ঢাকা ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজ চক্রবর্তীকে চিনতেন না বলে ছবির প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ফারিয়া

বিনোদন ডেস্কঃ
বাংলাদেশের ইন্ডাস্ট্রিতে বেশ কয়েকদিন হল একটি আলোচিত নাম ফারিয়া শাহরিন। কিছুদিন আগে একটি গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারের কারণে মিডিয়ার অনেক সহকর্মীর দ্বারা তোপের মুখে পড়েছেন ফারিয়া। একে অন্যের কাদা ছোঁড়াছুড়িতে জড়িয়েছেন। সেসব বিতর্ককে সঙ্গে নিয়ে ফারিয়া এবার আরো চমকপ্রদ তথ্য জানালেন। আর সেটা হল কলকাতার জনপ্রিয় পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর ছবির অফার ফারিয়া ফিরিয়ে দিয়েছিলেন শুধু তাকে চিনতেন না বলে।
২০১৪ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পেয়েছিল ফারিয়া শাহরিন অভিনীত সিনেমা ‘আকাশ কত দূরে’। ওই ছবিতে ‘পরী’ নামে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন ফারিয়া। ইমপ্রেস টেলিফিল্ম ও সরকারী অনুদানে নির্মিত ছবিটি সে বছর দারুণ প্রশংসিত হয়। ওই ছবিটি মুক্তির পরেই ফারিয়ার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেন কলকাতার ছবির সুপারহিট নির্মাতা রাজ চক্রবর্তী। চিরদিনই তুমি যে আমার, চ্যালেঞ্জ, দুই পৃথিবী, শত্রু, বোঝেনা সে বোঝেনা, কানামাছি, প্রলয় ইত্যাদি ছবিগুলো সেই সময়ে নির্মাণ করে তিনি তখন টলিউড ইন্ডাস্ট্রির শীর্ষ পরিচালক। টলিউডের প্রথম সারির নায়িকা-প্রযোজকরা তখন রাজ চক্রবর্তীর দরজায় লাইন ধরেছিলেন ছবি করার জন্য।
রাজ চক্রবর্তী ২০১৪ সালে ওই সময় লাক্সতারকা ফারিয়া শাহরিনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন তার ছবির নায়িকা বানানোর জন্য। এমনকি তিনি নিজেই ফারিয়াকে ফোন করেছিলেন। কিন্তু ফারিয়া সেই সুবর্ণ সুযোগ ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। রোববার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে ফারিয়া বলেন, ২০১৪ সালে আমার অভিনীত আকাশ কত দূরে ছবিটি মুক্তির পরেই রাজ চক্রবর্তী তার সহকারীকে দিয়ে আমার কাছে ফোন করান।  তারপর আমার সঙ্গে রাজ চক্রবর্তী নিজেই কথা বলেন। জানান, তিনি আমার ছবি দেখেছেন, পছন্দ করেছেন। তার পরের ছবিতে আমাকে নায়িকা হিসেবে নিতে চান। সেজন্য কলকাতা ডাকেন, গিয়ে লুক টেস্ট করার কথা বলেন। কিন্তু আমি সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেই।
ফারিয়া বলেন, আমি জানতামই না তখন ওই নামে কোনো পরিচালক আছেন কলকাতায়। সরাসরি তাকে বলি, আমি তো আপনাকে চিনি না।
আর রাজ চক্রবর্তী নামের কোনো পরিচালক আছে বলে আমার জানা নেই। তারপর উনি কিছুটা আনইজি ফিল করেন, অবাকও হন! এরপর আর যোগাযোগ হয়নি। পড়ে এটা আমার বন্ধুদের সঙ্গে ব্যাপারটা শেয়ার করি, তারা আমাকে বকা দিয়েছিল। বলেছিল, কেন এমন সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করলাম। পরে এটা মনে পড়ে খারাপ লেগেছিল! আমি আসলেই তাকে তখন চিনতে পারিনি। কারণ আমি তখন কলকাতার ছবি দেখতাম না।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

