ঢাকা ০২:১০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সামান্য বৃষ্টিতেই মুরাদনগর খেলার মাঠে হাটুজল

বেলাল উদ্দিন আহাম্মদ, বিশেষ প্রতিনিধি:

মুরাদনগর উপজেলা সদরে খেলার মাঠের তীব্র সংকট বিরাজ করছে। উপজেলা সদরে মুরাদনগর ডি আর হাই স্কুলের খেলার মাঠ ছাড়া খেলাÑধূলা করার মত আর কোন মাঠ নেই।মুরাদনগর উপজেলা সদরের একমাত্র খেলার মাঠ ও মুক্তমাঠ হিসাবে পরিচিত।

এ মাঠে উপজেলার বিভিন্ন সমাবেশ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মহাসমাবেশে বিভিন্ন সময় একাধিকবার বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান,  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া, সাবেক রাষ্ট্রপতি হোসেন মোহাম্মদ এরশাদ প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন। এলাকার  এক সময়ে জেলার মধ্যে এ মাঠের খুব সুনাম ছিল। মাঠের আভ্যন্তর ও বাহিরের পরিবেশ বেশ চমৎকার ছিল।

ডি আর সরকারী হাই স্কুলের উত্তর পাশে এ মাঠের এখন বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। মাঠটির দক্ষিনাংশ দিয়ে পূর্ব হতে পশ্চিম দিকে মাঠের বেশ কিছু জায়গা গোমতী বেরীবাধ নির্মান , পূর্বদিকে মুরাদনগর ইলিয়টগঞ্জ সড়কে মাঠের কিছু অংশ চলে যাওয়ায় এমনিতেই মাঠের আকার অনেকটা ছোট হয়ে গেছে। মাঠের উত্তর দিকে মুরাদনগর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় , পশ্চিমদিকে মুরাদনগর ডি আর হাই স্কুল ভবন ও ছাত্রাবাস রয়েছে। চারিদিকে মাঠ হতে উচু হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতেই মাঠে হাটু জল লেগে থাকে। পানি নিস্কাসনের সুষ্ঠ ব্যবস্থা না থাকায় পানি ও জল লেগেই থাকে।খেলাধূলা করার মাঠের অভাবে শিশু ও কিশোরদের  খেলাধূলা করার স্বাভাবিক পরিবেশ না থাকায় সুস্বাস্থ্য ও সুন্দর মানষিকতা  নিয়ে বড় হতে পারছে না। বিশেষ করে কিশোর বয়ষের ছেলেরা বিদেশী আকাশ সংস্কৃতি ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের দিকে ঝোকে পড়েছে। যে সময়টা মাঠে খেলাধূলা করে মনকে প্রফুল্ল করার কথা ঠিক  ওই সময়ট তেই মাঠের অভাবে টিভিতে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কুরুচি পূর্ন বিষয়ের দিকে ঝুকে পড়ে মানুষিক বিকারগ্রস্থ হয়ে পড়ছে। এর ফলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম  অধ:পতিত হয়ে পড়ছে।

Exif_JPEG_420

খেলাধূলার  মাধ্যমেই নির্মল আনন্দ লাভ করা যায়। বর্তমানে মুরাদনগর উপজেলা সদরের একমাত্র খেলার মাঠটির বেহাল অবস্থার কারনে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম খেলাধূলার মাধ্যমে শারিরীক সুস্থতা ও মনের প্রফুল্লতা পাচ্ছে না। বর্তমানে মাঠের ড্রেনেজ সিষ্টেম সংস্কার করলে ও মাঠটি সামান্য উচু করলে মাঠটিতে খেলাধূলার পরিবেশ আবার ফিরে আসবে।
এ বিষয়ে মুরাদনগর মাঠের তুখোড় ক্রিকেট খেলোয়ার ও মুরাদনগর সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমেদ মাসুদ জানান এ মাঠটি মুরাদনগর উপজেলা সদরের একমাত্র মাঠ। সকলের প্রানপ্রিয় এ মাঠটি সংস্কার করে খেলাধূলা করার উপযোগী করে গড়ে তোলা প্রয়োজন। যদিও এ মাঠটি আমার ইউনিয়নের মধ্যে নয় তবুও জনস্বার্থে আগামী সমন্বয় সভায় এ বিষয়ে প্রস্তাব উত্থাপন করা হবে।
এ ব্যপারে মুরাদনগর ডিআর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শাহজাহান জানান, এ বিষয়ে কখনো কোন উদ্যেগ নেওয়া হয়নি কিন্তু মাঠটি আমাদের হলেও সেটি মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উপজেলার কেন্দ্রিয় মাঠ হিসেবেই ব্যবহার হচ্ছে। তাই মাঠটির জন্য উপজেলা প্রশাসনসহ সকলেরই একটি উদ্যেগ প্রয়োজন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাসেলুল কাদের বলেন, মাঠটির মালিক হচ্ছে ডিআর উচ্চ বিদ্যালয়ের তাই সেটা দেখার দায়িত্ব স্কুল কতৃপক্ষের। কতৃপক্ষ যদি আমার কোন প্রয়োজন মনে করে তা হলে সে বিষয়ে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

