ঢাকা ০৯:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে ২৫শে মার্চ জাতীয় ‘গণহত্যা দিবস’ পালিত

মো: মোশাররফ হোসেন মনির:

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় ঐতিহাসিক ২৫শে মার্চ জাতীয় ‘গণহত্যা দিবস’ পালিত হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টায় উপজেলা কবি নজরুল মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ আলাউদ্দিন ভূঞা জনীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ড. আহসানুল আলম কিশোর।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা বরুন চন্দ্র দে’র সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমুল হুদা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ তমাল, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হারুনুর রশিদ, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ এনামুল হক।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সানোয়াারা বেগম লুনা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা পাভেল খান পাপ্পু, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ মাঝি, ভিপি জাকির হোসেন, তৈয়ূবুর রহমান তুহিন, রহিম পারভেজ, সহকারী পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা সায়মা সাবরিনসহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন কর্মকর্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিবৃন্দরা।

অনুষ্ঠানের বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালের ২৫ শে মার্চ একটি বীভৎস রাত। এ রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী এদেশের নিরস্ত্র মানুষের উপর গুলি চালায়, নির্বিচারে গণহত্যা চালায়। তাদের এ গণহত্যা চালানোর উদ্দেশ্য ছিল যাতে এদেশের মানুষ ভয় পায় এবং তারা কোন প্রতিবাদ করার সাহস না পায়। তাদের রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে বঙ্গন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণা দেন এবং সে ডাকে সাড়া দিয়ে এদেশের সর্বস্তরের মানুষ স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে এবং ৩০ লক্ষ শহীদের প্রাণের বিনিময়ে এ দেশ স্বাধীন করে। একমাত্র বঙ্গবন্ধু ছিল বলেই আমরা স্বাধীনতা লাভ করতে পেরেছিলাম।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে ২৫শে মার্চ জাতীয় ‘গণহত্যা দিবস’ পালিত

আপডেট সময় ১০:৩৩:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মার্চ ২০২৩

মো: মোশাররফ হোসেন মনির:

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় ঐতিহাসিক ২৫শে মার্চ জাতীয় ‘গণহত্যা দিবস’ পালিত হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টায় উপজেলা কবি নজরুল মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ আলাউদ্দিন ভূঞা জনীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ড. আহসানুল আলম কিশোর।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা বরুন চন্দ্র দে’র সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমুল হুদা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ তমাল, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হারুনুর রশিদ, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ এনামুল হক।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সানোয়াারা বেগম লুনা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা পাভেল খান পাপ্পু, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ মাঝি, ভিপি জাকির হোসেন, তৈয়ূবুর রহমান তুহিন, রহিম পারভেজ, সহকারী পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা সায়মা সাবরিনসহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন কর্মকর্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিবৃন্দরা।

অনুষ্ঠানের বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালের ২৫ শে মার্চ একটি বীভৎস রাত। এ রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী এদেশের নিরস্ত্র মানুষের উপর গুলি চালায়, নির্বিচারে গণহত্যা চালায়। তাদের এ গণহত্যা চালানোর উদ্দেশ্য ছিল যাতে এদেশের মানুষ ভয় পায় এবং তারা কোন প্রতিবাদ করার সাহস না পায়। তাদের রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে বঙ্গন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণা দেন এবং সে ডাকে সাড়া দিয়ে এদেশের সর্বস্তরের মানুষ স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে এবং ৩০ লক্ষ শহীদের প্রাণের বিনিময়ে এ দেশ স্বাধীন করে। একমাত্র বঙ্গবন্ধু ছিল বলেই আমরা স্বাধীনতা লাভ করতে পেরেছিলাম।