ঢাকা ০৬:২৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সোমবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে না মুরাদনগর সদর ইউপি নির্বাচন

মো: নাজিম উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

অপেক্ষার পালা ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে মুরাদনগর সদর ইউনিয়নের সাধারন ভোটারের। আজ ৩১শে অক্টোবর ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও আইনি জটিলতায় তা হচ্ছে না।

এর মধ্যদিয়ে অবসান হলো সকল জল্পনা-কল্পনার। রোববার সকাল  থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে জোরগুঞ্জন চললেও রাত আটটার দিকে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তা নাকচ করে দেন। আপীলের রায় নির্বাচনের পক্ষে হলেও সময় সল্পতার কারনে আজ হচ্ছে না ভোট।

জানা যায়, ৬ষ্ঠ ধাপে ৪ঠা জুন মুরাদনগর উপজেলার ২২টি ইউনিয়নের নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষনা করে নির্বাচন কমিশন কিন্তু ভোট গ্রহনের কিছুদিন পূর্বে পৌরসভার সীমানা গেজেট নিয়ে জটিলতা তুলে ধরে হাইর্কোটে রিট করেন মুরাদনগর সদও ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহাম্মেদ মাসুদ। সেই রিটের প্রেক্ষিতে মুরাদনগর সদর ইউপির ভোট গ্রহন স্থগিত করে হাইর্কোট। সেই আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে আপীল করেন সদর ইউনিয়নে আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী  (নৌকা) সফিউল্লাহ ভূইয়া। আপীলে ভোট গ্রহনের স্থগিতাদেশকে স্থগিত করে ভোট গ্রহনের আদেশ দেন উচ্চ আদালত। পরে ৩১শে অক্টোবর ভোট গ্রহনের তারিখ ঘোষনা করে গনবিজ্ঞপ্তি জারি করে নির্বাচন কমিশন কিন্তু মুরাদনগরের কাজী সাইফুল ইসলাম নামের এক ব্যাক্তি একই বিষয় নিয়ে হাইর্কোটে আবারো একটি রিট আবেদন করেন এর প্রেক্ষিতে পুনরায় গত ২৪ অক্টোবর হাইর্কোটের বিচারপতি নাইমা হায়দার ও মো: সেলিমের দৈত বেঞ্চ সদর ইউপি নির্বাচন ৬মাসের জন্য স্থগিত করেন। এই আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে আবারো আপীল করেন সফিউল্লাহ ভূইয়া।

আপীলে নির্বাচনের স্থগিতাদেশকে ৬সপ্তাহের জন্য স্থগিত করে রায় ঘোষনা করে উচ্চ আদালত।
গময় সল্পতার কারনে ভোট গ্রহন হচ্ছে না বলে জানা যায়।

মুরাদনগর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাসেলুল কাদের জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ভোট গ্রহন হচ্ছে না এই বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ট্যাগস

সোমবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে না মুরাদনগর সদর ইউপি নির্বাচন

আপডেট সময় ০৩:৪৫:৪২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ অক্টোবর ২০১৬
মো: নাজিম উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

অপেক্ষার পালা ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে মুরাদনগর সদর ইউনিয়নের সাধারন ভোটারের। আজ ৩১শে অক্টোবর ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও আইনি জটিলতায় তা হচ্ছে না।

এর মধ্যদিয়ে অবসান হলো সকল জল্পনা-কল্পনার। রোববার সকাল  থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে জোরগুঞ্জন চললেও রাত আটটার দিকে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তা নাকচ করে দেন। আপীলের রায় নির্বাচনের পক্ষে হলেও সময় সল্পতার কারনে আজ হচ্ছে না ভোট।

জানা যায়, ৬ষ্ঠ ধাপে ৪ঠা জুন মুরাদনগর উপজেলার ২২টি ইউনিয়নের নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষনা করে নির্বাচন কমিশন কিন্তু ভোট গ্রহনের কিছুদিন পূর্বে পৌরসভার সীমানা গেজেট নিয়ে জটিলতা তুলে ধরে হাইর্কোটে রিট করেন মুরাদনগর সদও ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহাম্মেদ মাসুদ। সেই রিটের প্রেক্ষিতে মুরাদনগর সদর ইউপির ভোট গ্রহন স্থগিত করে হাইর্কোট। সেই আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে আপীল করেন সদর ইউনিয়নে আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী  (নৌকা) সফিউল্লাহ ভূইয়া। আপীলে ভোট গ্রহনের স্থগিতাদেশকে স্থগিত করে ভোট গ্রহনের আদেশ দেন উচ্চ আদালত। পরে ৩১শে অক্টোবর ভোট গ্রহনের তারিখ ঘোষনা করে গনবিজ্ঞপ্তি জারি করে নির্বাচন কমিশন কিন্তু মুরাদনগরের কাজী সাইফুল ইসলাম নামের এক ব্যাক্তি একই বিষয় নিয়ে হাইর্কোটে আবারো একটি রিট আবেদন করেন এর প্রেক্ষিতে পুনরায় গত ২৪ অক্টোবর হাইর্কোটের বিচারপতি নাইমা হায়দার ও মো: সেলিমের দৈত বেঞ্চ সদর ইউপি নির্বাচন ৬মাসের জন্য স্থগিত করেন। এই আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে আবারো আপীল করেন সফিউল্লাহ ভূইয়া।

আপীলে নির্বাচনের স্থগিতাদেশকে ৬সপ্তাহের জন্য স্থগিত করে রায় ঘোষনা করে উচ্চ আদালত।
গময় সল্পতার কারনে ভোট গ্রহন হচ্ছে না বলে জানা যায়।

মুরাদনগর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাসেলুল কাদের জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ভোট গ্রহন হচ্ছে না এই বিষয়টি নিশ্চিত করেন।