং (মুরাদনর বার্তা ডটকম):
মুরাদনগরে সম্প্রতি বিদ্যুতের ভয়াবহ লোডশেডিংয়ের কারণে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করে সাম্প্রতিক বিদ্যুৎ বিপর্যয় অসহনীয় হয়ে উঠার কারণে এলাকাবাসীর মধ্যে এই বিপর্যয় নেমে এসেছে।

জানা যায়, অতিষ্ঠ এলাকাবাসির অভিযোগ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সব মিলিয়ে ৪ ঘন্টাও বিদ্যুৎ থাকে না। কোন সময় একবার বিদ্যুৎ চলে গেলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিদ্যুৎ আর আসে না। একবার বিদ্যুৎ আসলে ১০/১৫ মিনিটের বেশি স্থায়ী হয় না। অনেক সময় এই আসে এই যায় অবস্থার কারণে অনেকের টিভি, গভীর নলকূপ, ফ্রিজ, পাখা, আয়রন, বাল্বসহ নানা ইলেকট্রনিকস সামগ্রী নষ্ট হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় এলাকার মানুষজন বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে। এর ফলে যে কোন সময় বড় ধরনের অনভিপ্রেত ঘটনার জন্ম দিতে পারে বলে বিক্ষুব্ধ গ্রাহকগন মনে করছেন। ছাত্র ছাত্রীদের লেখাপড়ার সময় নিরবচ্ছিন্নভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ অব্যাহত রাখার জন্য সরকারি নির্দেশনার অনুরোধকেও অমান্য করে বিদ্যুৎ বিভাগের উদাসীনতায় এলাকাবাসি হতভম্ব হয়ে পড়েছে।

কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মহিউদ্দিন মোশাহেদুল্লাহ জানান, আমাদের পর্যাপ্ত পরিমান বিদ্যুৎ থাকা সত্ত্বেও সাবস্টেশন গুলো চালু করতে না পারায় অতিরিক্তি লোড নিতে পারার কারণেই মূলত লোডশেডিং হচ্ছে। দৌলতপুরের সাবষ্টেশন চালু হলে এ সমস্যা আর থাকবে না।