ঢাকা ১১:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লাকসামের জাকির হত্যা মামলায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

/ স্টাফ রির্পোটার, কুমিল্লাঃ
লাকসামে চাঞ্চল্যকর জাকির হত্যা মামলায় একই পরিবারের ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে কুমিল্লার দায়রা জজ আদালত। সোমবার দুপুরে এই রায় দেয় কুমিল্লা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ৪র্থ আদালতের বিচারক নুরুন্নাহার বেগম শিউলি। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- লাকসাম শহরের পশ্চিমগাঁও এলাকার বাবুল সাহা (৫৫), বাবুল সাহা’র স্ত্রী গীতা রাণী সাহা এবং ৩ ছেলে মিঠুন সাহা (২৩), টুটুল সাহা (২৬) ও শিমুল সাহা (১৯)।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, টাকা-পয়সা লেনদেন নিয়ে বিরোধ ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২০১০ সালের ৬ নভেম্বর রাত ৮টার সময় বাদী এরশাদ মিয়া ও তাঁর ছোট ভাই জাকির হোসেন বাজার থেকে বাড়ি যাচ্ছিলেন। পথে পূর্ব-পরিকল্পিতভাবে দা, লাঠি, রামদা ও ডেগার দিয়ে জাকির হোসেনকে ছুরিকাঘাত করে আসামিরা।
এলাকাবাসী জাকির হোসেনকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। এ ব্যাপারে পরেদিন ৭নভেম্বর নিহতের বড় ভাই এরশাদ মিয়া বাদী হয়ে টুটুল সাহাকে প্রধান করে ৮ জনের নামে একটি হত্যা মামলা করে। লাকসাম থানা পুলিশ মামলার তদন্ত করে ২০১১ সালের ৮ই মার্চ ৩ জনের নাম বাদ দিয়ে ৫ জনের নামে চার্জশীট গঠন করে আদালতে জমা দেয়।
মামলার এ পিপি এডভোকেট আবু তাহের জানান, এ হত্যা মামলায় ৯ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে ৪র্থ আদালতের বিচারক নুরুন্নাহার বেগম শিউলি মামলার প্রধান আসামি টুটুল সাহা তার বাবা বাবুল সাহা, মা গীতারানী সাহা ভাই মিঠুন সাহা ও শিমুল সাহাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ বছর কারাদণ্ডের রায় প্রদান করেন। রায় প্রদানের সময় আসামিরা সকলেই আদালতে উপস্থিত ছিল।
মামলার বাদী নিহতের বড় ভাই এরশাদ মিয়া রায়ের প্রতিক্রিয়ায় জানান, তারা এ রায়ে খুশী নন। তার এ হত্যাকাণ্ডের প্রধান দুই আসামি টুটুল সাহা ও মিঠুন সাহার মৃত্যুদণ্ড আশা করেছিলেন। প্রধান দুই আসামির মৃত্যদণ্ড নিশ্চিতের জন্য তারা উচ্চ আদালতে যাবেন।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

লাকসামের জাকির হত্যা মামলায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

আপডেট সময় ০৩:২৯:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৭
/ স্টাফ রির্পোটার, কুমিল্লাঃ
লাকসামে চাঞ্চল্যকর জাকির হত্যা মামলায় একই পরিবারের ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে কুমিল্লার দায়রা জজ আদালত। সোমবার দুপুরে এই রায় দেয় কুমিল্লা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ৪র্থ আদালতের বিচারক নুরুন্নাহার বেগম শিউলি। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- লাকসাম শহরের পশ্চিমগাঁও এলাকার বাবুল সাহা (৫৫), বাবুল সাহা’র স্ত্রী গীতা রাণী সাহা এবং ৩ ছেলে মিঠুন সাহা (২৩), টুটুল সাহা (২৬) ও শিমুল সাহা (১৯)।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, টাকা-পয়সা লেনদেন নিয়ে বিরোধ ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২০১০ সালের ৬ নভেম্বর রাত ৮টার সময় বাদী এরশাদ মিয়া ও তাঁর ছোট ভাই জাকির হোসেন বাজার থেকে বাড়ি যাচ্ছিলেন। পথে পূর্ব-পরিকল্পিতভাবে দা, লাঠি, রামদা ও ডেগার দিয়ে জাকির হোসেনকে ছুরিকাঘাত করে আসামিরা।
এলাকাবাসী জাকির হোসেনকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। এ ব্যাপারে পরেদিন ৭নভেম্বর নিহতের বড় ভাই এরশাদ মিয়া বাদী হয়ে টুটুল সাহাকে প্রধান করে ৮ জনের নামে একটি হত্যা মামলা করে। লাকসাম থানা পুলিশ মামলার তদন্ত করে ২০১১ সালের ৮ই মার্চ ৩ জনের নাম বাদ দিয়ে ৫ জনের নামে চার্জশীট গঠন করে আদালতে জমা দেয়।
মামলার এ পিপি এডভোকেট আবু তাহের জানান, এ হত্যা মামলায় ৯ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে ৪র্থ আদালতের বিচারক নুরুন্নাহার বেগম শিউলি মামলার প্রধান আসামি টুটুল সাহা তার বাবা বাবুল সাহা, মা গীতারানী সাহা ভাই মিঠুন সাহা ও শিমুল সাহাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ বছর কারাদণ্ডের রায় প্রদান করেন। রায় প্রদানের সময় আসামিরা সকলেই আদালতে উপস্থিত ছিল।
মামলার বাদী নিহতের বড় ভাই এরশাদ মিয়া রায়ের প্রতিক্রিয়ায় জানান, তারা এ রায়ে খুশী নন। তার এ হত্যাকাণ্ডের প্রধান দুই আসামি টুটুল সাহা ও মিঠুন সাহার মৃত্যুদণ্ড আশা করেছিলেন। প্রধান দুই আসামির মৃত্যদণ্ড নিশ্চিতের জন্য তারা উচ্চ আদালতে যাবেন।