সামান্য বৃষ্টিতেই মুরাদনগর খেলার মাঠে হাটুজল

আপডেট সময় ০৩:৩০:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৭
বেলাল উদ্দিন আহাম্মদ, বিশেষ প্রতিনিধি:

মুরাদনগর উপজেলা সদরে খেলার মাঠের তীব্র সংকট বিরাজ করছে। উপজেলা সদরে মুরাদনগর ডি আর হাই স্কুলের খেলার মাঠ ছাড়া খেলাÑধূলা করার মত আর কোন মাঠ নেই।মুরাদনগর উপজেলা সদরের একমাত্র খেলার মাঠ ও মুক্তমাঠ হিসাবে পরিচিত।

এ মাঠে উপজেলার বিভিন্ন সমাবেশ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মহাসমাবেশে বিভিন্ন সময় একাধিকবার বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান,  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া, সাবেক রাষ্ট্রপতি হোসেন মোহাম্মদ এরশাদ প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন। এলাকার  এক সময়ে জেলার মধ্যে এ মাঠের খুব সুনাম ছিল। মাঠের আভ্যন্তর ও বাহিরের পরিবেশ বেশ চমৎকার ছিল।

ডি আর সরকারী হাই স্কুলের উত্তর পাশে এ মাঠের এখন বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। মাঠটির দক্ষিনাংশ দিয়ে পূর্ব হতে পশ্চিম দিকে মাঠের বেশ কিছু জায়গা গোমতী বেরীবাধ নির্মান , পূর্বদিকে মুরাদনগর ইলিয়টগঞ্জ সড়কে মাঠের কিছু অংশ চলে যাওয়ায় এমনিতেই মাঠের আকার অনেকটা ছোট হয়ে গেছে। মাঠের উত্তর দিকে মুরাদনগর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় , পশ্চিমদিকে মুরাদনগর ডি আর হাই স্কুল ভবন ও ছাত্রাবাস রয়েছে। চারিদিকে মাঠ হতে উচু হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতেই মাঠে হাটু জল লেগে থাকে। পানি নিস্কাসনের সুষ্ঠ ব্যবস্থা না থাকায় পানি ও জল লেগেই থাকে।খেলাধূলা করার মাঠের অভাবে শিশু ও কিশোরদের  খেলাধূলা করার স্বাভাবিক পরিবেশ না থাকায় সুস্বাস্থ্য ও সুন্দর মানষিকতা  নিয়ে বড় হতে পারছে না। বিশেষ করে কিশোর বয়ষের ছেলেরা বিদেশী আকাশ সংস্কৃতি ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের দিকে ঝোকে পড়েছে। যে সময়টা মাঠে খেলাধূলা করে মনকে প্রফুল্ল করার কথা ঠিক  ওই সময়ট তেই মাঠের অভাবে টিভিতে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কুরুচি পূর্ন বিষয়ের দিকে ঝুকে পড়ে মানুষিক বিকারগ্রস্থ হয়ে পড়ছে। এর ফলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম  অধ:পতিত হয়ে পড়ছে।

Exif_JPEG_420

খেলাধূলার  মাধ্যমেই নির্মল আনন্দ লাভ করা যায়। বর্তমানে মুরাদনগর উপজেলা সদরের একমাত্র খেলার মাঠটির বেহাল অবস্থার কারনে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম খেলাধূলার মাধ্যমে শারিরীক সুস্থতা ও মনের প্রফুল্লতা পাচ্ছে না। বর্তমানে মাঠের ড্রেনেজ সিষ্টেম সংস্কার করলে ও মাঠটি সামান্য উচু করলে মাঠটিতে খেলাধূলার পরিবেশ আবার ফিরে আসবে।
এ বিষয়ে মুরাদনগর মাঠের তুখোড় ক্রিকেট খেলোয়ার ও মুরাদনগর সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমেদ মাসুদ জানান এ মাঠটি মুরাদনগর উপজেলা সদরের একমাত্র মাঠ। সকলের প্রানপ্রিয় এ মাঠটি সংস্কার করে খেলাধূলা করার উপযোগী করে গড়ে তোলা প্রয়োজন। যদিও এ মাঠটি আমার ইউনিয়নের মধ্যে নয় তবুও জনস্বার্থে আগামী সমন্বয় সভায় এ বিষয়ে প্রস্তাব উত্থাপন করা হবে।
এ ব্যপারে মুরাদনগর ডিআর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শাহজাহান জানান, এ বিষয়ে কখনো কোন উদ্যেগ নেওয়া হয়নি কিন্তু মাঠটি আমাদের হলেও সেটি মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উপজেলার কেন্দ্রিয় মাঠ হিসেবেই ব্যবহার হচ্ছে। তাই মাঠটির জন্য উপজেলা প্রশাসনসহ সকলেরই একটি উদ্যেগ প্রয়োজন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাসেলুল কাদের বলেন, মাঠটির মালিক হচ্ছে ডিআর উচ্চ বিদ্যালয়ের তাই সেটা দেখার দায়িত্ব স্কুল কতৃপক্ষের। কতৃপক্ষ যদি আমার কোন প্রয়োজন মনে করে তা হলে সে বিষয়ে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।