ঢাকা ১১:৪৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে ৫দফা দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন

মো: আরিফুল ইসলাম, স্টাফ রির্টার, মুরাদনগরঃ

লাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী পাঁচ দফা দাবি আদায়ে মানববন্ধন করেছে মুরাদনগর উপজেলা শাখা।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে মুরাদনগর  উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির মুরাদনগর উপজেলা শাখার সভাপতি মো: আবু কাউছার ভূইয়ার সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো: জামাল হোসেনের সঞ্চলনায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: গাজীউল হক চৌধুরী। এ সময় তিনি পাঁচ দফা দাবি উপস্থাপন করেন।

শিক্ষকদের উপস্থাপিত দাবিগুলো হলো, প্রধান শিক্ষকদের দশম গ্রেডসহ স্পেন্ডিং স্কেলে বেতন নির্ধারণ এবং সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন প্রদান, দ্রুত পদোন্নতির ব্যবস্থা গ্রহণসহ সহকারী শিক্ষক পদকে এন্ট্রি পদ ধরে পরিচালক পদ পর্যন্ত শতভাগ পদোন্নতি প্রদান, স্টেনোগ্রাফারদের পদোন্নতি বাতিল করে প্রধান শিক্ষকদের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার, সহকারী মনিটরিং অফিসার, সহকারী ইনস্ট্রাক্টর পদে পদোন্নতির ব্যবস্থা করা, সমাপনী পরীক্ষা ছাড়া বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ সব পরীক্ষা আগের মতো বিদ্যালয়ভিত্তিক প্রশ্নপত্র তৈরিসহ পরীক্ষা পদ্ধতি চালু ও প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকরি নন ভোকেশনাল হিসেবে গণ্য করতে হবে।

মানববন্ধনে উল্লেখিত দাবী গুলো বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে উত্থাপনের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ¦ ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন (এফসিএ)’র নিকট আবেদন প্রেরণ করেছেন শিক্ষক নেতারা।

মাণববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি মুরাদনগর উপজেলা শাখার সিণিয়র সহ-সভাপতি মনিরুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক জাকির হোসেনসহ সকল নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে ৫দফা দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন

আপডেট সময় ০৩:৫৬:১১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০১৭
মো: আরিফুল ইসলাম, স্টাফ রির্টার, মুরাদনগরঃ

লাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী পাঁচ দফা দাবি আদায়ে মানববন্ধন করেছে মুরাদনগর উপজেলা শাখা।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে মুরাদনগর  উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির মুরাদনগর উপজেলা শাখার সভাপতি মো: আবু কাউছার ভূইয়ার সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো: জামাল হোসেনের সঞ্চলনায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: গাজীউল হক চৌধুরী। এ সময় তিনি পাঁচ দফা দাবি উপস্থাপন করেন।

শিক্ষকদের উপস্থাপিত দাবিগুলো হলো, প্রধান শিক্ষকদের দশম গ্রেডসহ স্পেন্ডিং স্কেলে বেতন নির্ধারণ এবং সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন প্রদান, দ্রুত পদোন্নতির ব্যবস্থা গ্রহণসহ সহকারী শিক্ষক পদকে এন্ট্রি পদ ধরে পরিচালক পদ পর্যন্ত শতভাগ পদোন্নতি প্রদান, স্টেনোগ্রাফারদের পদোন্নতি বাতিল করে প্রধান শিক্ষকদের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার, সহকারী মনিটরিং অফিসার, সহকারী ইনস্ট্রাক্টর পদে পদোন্নতির ব্যবস্থা করা, সমাপনী পরীক্ষা ছাড়া বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ সব পরীক্ষা আগের মতো বিদ্যালয়ভিত্তিক প্রশ্নপত্র তৈরিসহ পরীক্ষা পদ্ধতি চালু ও প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকরি নন ভোকেশনাল হিসেবে গণ্য করতে হবে।

মানববন্ধনে উল্লেখিত দাবী গুলো বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে উত্থাপনের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ¦ ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন (এফসিএ)’র নিকট আবেদন প্রেরণ করেছেন শিক্ষক নেতারা।

মাণববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি মুরাদনগর উপজেলা শাখার সিণিয়র সহ-সভাপতি মনিরুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক জাকির হোসেনসহ সকল নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ।