ঢাকা ০৮:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হোমনায় বিএনপির প্রার্থীর অফিস ভাংচুর, আহত ৭

তপন সরকার, হোমনা প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার হোমনায় ইউপি নির্বাচন কে কেন্দ্রকরে ৩নং দুলালপুর ইউনিয়নের হামলা চালিয়ে বিএনপির প্রার্থীর নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করা হয়েছে ।এতে বাধাদিতে গিয়ে প্রার্থীর দুই ভাইসহ সাত জন আহত হয়েছে । আহতদের হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিকরা হয়েছে।

রোববার বিকেলে উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নে ঘটনা ঘটে ।

আহতরা হলো, বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর ছোট দুইভাই মো. জালাল উদ্দিন সরকার(৪৭) ও আলা উদ্দিন সরকার(৪৫)কাশিপুর গ্রামের মৃত শহিদ মিয়ার ছেলে মো. মোশারফ হোসেন(৫৫) ও তার ছেলে মো. শরীফ (২৪), সুমন (৩২) জাকির, ও রবিকুল । এদেও মধ্যে মো. জালাল উদ্দিন (৪৫)ও আলাউদ্দিন কে আশংকা জনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে ।

জানাগেছে, গতকাল রোববার বিকেলে ৩নং দুলালপুর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম উদ্দিন সওদাগরের কর্মসমর্থকরা মিছিল সহকারের দুলালপুর বাজাওে বাজারে অবস্থিত বিএনপির প্রার্থী মো. জামাল উদ্দিন সরকারের অফিসের সামনে এসে উচ্চস্বরে মিছিল করে এসে অফিস বন্ধকরার জন্য হুমকি দেয়। উপস্থিত লোকজন এতে বাধাদিলে তাদের বাধা উপেক্ষা করে অফিসে হামলা চালিয়ে অফিস ভাংচুর করা হয়। এ সময় মোশারফ হোসেন ও তার ছেওেল শরীফ (২৪) আহত হয় । খবর পেয়ে বিএনপির প্রার্থী মো. জামাল উদ্দিনের দুই ভাই ঘটনাস্থলে আসলে তাদেরকে এলাপাথারী কোপাইযা মারাত্মক আহত করে ।লোক তাদেরকে হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়েগেলে অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে ঢাকা মেডেকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে ।

পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ।এলাকা থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে । যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হওয়ার আশংকা রয়েছে ।

এ ব্যপারে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মো. জসিমউদ্দিন সওদাগর বলেন, আমি মঙ্গলকান্দি গ্রামে পথ সভা করছিলাম খবর পেয়ে দুলালপুর বাজারে এসে শুনেছি । বিএনপির লোকজন মিছিল করে এসে আমার নৌকা প্রতীকের ব্যানার ছিড়ে ফেলেছে । এ নিয়ে গন্ডগোল হয়েছে ।

এ দিকে বিএনপি প্রার্থীর ছোট ভাই আহত জালাল উদ্দিন সরকার বলেন,গত বৃহস্পতিবার জসিম উদ্দিন সওদাগর নিজে এসে আমাদেও অফিস বন্ধকরতে হুমকি দিয়েছিল ।উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী শহিদুল ইসলাম ও রির্টানিং অফিসার মো. কামাল হোসেনের উপস্থিতিতে আইনশৃংখলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায অভিযোগ করলে অফিস খুলে দেয়া হয় । রোববার বিকালে পরিকল্পিত ভাবে অফিস বন্ধকরতে লোকজন পাঠিয়েছে জসিম উদ্দিন। খবর শুনে আমি বাজারে আসলে মোবাইলের নির্দেশে আমার উপর হঠাৎ আক্রমন করা হয়েছে। এতে আমার ছোট ভাই আলাউদ্দিনের মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয় । আমি নিজেকে বাচাতে গিয়ে হাতে ৬ টি কোপ খেয়েছি।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

