ঢাকা ১২:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘ষোড়শের রায় নিয়ে বিএনপি মাঠ গরম করতে চাচ্ছে’

জাতীয় ডেস্কঃ
অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে রাজনীতি অনভিপ্রেত। মাঠে রাজনীতি করতে পারছে না বলেই বিএনপি এ রায় নিয়ে মাঠ গরম করতে চাচ্ছে।
বৃহস্পতিবার নিজ কার্যালয়ে এক প্রেস-ব্রিফিংয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সংবিধানের ৫ম সংশোধনীকে অবৈধ ঘোষণা করে বিচারপতি খায়রুল হক আমাদের মনোজগতকে জাগ্রত করেছেন। তিনি স্বাধীনতার ঘোষক, পরিবেশ রক্ষাসহ বিভিন্ন বিষয়ে ঐতিহাসিক রায় দিয়েছেন। উনি না থাকলে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচারও হত না। আমার বিবেচনায় উনি জাতির বিবেক।
অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, পঞ্চম সংশোধনী বাতিলের মামলার রায়ে আপিল বিভাগ সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল ব্যবস্থা রেখে দিয়েছিল। কিন্তু রিভিউর রায়ে সব বাতিল করে দিয়ে নতুন করে আইন করতে বলা হয়েছিল।
তিনি বলেন, সংসদ আইন প্রণয়ন করবে। আর সংবিধান হলো সবার উপরে। যে কথাটি আামি বারে বারে বলেছি, সংবিধানের আদি কোন অনুচ্ছেদ সেটার ভাল কিংবা মন্দ সে সম্পর্কে বিচার বিভাগ কিছু বলতে পারবে না। আদালত ক্ষমতা প্রাপ্ত হবেন তখনই যখন আদি সংবিধান সংশোধন হয়। কিন্তু মূল সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদকে নিয়ে আদালত বিচার করার ক্ষমতা রাখে না।
তিনি বলেন, রিভিউ রায়ে ছিল মার্শাল তে জারি করা সমস্ত ফরমানগুলো অবৈধ। তবে রাষ্ট্র পরিচালনার কাজে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বৈধতা দেয়া হলো। তারপর আর নয়।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

‘ষোড়শের রায় নিয়ে বিএনপি মাঠ গরম করতে চাচ্ছে’

আপডেট সময় ০১:১৭:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১১ অগাস্ট ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ
অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে রাজনীতি অনভিপ্রেত। মাঠে রাজনীতি করতে পারছে না বলেই বিএনপি এ রায় নিয়ে মাঠ গরম করতে চাচ্ছে।
বৃহস্পতিবার নিজ কার্যালয়ে এক প্রেস-ব্রিফিংয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সংবিধানের ৫ম সংশোধনীকে অবৈধ ঘোষণা করে বিচারপতি খায়রুল হক আমাদের মনোজগতকে জাগ্রত করেছেন। তিনি স্বাধীনতার ঘোষক, পরিবেশ রক্ষাসহ বিভিন্ন বিষয়ে ঐতিহাসিক রায় দিয়েছেন। উনি না থাকলে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচারও হত না। আমার বিবেচনায় উনি জাতির বিবেক।
অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, পঞ্চম সংশোধনী বাতিলের মামলার রায়ে আপিল বিভাগ সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল ব্যবস্থা রেখে দিয়েছিল। কিন্তু রিভিউর রায়ে সব বাতিল করে দিয়ে নতুন করে আইন করতে বলা হয়েছিল।
তিনি বলেন, সংসদ আইন প্রণয়ন করবে। আর সংবিধান হলো সবার উপরে। যে কথাটি আামি বারে বারে বলেছি, সংবিধানের আদি কোন অনুচ্ছেদ সেটার ভাল কিংবা মন্দ সে সম্পর্কে বিচার বিভাগ কিছু বলতে পারবে না। আদালত ক্ষমতা প্রাপ্ত হবেন তখনই যখন আদি সংবিধান সংশোধন হয়। কিন্তু মূল সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদকে নিয়ে আদালত বিচার করার ক্ষমতা রাখে না।
তিনি বলেন, রিভিউ রায়ে ছিল মার্শাল তে জারি করা সমস্ত ফরমানগুলো অবৈধ। তবে রাষ্ট্র পরিচালনার কাজে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বৈধতা দেয়া হলো। তারপর আর নয়।