ঢাকা ০৮:২৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুদানে গ্যাস ট্যাংকার বিস্ফোরণে নিহত ২৩

আন্তর্জাতিক :

সুদানের উত্তর খার্তুমের একটি টাইলস উৎপাদন কারখানায় গ্যাস ট্যাংকার বিস্ফোরণে ২৩ জন নিহত হয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, গত মঙ্গলবার গ্যাস ট্যাংকার বিস্ফোরণে এই আগুনের সূত্রপাত ঘটে। নিহতের পাশাপাশি অনেকে আহত হয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, টাইলস উৎপাদন ইউনিটে আগুন ছড়িয়ে পড়লে আকাশে কুণ্ডলী পাকানো কালো ধোঁয়া উঠতে দেখা যায়। 

সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে কারখানাটিতে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তাব্যবস্থার অপ্রতুলতা ও অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্রপাতির অভাব ছিল বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে, এর সঙ্গে যোগ হয়েছে যত্রতত্র দাহ্য বস্তু স্তূপ করে রাখা।

খার্তুমে ভারতীয় দূতাবাস জানায়, অর্ধশতাধিকের বেশি ভারতীয় ওই কারখানাটিতে কর্মরত ছিলেন। আহতদের মধ্যে তারা থাকতে পারেন বলে আশক্সক্ষা করা হচ্ছে। তবে সংখ্যা উল্লেখ না করেই নিজেদের ওয়েবসাইটে ভারতীয় দূতাবাস এমন তথ্য দিয়েছে।

দেশটির মন্ত্রিসভা এক বিবৃতিতে জানায়, শিল্প এলাকায় আগুন ছড়িয়ে পড়লে ২৩ জন নিহত ও ১৩০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের চিকিৎসার জন্য নাগরিকদের রক্ত দেয়ার অনুরোধ করেছে সুদান সরকার।

কারখানাটির কর্মী উইলিয়াম বলেন, কী হয়েছে আমি কিছুই বুঝতে পারিনি। বিস্ফোরণের শব্দ শুনে আমি দৌড় দিই। আলখাল্লা পরা এক লোক আমার পেছনে দৌড়াচ্ছিল, সে গুরুতর আহত ছিল আর আমার পায়েও আঘাত লেগেছিল।

ঘটনাস্থলে থাকা স্বেচ্ছাসেবক হুসেইন ওমর বলেন, আমি ১৪টি মরদেহ টেনে বের করেছি। সেগুলো পুরোপুরি দগ্ধ ছিল।

আহতদের সবাইকে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশক্সক্ষাজনক।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

সুদানে গ্যাস ট্যাংকার বিস্ফোরণে নিহত ২৩

আপডেট সময় ০৩:৩৫:১৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৪ ডিসেম্বর ২০১৯

আন্তর্জাতিক :

সুদানের উত্তর খার্তুমের একটি টাইলস উৎপাদন কারখানায় গ্যাস ট্যাংকার বিস্ফোরণে ২৩ জন নিহত হয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, গত মঙ্গলবার গ্যাস ট্যাংকার বিস্ফোরণে এই আগুনের সূত্রপাত ঘটে। নিহতের পাশাপাশি অনেকে আহত হয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, টাইলস উৎপাদন ইউনিটে আগুন ছড়িয়ে পড়লে আকাশে কুণ্ডলী পাকানো কালো ধোঁয়া উঠতে দেখা যায়। 

সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে কারখানাটিতে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তাব্যবস্থার অপ্রতুলতা ও অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্রপাতির অভাব ছিল বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে, এর সঙ্গে যোগ হয়েছে যত্রতত্র দাহ্য বস্তু স্তূপ করে রাখা।

খার্তুমে ভারতীয় দূতাবাস জানায়, অর্ধশতাধিকের বেশি ভারতীয় ওই কারখানাটিতে কর্মরত ছিলেন। আহতদের মধ্যে তারা থাকতে পারেন বলে আশক্সক্ষা করা হচ্ছে। তবে সংখ্যা উল্লেখ না করেই নিজেদের ওয়েবসাইটে ভারতীয় দূতাবাস এমন তথ্য দিয়েছে।

দেশটির মন্ত্রিসভা এক বিবৃতিতে জানায়, শিল্প এলাকায় আগুন ছড়িয়ে পড়লে ২৩ জন নিহত ও ১৩০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের চিকিৎসার জন্য নাগরিকদের রক্ত দেয়ার অনুরোধ করেছে সুদান সরকার।

কারখানাটির কর্মী উইলিয়াম বলেন, কী হয়েছে আমি কিছুই বুঝতে পারিনি। বিস্ফোরণের শব্দ শুনে আমি দৌড় দিই। আলখাল্লা পরা এক লোক আমার পেছনে দৌড়াচ্ছিল, সে গুরুতর আহত ছিল আর আমার পায়েও আঘাত লেগেছিল।

ঘটনাস্থলে থাকা স্বেচ্ছাসেবক হুসেইন ওমর বলেন, আমি ১৪টি মরদেহ টেনে বের করেছি। সেগুলো পুরোপুরি দগ্ধ ছিল।

আহতদের সবাইকে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশক্সক্ষাজনক।