ঢাকা ১২:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রোহিঙ্গা পরিস্থিতি এখনো ভয়াবহ: ফখরুল

জাতীয় ডেস্ক:
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, রোহিঙ্গা পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ। এরকম মানবিক বিপর্যয় আমি কম দেখেছি। যারা প্রাণভয়ে পালিয়ে আসছে তাদের কূটনৈতিক তত্পরতার মধ্যদিয়ে এসব রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার সরকারকে বাধ্য করতে হবে। এসব রোহিঙ্গাদের সম্মানের সঙ্গে মিয়ানমারে ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।
গতকাল বুধবার সকালে উখিয়ার কুতুপালং ও বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণকালে এসব কথা বলেন।
মীর্জা ফখরুল বলেন, আমরা আগেও বলেছি রোহিঙ্গা সমস্যা মোকাবিলায় একটি জাতীয় ঐক্য গঠন করে এবিষয়ে নিজেদের শক্তিশালী করে যে দেশগুলো এখন পর্যন্ত মিয়ানমারকে সমর্থন দিচ্ছে তাদেরকে বুঝানো উচিত সরকারের। সরকারের আন্তরিকতা এখনও আমরা দেখছি না। এখানে সেনাবাহিনী আছে বলে শৃংখলা ফিরেছে। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এখনো পর্যন্ত পর্যাপ্ত স্যানিটেশনের ব্যবস্থা, আবাসন ব্যবস্থা গড়ে উঠেনি। রয়েছে বিশুদ্ধ পানির সংকটও।
এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, যুগ্ম মহাসচিব মুজিবুর রহমান সরওয়ার, প্রচার সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, মাহবুবুর রহমান শামিম, মত্স্যজীবী সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ লুত্ফর রহমান কাজন, জেলা বিএনপির সভাপতি শাহাজাহান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামীম আরা স্বপ্না ও দপ্তর সম্পাদক ইউছুপ বদরীসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

রোহিঙ্গা পরিস্থিতি এখনো ভয়াবহ: ফখরুল

আপডেট সময় ০৭:১৮:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭
জাতীয় ডেস্ক:
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, রোহিঙ্গা পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ। এরকম মানবিক বিপর্যয় আমি কম দেখেছি। যারা প্রাণভয়ে পালিয়ে আসছে তাদের কূটনৈতিক তত্পরতার মধ্যদিয়ে এসব রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার সরকারকে বাধ্য করতে হবে। এসব রোহিঙ্গাদের সম্মানের সঙ্গে মিয়ানমারে ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।
গতকাল বুধবার সকালে উখিয়ার কুতুপালং ও বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণকালে এসব কথা বলেন।
মীর্জা ফখরুল বলেন, আমরা আগেও বলেছি রোহিঙ্গা সমস্যা মোকাবিলায় একটি জাতীয় ঐক্য গঠন করে এবিষয়ে নিজেদের শক্তিশালী করে যে দেশগুলো এখন পর্যন্ত মিয়ানমারকে সমর্থন দিচ্ছে তাদেরকে বুঝানো উচিত সরকারের। সরকারের আন্তরিকতা এখনও আমরা দেখছি না। এখানে সেনাবাহিনী আছে বলে শৃংখলা ফিরেছে। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এখনো পর্যন্ত পর্যাপ্ত স্যানিটেশনের ব্যবস্থা, আবাসন ব্যবস্থা গড়ে উঠেনি। রয়েছে বিশুদ্ধ পানির সংকটও।
এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, যুগ্ম মহাসচিব মুজিবুর রহমান সরওয়ার, প্রচার সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, মাহবুবুর রহমান শামিম, মত্স্যজীবী সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ লুত্ফর রহমান কাজন, জেলা বিএনপির সভাপতি শাহাজাহান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামীম আরা স্বপ্না ও দপ্তর সম্পাদক ইউছুপ বদরীসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।