ঢাকা ১০:৫৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হোমনায় শিক্ষা সফরে রান্না করতে গিয়ে দুই জন জেলহাজতে

মো: তপন সরকার, হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ 

কুমিল্লার হোমনায় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা সফরে রান্না করতে গিয়ে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্যের করা নারী নির্যাতন মামলায় ভাইসহ বাবুর্চি জেলহাজতে ।

গত শুক্রবার উপজেলার রামকৃষ্ণপুর কামাল স্মৃতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক শিক্ষা সফরে এ ঘটনা ঘটে ।

তারা হলো রামকৃষ্ণপুর আড়ালিয়া গ্রামের মো. ফুল মিয়ার ছেলে জুয়েল(২৬) ও সাগর(২২) ।

থানাও এলাকাবাসি সূত্রে জানাযায়,গত শুক্রবার উপজেলার চান্দেরচর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর কামাল স্মৃতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা লঞ্জযোগে সোনারগাঁও এ শিক্ষা সফরে যায় । শিক্ষা সফরে রান্না করতে জুয়েল(২৬) তার ছোট ভাই সাগর বাবুর্চি হিসেবে যায়। যাবার পথে লঞ্জের মধ্যে ডেক সেট বাজিয়ে শিক্ষার্থীরা আনন্দ করছিল । এসময় তাদের সাথে সাগর ও অংশ নেয় এ লঞ্জে থাকা ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মজিবুর রহমান তাকে সাগরকে বাধাদেয় এবং বকাঝকা করে একপর্যায়ে চর থাপ্পর মারে। পরবর্তীতে সোনার গাঁও থেকে আসার পর বাবুর্চিও পারিশ্রমিকে টাকা চাইলে মুজিবুর রহমান ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় এবং হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে মজিবুর রহমান দুই ভাইকে লঞ্চ ঘাটে আটক করে মারধর করে পুলিশে সর্পদ করে। পরদিন সকালে মজিবুর রহমান বাদী হয়ে দুই ভাইয়ের নাম উল্লেখ করে আরো ১০/১৫ জন অজ্ঞাত আসামী করে শিশু ও নারী নির্যাতন আইনে মামলা করে । এ মামলায় দুইভাইকে কোর্টে প্রেরন করে।

এ ব্যাপারে মামলার বাদী মজিবুর রহমান বলেন, বাবুর্চির ভাই সাগর লঞ্চে মেয়েদের সাথে অসভ্যতা করতেছিল আমি তাকে বকাঝকা করি । এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে যাবার পথে তারা আমার উপর আক্রমন করে আমাকে মারধর করে। তাই আমি মামলা করেছি । বাবুর্চির পিতা মো. ফুল মিয়া বলেন, আমার ছেলেরা যদি নারীনির্যাতন করতো তা হলে মেয়ে অভিভাবক বা হেড স্যার মামলা করতো । আমার ছেলেরা রান্নার টাকা চাওয়াতে মজিবমেম্বার এদের বেদম পিটিয়ে থানায় দিয়েছে । এবং থানা থেকে ছাড়াতে মজিবুর মেম্বার দুই লক্ষ টাকা চায়। আমি টাকা না দেয়ায় আমার দুই ছেলেকে মিথ্যা নারী নির্যাতন মামলা দিয়ে জেলে পাটিয়েছে । আমি এর সুষ্ঠু তদন্ত দাবী করছি । এবং সুষ্ঠু বিচার প্রার্থী প্রধান শিক্ষক এটিএম আবদুল মতিন বলেন, শিক্ষা সফরে নারী নির্যাতনের মত কোন ঘটনা ঘটেনি । ডেন্স দেওয়কে কেন্দ্র করে মামলা হওয়াটা দুঃখ জনক। এতে প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুন্ন হয়েছে ।

এ বিষয়ে ওসি রসুল আহমদ নিজামী বলেন, শিক্ষা সফরে মেয়েদেরকে উত্তোক্ত করার ঘটনায় দুই জনকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ তাদেরকে থানায় নিয়ে আসে।পরবর্তীতে লিখিত অভিযোগ পেয়ে মামলা নিয়ে কোর্টে চালান করিছি । পরবর্তীতে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা করা হবে ।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

