ঢাকা ১২:২৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে ভন্ড পীরের হাতে সাপে কাটা ব্যবসায়ীর মৃত্যু


1404059808e0a6b8e0a6bee0a6aae0a787e0a6b0-e0a695e0a6bee0a6aee0a6a1e0a6bc

মো: আলাউদ্দিন মুন্সী (আলাল), ১০ নং যাত্রাপুর ইউনিয়ন প্রতিনিধিঃ

১২ ই মার্চ ২০১৫ (মুরাদনগর বার্তা ডট কম):

মুরাদনগর উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামে গত বুধবার সন্ধ্যায় ভন্ড পীরের হাতে বিষাক্ত সাপে দংশিত হোসেন মিয়া (৪০) নামের এক মাছ ব্যবসায়ীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। নিহত হোসেন মিয়া যাত্রাপুর পশ্চিম পাড়া গ্রামের মৃত সুন্দর আলীর ছেলে।এ ঘটনায় এলাবাসীর মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার বিকালে যাত্রাপুর গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী হোসেন মিয়া বাড়ীর পার্শ্ববর্তী বিলে ইরি ধানের জমিতে পানি সেচের  ড্রেন পরিষ্কার করাকালীন সময়ে সেখানে তার হাতে বিষধর সাপে কামড় দেয়।

পরে স্থানীয় লোকজন  তার হাতে কয়েকটি বাধন দিয়ে তাকে উদ্ধার করে বাড়ীতে নিয়ে গেলে হোসেনের স্ত্রী বকুল বেগম পার্শবর্তী চৈনপুর গ্রামের ভন্ডপীর শামছুল হক শাম মিয়াকে আহত হোসেনের চিকিৎসার জন্য ডেকে আনে।

পীর শামসুল হক এসে কিছু জার-ফুক দিয়ে হাতের বাধন খুলে দিয়ে তাকে দুধ মাখা ভাত খাইয়ে পুনরায় আবার জার-ফুক করে চলে যায়। ভন্ডপীর চলে যাওয়ার কিছুক্ষন পরেই হোসেন মিয়ার অবস্থার অবনতি হতে থাকে।

অবস্থা বেগতিক দেখে স্থানীয়রা তাকে দ্রুত মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে আসে।

এ ঘটনায় মৃত হোসেন মিয়ার স্ত্রী বকুল বাদী হয়ে মুরাদনগর থানায় ভন্ডপীর ছামছুল হক সাম মিয়ার বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে পীর ছামছুল হক পলাতক রয়েছে। ক্ষোভে ফূসে উঠেছে এলাকার সর্বস্তরের জনসাধারন। ভন্ডপীরের আস্তানায়ও হামলার আশংকা করা হচ্ছে।
এব্যাপারে মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি)  মিজানুর রহমান জানান, নিহতের স্ত্রী বকুল একটি অভিযোগ দায়ের করেছে । আইন অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগরে ভন্ড পীরের হাতে সাপে কাটা ব্যবসায়ীর মৃত্যু

আপডেট সময় ০৫:০৮:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ মার্চ ২০১৫

1404059808e0a6b8e0a6bee0a6aae0a787e0a6b0-e0a695e0a6bee0a6aee0a6a1e0a6bc

মো: আলাউদ্দিন মুন্সী (আলাল), ১০ নং যাত্রাপুর ইউনিয়ন প্রতিনিধিঃ

১২ ই মার্চ ২০১৫ (মুরাদনগর বার্তা ডট কম):

মুরাদনগর উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামে গত বুধবার সন্ধ্যায় ভন্ড পীরের হাতে বিষাক্ত সাপে দংশিত হোসেন মিয়া (৪০) নামের এক মাছ ব্যবসায়ীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। নিহত হোসেন মিয়া যাত্রাপুর পশ্চিম পাড়া গ্রামের মৃত সুন্দর আলীর ছেলে।এ ঘটনায় এলাবাসীর মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার বিকালে যাত্রাপুর গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী হোসেন মিয়া বাড়ীর পার্শ্ববর্তী বিলে ইরি ধানের জমিতে পানি সেচের  ড্রেন পরিষ্কার করাকালীন সময়ে সেখানে তার হাতে বিষধর সাপে কামড় দেয়।

পরে স্থানীয় লোকজন  তার হাতে কয়েকটি বাধন দিয়ে তাকে উদ্ধার করে বাড়ীতে নিয়ে গেলে হোসেনের স্ত্রী বকুল বেগম পার্শবর্তী চৈনপুর গ্রামের ভন্ডপীর শামছুল হক শাম মিয়াকে আহত হোসেনের চিকিৎসার জন্য ডেকে আনে।

পীর শামসুল হক এসে কিছু জার-ফুক দিয়ে হাতের বাধন খুলে দিয়ে তাকে দুধ মাখা ভাত খাইয়ে পুনরায় আবার জার-ফুক করে চলে যায়। ভন্ডপীর চলে যাওয়ার কিছুক্ষন পরেই হোসেন মিয়ার অবস্থার অবনতি হতে থাকে।

অবস্থা বেগতিক দেখে স্থানীয়রা তাকে দ্রুত মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে আসে।

এ ঘটনায় মৃত হোসেন মিয়ার স্ত্রী বকুল বাদী হয়ে মুরাদনগর থানায় ভন্ডপীর ছামছুল হক সাম মিয়ার বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে পীর ছামছুল হক পলাতক রয়েছে। ক্ষোভে ফূসে উঠেছে এলাকার সর্বস্তরের জনসাধারন। ভন্ডপীরের আস্তানায়ও হামলার আশংকা করা হচ্ছে।
এব্যাপারে মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি)  মিজানুর রহমান জানান, নিহতের স্ত্রী বকুল একটি অভিযোগ দায়ের করেছে । আইন অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।