ঢাকা ০১:১৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিসিবির সভাপতি মুজিব, সেক্রেটারি শামস

জাতীয় ডেস্ক:
কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশ (সিসিবি) এর সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন কে এম মুজিবুল হক এবং সেক্রেটারি জেনারেল হয়েছেন শামস মাহমুদ। কার্যনির্বাহী কমিটির এজিএম গত ৯ এপ্রিল গুলশানের একটি হোটেল অনুষ্ঠিত, সেখানে ২০১৮-১৯ সালের জন্য ১১ সদস্যের কার্যনির্বাহী কমিটির ঘোষণা দেয়া হয়।
কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশের নবনির্বাচিত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- সদ্য বিদায়ী সভাপতি কিরগিজ প্রজাতন্ত্র এর অনারারি কনস্যুলার জেনারেল কাজী শামসুল হক। সহ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন নিউজিল্যান্ডের অনারারি কনস্যুলার নিয়াজ আহমেদ এবং উগান্ডার অনারারি কনস্যুলার আবুল হোসেন। ট্রেজারার এর দায়িত্ব পেয়েছেন সেশেলস প্রজাতন্ত্রের কনস্যুলার মো. আমিরুজ্জামান।
কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- চট্টগ্রামে ফিলিপাইনের অনারারি কনস্যুলার মোহাম্মদ আবদুল আউয়াল, রিপাবলিক অব গাম্বিয়ার অনারারি কনস্যুলার কাজী খুররম আহমেদ, গাজীপুরে কোরিয়া প্রজাতন্ত্রের অনারারি কনস্যুলার মোহাম্মদ মহসিন, দক্ষিণ আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের কনস্যুলার সোলাইমান আলম শেঠ এবং বসনিয়া ও হার্জেগোভিনার অনারারি কনস্যুলার মোহাম্মদ তানিম হাসান কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশের ২০১৮-১৯ মেয়াদের জন্য এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।
কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশ (সিসিবি) এর সভাপতির দায়িত্ব পাওয়া কে এম মুজিবুল হক ইয়েমেনের অনারারি কনসুল জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। মূলত মুজিবুল হক একজন উদ্যোক্তা এবং শাহ গ্রুপ এবং টোটাল এয়ার সার্ভিসেস লিমিটেডের চেয়ারম্যান। তিনি ১৯৮৯ থেকে ২০০০ পর্যন্ত শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। তিনি ১৯৮৬ সালে জাতিসংঘ শান্তি কর্মসূচির (এফইআর) আঞ্চলিক পরিচালক হিসেবে কাজ করেন। তিনি ১৯৯১ সালে বাংলাদেশ জুনিয়র চেম্বারের (বিজেসি) জাতীয় সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৯৩ সালে তিনি জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল (জেসিআই) এর ওয়ার্ল্ড ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। তিনি এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং কাজী নোমান আহমেদ ডিগ্রি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।
কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশ (সিসিবি)-এর সেক্রেটারি জেনারেল হয়েছেন শামস মাহমুদ বর্তমানে ফেডারেল ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব ইথিওপিয়ার অনারারি কনস্যুলার হিসেবে দায়িত্বে আছেন। তিনি শাশা ডিনিমস লিমিটেড ও শাশা গার্মেন্টস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। শামস মাহমুদ একই সঙ্গে বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশন, ডাচ-বাংলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এবং বাংলাদেশ ফিলিপাইন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এর পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন।
এজিএম শেষে সদ্য বিদায়ী সভাপতি সব নিযুক্ত কমিটির সম্মানে নৈশভোজের আয়োজন করেন এবং শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

সিসিবির সভাপতি মুজিব, সেক্রেটারি শামস

আপডেট সময় ০৫:০০:০৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১২ এপ্রিল ২০১৮
জাতীয় ডেস্ক:
কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশ (সিসিবি) এর সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন কে এম মুজিবুল হক এবং সেক্রেটারি জেনারেল হয়েছেন শামস মাহমুদ। কার্যনির্বাহী কমিটির এজিএম গত ৯ এপ্রিল গুলশানের একটি হোটেল অনুষ্ঠিত, সেখানে ২০১৮-১৯ সালের জন্য ১১ সদস্যের কার্যনির্বাহী কমিটির ঘোষণা দেয়া হয়।
কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশের নবনির্বাচিত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- সদ্য বিদায়ী সভাপতি কিরগিজ প্রজাতন্ত্র এর অনারারি কনস্যুলার জেনারেল কাজী শামসুল হক। সহ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন নিউজিল্যান্ডের অনারারি কনস্যুলার নিয়াজ আহমেদ এবং উগান্ডার অনারারি কনস্যুলার আবুল হোসেন। ট্রেজারার এর দায়িত্ব পেয়েছেন সেশেলস প্রজাতন্ত্রের কনস্যুলার মো. আমিরুজ্জামান।
কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- চট্টগ্রামে ফিলিপাইনের অনারারি কনস্যুলার মোহাম্মদ আবদুল আউয়াল, রিপাবলিক অব গাম্বিয়ার অনারারি কনস্যুলার কাজী খুররম আহমেদ, গাজীপুরে কোরিয়া প্রজাতন্ত্রের অনারারি কনস্যুলার মোহাম্মদ মহসিন, দক্ষিণ আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের কনস্যুলার সোলাইমান আলম শেঠ এবং বসনিয়া ও হার্জেগোভিনার অনারারি কনস্যুলার মোহাম্মদ তানিম হাসান কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশের ২০১৮-১৯ মেয়াদের জন্য এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।
কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশ (সিসিবি) এর সভাপতির দায়িত্ব পাওয়া কে এম মুজিবুল হক ইয়েমেনের অনারারি কনসুল জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। মূলত মুজিবুল হক একজন উদ্যোক্তা এবং শাহ গ্রুপ এবং টোটাল এয়ার সার্ভিসেস লিমিটেডের চেয়ারম্যান। তিনি ১৯৮৯ থেকে ২০০০ পর্যন্ত শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। তিনি ১৯৮৬ সালে জাতিসংঘ শান্তি কর্মসূচির (এফইআর) আঞ্চলিক পরিচালক হিসেবে কাজ করেন। তিনি ১৯৯১ সালে বাংলাদেশ জুনিয়র চেম্বারের (বিজেসি) জাতীয় সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৯৩ সালে তিনি জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল (জেসিআই) এর ওয়ার্ল্ড ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। তিনি এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং কাজী নোমান আহমেদ ডিগ্রি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।
কনস্যুলার কর্পস ইন বাংলাদেশ (সিসিবি)-এর সেক্রেটারি জেনারেল হয়েছেন শামস মাহমুদ বর্তমানে ফেডারেল ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব ইথিওপিয়ার অনারারি কনস্যুলার হিসেবে দায়িত্বে আছেন। তিনি শাশা ডিনিমস লিমিটেড ও শাশা গার্মেন্টস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। শামস মাহমুদ একই সঙ্গে বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশন, ডাচ-বাংলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এবং বাংলাদেশ ফিলিপাইন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এর পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন।
এজিএম শেষে সদ্য বিদায়ী সভাপতি সব নিযুক্ত কমিটির সম্মানে নৈশভোজের আয়োজন করেন এবং শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।