ঢাকা ০৯:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে স্কুল ভবন ঝুকিপূর্ণ হওয়ায় খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান

unnamedমো: ইমন মিয়া, পূর্ব দৈইর পূর্ব ইউনিয়ন প্রতিনিধিঃ

রোজ বুধবার, ২৬ আগ্স্ট ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্ ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার খোষঘর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্কুল ভবন দীর্ঘদিন ধরে ঝুকিপূর্ণ ও পরিত্যাক্ত হয়ে পড়ায় খোলা আকাশের নিচে চলছে কোমলমতি শিশুদের পাঠদান। আর এতে করে চরম ভাবে ব্যহত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। স্কুলের পড়া লেখার সাফল্যে সুনাাম অর্জন করায় প্রতিনিয়ত শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বৃদ্ধিহলেও বৃদ্ধি হচ্ছেনা স্কুলের কাঠামোগত উন্নয়ন এমন দাবী স্কুলের শিক্ষক, অভিবাবক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর।

জানা যায়, ১৯৪১সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হলে, প্রর্যায়ক্রমে স্কুলে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধিহলে সরকার ১৯৯৫-৯১৯৬ সালে অর্থবছরে এলজিআরডি’র ফ্যসিলিটি বিভাগের মাধ্যমে একটি ভবনটি নির্মান করা হয়। ভবন নিমানের কয়েক বছর পর ফাটল ধরেছে ছাদ ও দেয়ালের একাদিক স্থানে। ভবনটির ছাদের প্লাস্টার ও পিলারে ঢালাই খসে খসে খোলে পরছে। প্রায় দরজা-জানালা ভেঙ্গে খুলে পরে যাচ্ছে। এর পরও ঝুঁকি নিয়ে ও বাই‌রে পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে স্কুল কতৃপর্ক্ষ। এতে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে চড়ম আতঙ্ক বিরাজ করছে। অতি সম্প্রতি কয়েকবার ভুমিকম্পের কারণে এ অতঙ্ক আরো বেড়ে গেছে। তাই রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে চরম দূর্ভোগের শিকার হয়ে চলছে ৬০০ শতাদিক শিক্ষার্থীর খোলা আকাশের নিচে পাঠদান।

বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ আবু জাহের ভূইয়া জানান, বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা বেশী হওয়ায় বিকল্প কোনো ব্যাবস্থা না থাকায় ঝুঁকির মধ্যেই পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হচ্ছে। দিনদিন যে ভাবে ছাদসহ বিভিন্ন অংশ ধসে পরছে, তাতে যে কোন সময় বড় ধরনের দুঘটনার আশংঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। এনিয়ে অভিভাবকদেরও ভয়ের শেষ নেই।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিনতী রানী শর্ম্মা বলেন, বিদ্যালয়ের বর্তমান পরিস্থিতিতে বিদ্যালয়টি পরিত্যক্ত ঘোষনার জন্য এবং নতুন ভবন নির্মাণের জন্য  একাধিকবার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। এরপরও কোন প্রকার সহযোগিতা না পেয়ে ঝুঁকিপূর্ন অবস্থায় ও খোলা আকাশের নিচে পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর উপজেলা শিক্ষা অফিসার এ,এন,এম মাহবুব আলম জানান, নতুন ভবনের ব্যাপারে জেলা শিক্ষা অভিষকে বেশ কয়েকবার আমরা লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে। তিনি আরো জানান এ অভিযোহগ গুলো স্হানীয় এমপির মাধ্যমে ডিও লেটারও প্রেরন করা হয়েছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগরে স্কুল ভবন ঝুকিপূর্ণ হওয়ায় খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান

আপডেট সময় ১০:৫৫:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৫
unnamedমো: ইমন মিয়া, পূর্ব দৈইর পূর্ব ইউনিয়ন প্রতিনিধিঃ

রোজ বুধবার, ২৬ আগ্স্ট ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্ ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার খোষঘর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্কুল ভবন দীর্ঘদিন ধরে ঝুকিপূর্ণ ও পরিত্যাক্ত হয়ে পড়ায় খোলা আকাশের নিচে চলছে কোমলমতি শিশুদের পাঠদান। আর এতে করে চরম ভাবে ব্যহত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। স্কুলের পড়া লেখার সাফল্যে সুনাাম অর্জন করায় প্রতিনিয়ত শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বৃদ্ধিহলেও বৃদ্ধি হচ্ছেনা স্কুলের কাঠামোগত উন্নয়ন এমন দাবী স্কুলের শিক্ষক, অভিবাবক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর।

জানা যায়, ১৯৪১সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হলে, প্রর্যায়ক্রমে স্কুলে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধিহলে সরকার ১৯৯৫-৯১৯৬ সালে অর্থবছরে এলজিআরডি’র ফ্যসিলিটি বিভাগের মাধ্যমে একটি ভবনটি নির্মান করা হয়। ভবন নিমানের কয়েক বছর পর ফাটল ধরেছে ছাদ ও দেয়ালের একাদিক স্থানে। ভবনটির ছাদের প্লাস্টার ও পিলারে ঢালাই খসে খসে খোলে পরছে। প্রায় দরজা-জানালা ভেঙ্গে খুলে পরে যাচ্ছে। এর পরও ঝুঁকি নিয়ে ও বাই‌রে পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে স্কুল কতৃপর্ক্ষ। এতে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে চড়ম আতঙ্ক বিরাজ করছে। অতি সম্প্রতি কয়েকবার ভুমিকম্পের কারণে এ অতঙ্ক আরো বেড়ে গেছে। তাই রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে চরম দূর্ভোগের শিকার হয়ে চলছে ৬০০ শতাদিক শিক্ষার্থীর খোলা আকাশের নিচে পাঠদান।

বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ আবু জাহের ভূইয়া জানান, বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা বেশী হওয়ায় বিকল্প কোনো ব্যাবস্থা না থাকায় ঝুঁকির মধ্যেই পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হচ্ছে। দিনদিন যে ভাবে ছাদসহ বিভিন্ন অংশ ধসে পরছে, তাতে যে কোন সময় বড় ধরনের দুঘটনার আশংঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। এনিয়ে অভিভাবকদেরও ভয়ের শেষ নেই।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিনতী রানী শর্ম্মা বলেন, বিদ্যালয়ের বর্তমান পরিস্থিতিতে বিদ্যালয়টি পরিত্যক্ত ঘোষনার জন্য এবং নতুন ভবন নির্মাণের জন্য  একাধিকবার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। এরপরও কোন প্রকার সহযোগিতা না পেয়ে ঝুঁকিপূর্ন অবস্থায় ও খোলা আকাশের নিচে পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর উপজেলা শিক্ষা অফিসার এ,এন,এম মাহবুব আলম জানান, নতুন ভবনের ব্যাপারে জেলা শিক্ষা অভিষকে বেশ কয়েকবার আমরা লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে। তিনি আরো জানান এ অভিযোহগ গুলো স্হানীয় এমপির মাধ্যমে ডিও লেটারও প্রেরন করা হয়েছে।