ঢাকা ০৯:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে ৪ কি: মি: যানজটে যাত্রীদের চরম দূর্ভোগ

হাবীবুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কতৃপক্ষের অব্যবস্থাপনায় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ সংলগ্ন ভিংলাবাড়ি এলাকায় সড়ক সংস্কারের নামে সম্পূর্ন সড়ক কেটে সংস্কার কাজ হওয়ায় প্রতিদিনের জন্য ৪ কি: মি: যানজটে পর ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যত্রীদের। এ সব সড়কে যানবাহ চলাচলের ব্যবস্থা রেখে সংস্কার কাজ চালানোর নিয়ম থাকলেও মানছেনা সংশ্লিষ্ঠ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। সর্ম্পূন সড়ক কেটে ঠিকাদিারী প্রতিষ্ঠনটি কাজ চালিয়ে গেলেও সে বিষয়টি জানা নেই কুমিল্লা সড়ক ও জনপথ বিভাগের।

এতে করে মুরাদনগর উপজেলার থোল্লার মোড় ও দেবিদ্বার উপজেলার পান্নারপুর পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তায় দীর্ঘ যানজটে যাত্রীবাহী বাস, এ্যম্বুলেন্স, মালবাহী ট্রাক ও স্কুল কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীরা চরম দূর্ভোগে পড়ছে। যানজটে স্থবির হয়ে পড়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রায় এক সপ্তাহ পূর্বে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের সংস্কার কাজ শুরু হয়। ঠিকাদারের অবহেলা ও অল্প সংখ্যক শ্রমিক দিয়ে চালিয়ে যাওয়ায় কাজের তেমন কোন উন্নতি হচ্ছে না। মাঝে মাঝে বাস ও ট্রাকের চাকা বালু মাটিতে দেবে যানজট চরম আকারের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে সামান্য ইট দিয়ে সাময়িক ভাবে এক পাশের গর্ত ভরাট করে ঘন্টার পর ঘন্টা চেষ্টা করে ট্রাক বাস পার হলেও আবার কিছুক্ষন পরেই আরেক পাশে ভারী যানবাহনের গাড়ি আটকে পরে শুরু হয় দীর্ঘ যানজট। সাধারনত সড়ক সংস্কারে রাস্তার দুই পাশের মধ্যে এক পাশ দিয়ে যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থা রেখে অন্যপাশের সংস্কার কাজ করতে হয়। রাস্তার এক পাশ কাজ না করে দু’পাশের কাজ এক সাথে ধরায় ঠিকাদারের এ উদাসীনতায় কারনে যানজটি এখন স্থায়ী রুপ নিয়েছে। ফলে যাত্রীদের ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। এখনো ২/৩ ঘন্টা পর পর গাড়ির চাকা দেবে বিরাট যানযট সৃষ্টি হচ্ছে। যাজটের ফলে যাত্রীরা নিরাপত্তা হিনতায় ভোগছে। এর ফলে সড়কটিতে বড়ছে চুড়ি, ডাকাতি ও ছিন্তাই। গত এক সাপ্তাহ ধরে চলছে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে এদুরবস্থা। কবে নাগাদ এই মহাসড়কে চলাচলকারীদের ভোগান্তি কবে শেষ হবে তা কেউ সঠিকভাবে বলতে পারছেন না।

এ ব্যাপরারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কুমিল্লা অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী সাইফ উদ্দিন জানান, আমরা রাস্তার কাজ টেকসই ভাবে করার চেষ্টা করছি। তবে পুরো রাস্তাটি একসাথে কেটে ফেলার বিষয়টি আমার জানা ছিলনা। শীগ্রই যাত্রীদের যানজট-দূর্ভোগ নিরষনে রাস্তাটির সংস্কার কাজ দ্রুত শেষ করা হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে ৪ কি: মি: যানজটে যাত্রীদের চরম দূর্ভোগ

আপডেট সময় ০২:৩২:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০১৭
হাবীবুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কতৃপক্ষের অব্যবস্থাপনায় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ সংলগ্ন ভিংলাবাড়ি এলাকায় সড়ক সংস্কারের নামে সম্পূর্ন সড়ক কেটে সংস্কার কাজ হওয়ায় প্রতিদিনের জন্য ৪ কি: মি: যানজটে পর ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যত্রীদের। এ সব সড়কে যানবাহ চলাচলের ব্যবস্থা রেখে সংস্কার কাজ চালানোর নিয়ম থাকলেও মানছেনা সংশ্লিষ্ঠ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। সর্ম্পূন সড়ক কেটে ঠিকাদিারী প্রতিষ্ঠনটি কাজ চালিয়ে গেলেও সে বিষয়টি জানা নেই কুমিল্লা সড়ক ও জনপথ বিভাগের।

এতে করে মুরাদনগর উপজেলার থোল্লার মোড় ও দেবিদ্বার উপজেলার পান্নারপুর পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তায় দীর্ঘ যানজটে যাত্রীবাহী বাস, এ্যম্বুলেন্স, মালবাহী ট্রাক ও স্কুল কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীরা চরম দূর্ভোগে পড়ছে। যানজটে স্থবির হয়ে পড়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রায় এক সপ্তাহ পূর্বে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের সংস্কার কাজ শুরু হয়। ঠিকাদারের অবহেলা ও অল্প সংখ্যক শ্রমিক দিয়ে চালিয়ে যাওয়ায় কাজের তেমন কোন উন্নতি হচ্ছে না। মাঝে মাঝে বাস ও ট্রাকের চাকা বালু মাটিতে দেবে যানজট চরম আকারের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে সামান্য ইট দিয়ে সাময়িক ভাবে এক পাশের গর্ত ভরাট করে ঘন্টার পর ঘন্টা চেষ্টা করে ট্রাক বাস পার হলেও আবার কিছুক্ষন পরেই আরেক পাশে ভারী যানবাহনের গাড়ি আটকে পরে শুরু হয় দীর্ঘ যানজট। সাধারনত সড়ক সংস্কারে রাস্তার দুই পাশের মধ্যে এক পাশ দিয়ে যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থা রেখে অন্যপাশের সংস্কার কাজ করতে হয়। রাস্তার এক পাশ কাজ না করে দু’পাশের কাজ এক সাথে ধরায় ঠিকাদারের এ উদাসীনতায় কারনে যানজটি এখন স্থায়ী রুপ নিয়েছে। ফলে যাত্রীদের ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। এখনো ২/৩ ঘন্টা পর পর গাড়ির চাকা দেবে বিরাট যানযট সৃষ্টি হচ্ছে। যাজটের ফলে যাত্রীরা নিরাপত্তা হিনতায় ভোগছে। এর ফলে সড়কটিতে বড়ছে চুড়ি, ডাকাতি ও ছিন্তাই। গত এক সাপ্তাহ ধরে চলছে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে এদুরবস্থা। কবে নাগাদ এই মহাসড়কে চলাচলকারীদের ভোগান্তি কবে শেষ হবে তা কেউ সঠিকভাবে বলতে পারছেন না।

এ ব্যাপরারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কুমিল্লা অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী সাইফ উদ্দিন জানান, আমরা রাস্তার কাজ টেকসই ভাবে করার চেষ্টা করছি। তবে পুরো রাস্তাটি একসাথে কেটে ফেলার বিষয়টি আমার জানা ছিলনা। শীগ্রই যাত্রীদের যানজট-দূর্ভোগ নিরষনে রাস্তাটির সংস্কার কাজ দ্রুত শেষ করা হবে।