ঢাকা ০৫:২৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সু কিকে সতর্ক করলেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রী

অন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
রোহিঙ্গা ইস্যুতে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু কিকে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের উপর নিপীড়ন মিয়ানমারের সুনাম ক্ষুণ্ণ করছে।
জনসন সু কির উদ্দেশ্যে বলেন ‘তিনি যেন অসাধারণ গুণগুলো ব্যবহার করে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের নিয়ে ভুল বোঝাবোঝির ইতি টানেন। মিয়ানমারের অং সান সু কি সত্যিই আমাদের সময়ের অন্যতম অনুপ্রেরণাদায়ী চরিত্র। কিন্তু রোহিঙ্গাদের প্রতি আচরণ দেশটির সুনাম ক্ষুণ্ন করছে।’
জনসন যোগ করেন, সংঘাতের ইতি ঘটিয়ে দেশকে একতাবদ্ধ করবেন সু কি  এবং রাখাইন রাজ্যে মুসলিম ও অন্য সম্প্রদায়ের লোকদের নিয়ে ভুল বুঝাবুঝি ও নিপীড়ন বন্ধ হবে। উল্লেখ্য সর্বশেষ গত সপ্তাহে শুরু হওয়া সংঘাতের পরে প্রায় ৪০০ জন নিহত হয়েছে। নিপীড়নের ভয়ে প্রায় ৬০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। এর আগে গত অক্টোবরের সহিংসতায় আরো ৮৫ হাজার প্রবেশ করেছিল।
পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা বলছে, তাদের উপর মিয়ানমার সেনাবাহিনী হামলা করছে এবং বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিচ্ছে ও তাদের হত্যা করা হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার মিয়ানমার সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানায় জঙ্গি দমনে ‘ক্লিয়ারেন্স অপারেশন’ শুরু হওয়ার পরে ৪০০ জন নিহত হয়েছে যার মধ্যে ৩৭৮ জন রোহিঙ্গা ‘জঙ্গি’। বিবিসি।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সু কিকে সতর্ক করলেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রী

আপডেট সময় ০৫:০২:০৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
অন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
রোহিঙ্গা ইস্যুতে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু কিকে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের উপর নিপীড়ন মিয়ানমারের সুনাম ক্ষুণ্ণ করছে।
জনসন সু কির উদ্দেশ্যে বলেন ‘তিনি যেন অসাধারণ গুণগুলো ব্যবহার করে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের নিয়ে ভুল বোঝাবোঝির ইতি টানেন। মিয়ানমারের অং সান সু কি সত্যিই আমাদের সময়ের অন্যতম অনুপ্রেরণাদায়ী চরিত্র। কিন্তু রোহিঙ্গাদের প্রতি আচরণ দেশটির সুনাম ক্ষুণ্ন করছে।’
জনসন যোগ করেন, সংঘাতের ইতি ঘটিয়ে দেশকে একতাবদ্ধ করবেন সু কি  এবং রাখাইন রাজ্যে মুসলিম ও অন্য সম্প্রদায়ের লোকদের নিয়ে ভুল বুঝাবুঝি ও নিপীড়ন বন্ধ হবে। উল্লেখ্য সর্বশেষ গত সপ্তাহে শুরু হওয়া সংঘাতের পরে প্রায় ৪০০ জন নিহত হয়েছে। নিপীড়নের ভয়ে প্রায় ৬০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। এর আগে গত অক্টোবরের সহিংসতায় আরো ৮৫ হাজার প্রবেশ করেছিল।
পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা বলছে, তাদের উপর মিয়ানমার সেনাবাহিনী হামলা করছে এবং বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিচ্ছে ও তাদের হত্যা করা হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার মিয়ানমার সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানায় জঙ্গি দমনে ‘ক্লিয়ারেন্স অপারেশন’ শুরু হওয়ার পরে ৪০০ জন নিহত হয়েছে যার মধ্যে ৩৭৮ জন রোহিঙ্গা ‘জঙ্গি’। বিবিসি।