হোমনায় শিক্ষা সফরে রান্না করতে গিয়ে দুই জন জেলহাজতে

আপডেট সময় ০৩:০৬:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭
মো: তপন সরকার, হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ 

কুমিল্লার হোমনায় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা সফরে রান্না করতে গিয়ে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্যের করা নারী নির্যাতন মামলায় ভাইসহ বাবুর্চি জেলহাজতে ।

গত শুক্রবার উপজেলার রামকৃষ্ণপুর কামাল স্মৃতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক শিক্ষা সফরে এ ঘটনা ঘটে ।

তারা হলো রামকৃষ্ণপুর আড়ালিয়া গ্রামের মো. ফুল মিয়ার ছেলে জুয়েল(২৬) ও সাগর(২২) ।

থানাও এলাকাবাসি সূত্রে জানাযায়,গত শুক্রবার উপজেলার চান্দেরচর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর কামাল স্মৃতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা লঞ্জযোগে সোনারগাঁও এ শিক্ষা সফরে যায় । শিক্ষা সফরে রান্না করতে জুয়েল(২৬) তার ছোট ভাই সাগর বাবুর্চি হিসেবে যায়। যাবার পথে লঞ্জের মধ্যে ডেক সেট বাজিয়ে শিক্ষার্থীরা আনন্দ করছিল । এসময় তাদের সাথে সাগর ও অংশ নেয় এ লঞ্জে থাকা ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মজিবুর রহমান তাকে সাগরকে বাধাদেয় এবং বকাঝকা করে একপর্যায়ে চর থাপ্পর মারে। পরবর্তীতে সোনার গাঁও থেকে আসার পর বাবুর্চিও পারিশ্রমিকে টাকা চাইলে মুজিবুর রহমান ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় এবং হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে মজিবুর রহমান দুই ভাইকে লঞ্চ ঘাটে আটক করে মারধর করে পুলিশে সর্পদ করে। পরদিন সকালে মজিবুর রহমান বাদী হয়ে দুই ভাইয়ের নাম উল্লেখ করে আরো ১০/১৫ জন অজ্ঞাত আসামী করে শিশু ও নারী নির্যাতন আইনে মামলা করে । এ মামলায় দুইভাইকে কোর্টে প্রেরন করে।

এ ব্যাপারে মামলার বাদী মজিবুর রহমান বলেন, বাবুর্চির ভাই সাগর লঞ্চে মেয়েদের সাথে অসভ্যতা করতেছিল আমি তাকে বকাঝকা করি । এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে যাবার পথে তারা আমার উপর আক্রমন করে আমাকে মারধর করে। তাই আমি মামলা করেছি । বাবুর্চির পিতা মো. ফুল মিয়া বলেন, আমার ছেলেরা যদি নারীনির্যাতন করতো তা হলে মেয়ে অভিভাবক বা হেড স্যার মামলা করতো । আমার ছেলেরা রান্নার টাকা চাওয়াতে মজিবমেম্বার এদের বেদম পিটিয়ে থানায় দিয়েছে । এবং থানা থেকে ছাড়াতে মজিবুর মেম্বার দুই লক্ষ টাকা চায়। আমি টাকা না দেয়ায় আমার দুই ছেলেকে মিথ্যা নারী নির্যাতন মামলা দিয়ে জেলে পাটিয়েছে । আমি এর সুষ্ঠু তদন্ত দাবী করছি । এবং সুষ্ঠু বিচার প্রার্থী প্রধান শিক্ষক এটিএম আবদুল মতিন বলেন, শিক্ষা সফরে নারী নির্যাতনের মত কোন ঘটনা ঘটেনি । ডেন্স দেওয়কে কেন্দ্র করে মামলা হওয়াটা দুঃখ জনক। এতে প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুন্ন হয়েছে ।

এ বিষয়ে ওসি রসুল আহমদ নিজামী বলেন, শিক্ষা সফরে মেয়েদেরকে উত্তোক্ত করার ঘটনায় দুই জনকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ তাদেরকে থানায় নিয়ে আসে।পরবর্তীতে লিখিত অভিযোগ পেয়ে মামলা নিয়ে কোর্টে চালান করিছি । পরবর্তীতে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা করা হবে ।