হোমনায় বিএনপির প্রার্থীর অফিস ভাংচুর, আহত ৭

আপডেট সময় ০৭:১৮:০৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৩ মে ২০১৬

তপন সরকার, হোমনা প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার হোমনায় ইউপি নির্বাচন কে কেন্দ্রকরে ৩নং দুলালপুর ইউনিয়নের হামলা চালিয়ে বিএনপির প্রার্থীর নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করা হয়েছে ।এতে বাধাদিতে গিয়ে প্রার্থীর দুই ভাইসহ সাত জন আহত হয়েছে । আহতদের হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিকরা হয়েছে।

রোববার বিকেলে উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নে ঘটনা ঘটে ।

আহতরা হলো, বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর ছোট দুইভাই মো. জালাল উদ্দিন সরকার(৪৭) ও আলা উদ্দিন সরকার(৪৫)কাশিপুর গ্রামের মৃত শহিদ মিয়ার ছেলে মো. মোশারফ হোসেন(৫৫) ও তার ছেলে মো. শরীফ (২৪), সুমন (৩২) জাকির, ও রবিকুল । এদেও মধ্যে মো. জালাল উদ্দিন (৪৫)ও আলাউদ্দিন কে আশংকা জনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে ।

জানাগেছে, গতকাল রোববার বিকেলে ৩নং দুলালপুর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম উদ্দিন সওদাগরের কর্মসমর্থকরা মিছিল সহকারের দুলালপুর বাজাওে বাজারে অবস্থিত বিএনপির প্রার্থী মো. জামাল উদ্দিন সরকারের অফিসের সামনে এসে উচ্চস্বরে মিছিল করে এসে অফিস বন্ধকরার জন্য হুমকি দেয়। উপস্থিত লোকজন এতে বাধাদিলে তাদের বাধা উপেক্ষা করে অফিসে হামলা চালিয়ে অফিস ভাংচুর করা হয়। এ সময় মোশারফ হোসেন ও তার ছেওেল শরীফ (২৪) আহত হয় । খবর পেয়ে বিএনপির প্রার্থী মো. জামাল উদ্দিনের দুই ভাই ঘটনাস্থলে আসলে তাদেরকে এলাপাথারী কোপাইযা মারাত্মক আহত করে ।লোক তাদেরকে হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়েগেলে অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে ঢাকা মেডেকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে ।

পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ।এলাকা থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে । যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হওয়ার আশংকা রয়েছে ।

এ ব্যপারে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মো. জসিমউদ্দিন সওদাগর বলেন, আমি মঙ্গলকান্দি গ্রামে পথ সভা করছিলাম খবর পেয়ে দুলালপুর বাজারে এসে শুনেছি । বিএনপির লোকজন মিছিল করে এসে আমার নৌকা প্রতীকের ব্যানার ছিড়ে ফেলেছে । এ নিয়ে গন্ডগোল হয়েছে ।

এ দিকে বিএনপি প্রার্থীর ছোট ভাই আহত জালাল উদ্দিন সরকার বলেন,গত বৃহস্পতিবার জসিম উদ্দিন সওদাগর নিজে এসে আমাদেও অফিস বন্ধকরতে হুমকি দিয়েছিল ।উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী শহিদুল ইসলাম ও রির্টানিং অফিসার মো. কামাল হোসেনের উপস্থিতিতে আইনশৃংখলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায অভিযোগ করলে অফিস খুলে দেয়া হয় । রোববার বিকালে পরিকল্পিত ভাবে অফিস বন্ধকরতে লোকজন পাঠিয়েছে জসিম উদ্দিন। খবর শুনে আমি বাজারে আসলে মোবাইলের নির্দেশে আমার উপর হঠাৎ আক্রমন করা হয়েছে। এতে আমার ছোট ভাই আলাউদ্দিনের মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয় । আমি নিজেকে বাচাতে গিয়ে হাতে ৬ টি কোপ খেয়েছি।