রাজ চক্রবর্তীকে চিনতেন না বলে ছবির প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ফারিয়া

আপডেট সময় ০১:৩০:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৮
বিনোদন ডেস্কঃ
বাংলাদেশের ইন্ডাস্ট্রিতে বেশ কয়েকদিন হল একটি আলোচিত নাম ফারিয়া শাহরিন। কিছুদিন আগে একটি গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারের কারণে মিডিয়ার অনেক সহকর্মীর দ্বারা তোপের মুখে পড়েছেন ফারিয়া। একে অন্যের কাদা ছোঁড়াছুড়িতে জড়িয়েছেন। সেসব বিতর্ককে সঙ্গে নিয়ে ফারিয়া এবার আরো চমকপ্রদ তথ্য জানালেন। আর সেটা হল কলকাতার জনপ্রিয় পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর ছবির অফার ফারিয়া ফিরিয়ে দিয়েছিলেন শুধু তাকে চিনতেন না বলে।
২০১৪ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পেয়েছিল ফারিয়া শাহরিন অভিনীত সিনেমা ‘আকাশ কত দূরে’। ওই ছবিতে ‘পরী’ নামে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন ফারিয়া। ইমপ্রেস টেলিফিল্ম ও সরকারী অনুদানে নির্মিত ছবিটি সে বছর দারুণ প্রশংসিত হয়। ওই ছবিটি মুক্তির পরেই ফারিয়ার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেন কলকাতার ছবির সুপারহিট নির্মাতা রাজ চক্রবর্তী। চিরদিনই তুমি যে আমার, চ্যালেঞ্জ, দুই পৃথিবী, শত্রু, বোঝেনা সে বোঝেনা, কানামাছি, প্রলয় ইত্যাদি ছবিগুলো সেই সময়ে নির্মাণ করে তিনি তখন টলিউড ইন্ডাস্ট্রির শীর্ষ পরিচালক। টলিউডের প্রথম সারির নায়িকা-প্রযোজকরা তখন রাজ চক্রবর্তীর দরজায় লাইন ধরেছিলেন ছবি করার জন্য।
রাজ চক্রবর্তী ২০১৪ সালে ওই সময় লাক্সতারকা ফারিয়া শাহরিনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন তার ছবির নায়িকা বানানোর জন্য। এমনকি তিনি নিজেই ফারিয়াকে ফোন করেছিলেন। কিন্তু ফারিয়া সেই সুবর্ণ সুযোগ ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। রোববার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে ফারিয়া বলেন, ২০১৪ সালে আমার অভিনীত আকাশ কত দূরে ছবিটি মুক্তির পরেই রাজ চক্রবর্তী তার সহকারীকে দিয়ে আমার কাছে ফোন করান।  তারপর আমার সঙ্গে রাজ চক্রবর্তী নিজেই কথা বলেন। জানান, তিনি আমার ছবি দেখেছেন, পছন্দ করেছেন। তার পরের ছবিতে আমাকে নায়িকা হিসেবে নিতে চান। সেজন্য কলকাতা ডাকেন, গিয়ে লুক টেস্ট করার কথা বলেন। কিন্তু আমি সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেই।
ফারিয়া বলেন, আমি জানতামই না তখন ওই নামে কোনো পরিচালক আছেন কলকাতায়। সরাসরি তাকে বলি, আমি তো আপনাকে চিনি না।
আর রাজ চক্রবর্তী নামের কোনো পরিচালক আছে বলে আমার জানা নেই। তারপর উনি কিছুটা আনইজি ফিল করেন, অবাকও হন! এরপর আর যোগাযোগ হয়নি। পড়ে এটা আমার বন্ধুদের সঙ্গে ব্যাপারটা শেয়ার করি, তারা আমাকে বকা দিয়েছিল। বলেছিল, কেন এমন সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করলাম। পরে এটা মনে পড়ে খারাপ লেগেছিল! আমি আসলেই তাকে তখন চিনতে পারিনি। কারণ আমি তখন কলকাতার ছবি দেখতাম না।