ঢাকা ১২:৩৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শেখ হাসিনা-মমতা বৈঠক অনুষ্ঠিত

জাতীয় ডেস্কঃ

তিস্তা নিয়ে এখনই ‘কিছু বলতে চান না’ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে একান্ত বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান তিনি। প্রায় ৪০ মিনিট কলকাতার তাজ বেঙ্গলে এ বৈঠক হয়।

বৈঠক শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুবই ভালো। কলকাতায় ‘বঙ্গবন্ধু ভবন’ হবে। অরবিন্দ ভবনেই মূলত এটার একটা জায়গা নেওয়া হচ্ছে। সেখানেই তৈরি হবে বঙ্গবন্ধু ভবন।

শেখ হাসিনাকে ডক্টর অব লিটারেচার ডিগ্রি দেওয়া প্রসঙ্গে মমতা বলেন, তাকে এই ডিগ্রি দিতে পেরে আমরা গর্বিত। আজকের মিটিং খুব ভালো হয়েছে। সবকিছু পজেটিভ এটাই বলতে চাই, এর বাইরে কিছু বলতে চাই না।

ব্যবসায়িক সম্পর্কের বিষয়ে তিনি বলেন, ব্যবসায়িক সম্পর্ক আরো বাড়ানোর জন্য মিটিং হয়েছে। দুই দেশের অর্থাৎ দুই বাঙলার মানুষজন সুখে থাকতে পারে, সে বিষয়ে আলাপ হয়েছে। আমাকে বাংলাদেশে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন শেখ হাসিনা। তিস্তা নিয়ে মমতা বলেন, এ বিষয়ে এখনই কিছু আলোচনা করতে চাই না প্রকাশ্যে।

এর আগে সোয়া ৬টার দিকে কলকাতার তাজ হোটেলে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা। এ সময় তাদের স্বাগত জানান কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার তৌফিক হাসান।

সূত্র জানায়, মূল সফরসূচিতে এ বৈঠকের উল্লেখ ছিল না। কারণ, ব্যস্ত সফরসূচিতে বৈঠকের সময় বের করা কঠিন হচ্ছিল। পরে সময় বের করা সম্ভব হলে সফরসূচিতে এ বৈঠকের সময় যোগ করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ দিন সকালে আসানসোলে কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ সমাবর্তনে যোগ দিয়ে সম্মানসূচক ডক্টর অব লিটারেচার ডিগ্রি গ্রহণ করেন। পরে কলকাতায় নেতাজী সুভাষচন্দ্র স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন শেষে হোটেল তাজ বেঙ্গলে ফিরে আসেন।

এদিকে  ভারত থেকে রাতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

শেখ হাসিনা-মমতা বৈঠক অনুষ্ঠিত

আপডেট সময় ০৯:৫২:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ মে ২০১৮
জাতীয় ডেস্কঃ

তিস্তা নিয়ে এখনই ‘কিছু বলতে চান না’ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে একান্ত বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান তিনি। প্রায় ৪০ মিনিট কলকাতার তাজ বেঙ্গলে এ বৈঠক হয়।

বৈঠক শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুবই ভালো। কলকাতায় ‘বঙ্গবন্ধু ভবন’ হবে। অরবিন্দ ভবনেই মূলত এটার একটা জায়গা নেওয়া হচ্ছে। সেখানেই তৈরি হবে বঙ্গবন্ধু ভবন।

শেখ হাসিনাকে ডক্টর অব লিটারেচার ডিগ্রি দেওয়া প্রসঙ্গে মমতা বলেন, তাকে এই ডিগ্রি দিতে পেরে আমরা গর্বিত। আজকের মিটিং খুব ভালো হয়েছে। সবকিছু পজেটিভ এটাই বলতে চাই, এর বাইরে কিছু বলতে চাই না।

ব্যবসায়িক সম্পর্কের বিষয়ে তিনি বলেন, ব্যবসায়িক সম্পর্ক আরো বাড়ানোর জন্য মিটিং হয়েছে। দুই দেশের অর্থাৎ দুই বাঙলার মানুষজন সুখে থাকতে পারে, সে বিষয়ে আলাপ হয়েছে। আমাকে বাংলাদেশে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন শেখ হাসিনা। তিস্তা নিয়ে মমতা বলেন, এ বিষয়ে এখনই কিছু আলোচনা করতে চাই না প্রকাশ্যে।

এর আগে সোয়া ৬টার দিকে কলকাতার তাজ হোটেলে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা। এ সময় তাদের স্বাগত জানান কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার তৌফিক হাসান।

সূত্র জানায়, মূল সফরসূচিতে এ বৈঠকের উল্লেখ ছিল না। কারণ, ব্যস্ত সফরসূচিতে বৈঠকের সময় বের করা কঠিন হচ্ছিল। পরে সময় বের করা সম্ভব হলে সফরসূচিতে এ বৈঠকের সময় যোগ করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ দিন সকালে আসানসোলে কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ সমাবর্তনে যোগ দিয়ে সম্মানসূচক ডক্টর অব লিটারেচার ডিগ্রি গ্রহণ করেন। পরে কলকাতায় নেতাজী সুভাষচন্দ্র স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন শেষে হোটেল তাজ বেঙ্গলে ফিরে আসেন।

এদিকে  ভারত থেকে রাতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।