ঢাকা ০৬:১৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে স্ত্রীর ভাড়া করা সন্ত্রাসী হামলায় স্বামীর মৃত্যু

fileমো: বিল্লাল হোসেনঃ

রোজ সোমবার, ২৭ জুলাই ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর উত্তর ইউনিয়নের সাহেবনগর গ্রামে সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টায় স্ত্রীর ভাড়া করা সন্ত্রাসীর হামলায় স্বামী বাবুল মিয়া’র (৩৫) মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয় ৩ জন।

নিহত মো: বাবুল মিয়া(৩৫) শাহেনগর গ্রামের তারু মিয়ার ছেলে।

আহতরা হলেন, বাবুলের বড় ভাই মোতালেব হোসেন(৪২), ছোট ভাই আবুল হোসেন(২৫) ও স্ত্রী।

জানা যায়, উপজেলার রামচন্দ্রপুর বাজরের পাশে শাহেনগর গ্রামের জায়েদ আলী মার্কেটে ব্যাবসায়ী বাবুল মিয়ার সাথে বেশ কিছু দিন থেকে তার স্ত্রী  নাজমা বেগমের মধ্যে বেশ কিছুদিন যাবত পারিবারিক কলহ ও নানা প্রকার বিবাদ চলে আসছিল। এরই সুত্র ধরে বাবুলের সাথে ঝগড়া করে নাজমা বেগম পাশ্ববর্তী গ্রাম কৈজুরী বাবার বাড়িতে চলে যায়। সেখানে গিয়ে কয়েকদিন যাবত তার স্বজনদের সাথে শলাপরামর্শ করে গতকাল সন্ধ্যায় নিজ গ্রাম কৈজুরী থেকে নাজমা বেগমের নেতিৃত্বে ১০-১২জন সন্ত্রাসী নিয়ে সাহেব নগর স্বামীর বাড়িতে এসে স্বামী বাবুল মিয়াকে লাঠি সোটা দিয়ে পিটিয়ে গুরতর জখম করলে ঘটনার স্থলেই বাবুল মিয়ার মৃত্যু হয়। এতে বাবুলের ভাই ও ভাবিসহ  ৩ জন আহত হয়। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ঘটনার খবর পেয়ে মুরাদনগর থানার এসআই মাহবুবুর রহমান এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনার স্থল পরিদর্শ শেষে বাবুলের লাশ থানায়  নিয়ে আসে। নাজমা বেগম উপজেলার কৈজুরী গ্রামের মৃত মোকবল হোসেনের কন্যা। এই দম্পত্তির দুই ছেলে দুই মেয়ে রয়েছে।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে (কুমেকে) প্রেরন করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।   এ বিষয়ে নিহত বাবুলের ছোট ভাই আবুল হোসেন বাদি হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করে।

ট্যাগস

মুরাদনগরে স্ত্রীর ভাড়া করা সন্ত্রাসী হামলায় স্বামীর মৃত্যু

আপডেট সময় ০৫:০৬:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ জুলাই ২০১৫

fileমো: বিল্লাল হোসেনঃ

রোজ সোমবার, ২৭ জুলাই ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর উত্তর ইউনিয়নের সাহেবনগর গ্রামে সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টায় স্ত্রীর ভাড়া করা সন্ত্রাসীর হামলায় স্বামী বাবুল মিয়া’র (৩৫) মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয় ৩ জন।

নিহত মো: বাবুল মিয়া(৩৫) শাহেনগর গ্রামের তারু মিয়ার ছেলে।

আহতরা হলেন, বাবুলের বড় ভাই মোতালেব হোসেন(৪২), ছোট ভাই আবুল হোসেন(২৫) ও স্ত্রী।

জানা যায়, উপজেলার রামচন্দ্রপুর বাজরের পাশে শাহেনগর গ্রামের জায়েদ আলী মার্কেটে ব্যাবসায়ী বাবুল মিয়ার সাথে বেশ কিছু দিন থেকে তার স্ত্রী  নাজমা বেগমের মধ্যে বেশ কিছুদিন যাবত পারিবারিক কলহ ও নানা প্রকার বিবাদ চলে আসছিল। এরই সুত্র ধরে বাবুলের সাথে ঝগড়া করে নাজমা বেগম পাশ্ববর্তী গ্রাম কৈজুরী বাবার বাড়িতে চলে যায়। সেখানে গিয়ে কয়েকদিন যাবত তার স্বজনদের সাথে শলাপরামর্শ করে গতকাল সন্ধ্যায় নিজ গ্রাম কৈজুরী থেকে নাজমা বেগমের নেতিৃত্বে ১০-১২জন সন্ত্রাসী নিয়ে সাহেব নগর স্বামীর বাড়িতে এসে স্বামী বাবুল মিয়াকে লাঠি সোটা দিয়ে পিটিয়ে গুরতর জখম করলে ঘটনার স্থলেই বাবুল মিয়ার মৃত্যু হয়। এতে বাবুলের ভাই ও ভাবিসহ  ৩ জন আহত হয়। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ঘটনার খবর পেয়ে মুরাদনগর থানার এসআই মাহবুবুর রহমান এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনার স্থল পরিদর্শ শেষে বাবুলের লাশ থানায়  নিয়ে আসে। নাজমা বেগম উপজেলার কৈজুরী গ্রামের মৃত মোকবল হোসেনের কন্যা। এই দম্পত্তির দুই ছেলে দুই মেয়ে রয়েছে।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে (কুমেকে) প্রেরন করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।   এ বিষয়ে নিহত বাবুলের ছোট ভাই আবুল হোসেন বাদি হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করে।